• সাকিবের নিষেধাজ্ঞা
  • " />

     

    সাকিবকে প্রস্তাব দেওয়া সেই ভারতীয় জুয়াড়িকে নিষিদ্ধ করল আইসিসি

    দীপক আগারওয়ালকে মনে আছে? সাকিব আল হাসানের নিষেধাজ্ঞার সময় সেই যে ভারতীয় জুয়াড়ির নাম এসেছিল? সেই জুয়াড়ি এবার ফেঁসে গেছেন আইসিসির বিরুদ্ধে সহযোগিতা ও নিয়ম লঙ্ঘনের কারণে। দুই বছরের জন্য সব ধরনের টুর্নামেন্ট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন, যার মধ্যে ছয় মাস স্থগিত নিষেধাজ্ঞা। এই ছয় মাসের মধ্যে আর কোনো ধরনের টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারবেন না দীপক।

    এই দীপকের সঙ্গে কথোপকথনের খবর চেপে যাওয়ার জন্য সাকিব গত অক্টোবরে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন ( যদিও এর মধ্যে এক বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞা)। আইসিসি অবশ্য আনুষ্ঠানিকভাবে বলেনি সেই দীপক আর এই দীপক একই কি না। কারণ সাকিবের কাছ থেকে তথ্য চাওয়ার জন্য আইনত দীপককে কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে পারেনা আইসিসি। তবে এবার দীপক ফেঁসে গেছেন  একটি টি-১০ টুর্নামেন্টে ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক হিসেবে অসহযোগিতার জন্য।

    আইসিসির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করা হয়েছে ঘটনার। ৩৪ বছর বয়সী দীপক এই মুহূর্তে দিল্লিতে থাকেন বলে অনুমান করা হচ্ছে। ২০১৮ সালে টি-টেন লিগে সিন্ধি ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকদের একজন ছিলেন এই দীপক। তিন দিন পরেই আরেকজন ক্রিকেটারকে প্রস্তাব দেওয়ার জন্য দীপকের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনে আকসু। এই ঘটনার সাথে সেই টি-১০ লিগের সম্পর্ক ছিল না। ওই সময় দীপক তার মোবাইল ফোনটি আইসিসির কাছে সমর্পণ করেছিলেন। কিন্তু ওই ঘটনার তিন দিন পরেই ‘মি এক্স’ নামে একজনের সাথে হোয়াটস্অ্যাপে তথ্য চালাচালির অভিযোগ আনে আইসিসির বিরুদ্ধে। সেই মি এক্সের মাধ্যমে বিভিন্ন ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফিক্সিং ও দলের তথ্য জানার জন্য চেষ্টা করেছিলেন দীপক।

    আকসু এরপর অভিযোগ আনে, এই মি এক্সকে সব ধরনের মেসেজ হোয়াটস্যাপ থেকে মুছে ফেলতে বলেছিলেন দীপক। এসব অভিযোগের কারণে শেষ পর্যন্ত ফেঁসে যান।    

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন