• ফুটবল, অন্যান্য
  • " />

     

    ৭০০ বছর পর সেভিলে মসজিদ গড়ে উঠছে সাবেক ফুটবলারের উদ্যোগে

    "রোজা রেখে ফুটবল খেলে" বেশ সাড়াই তুলেছিলেন একসময় ফ্রেডেরিক কানুটে। সাবেক সেভিয়া স্ট্রাইকারের ধর্মভীরুতার কথা জানেন কম বেশি সবাই। স্পেনের সেভিল অঞ্চলের মানুষরা জানেন আরও বেশি। যে শহরের ক্লাবের হয়ে ইউয়েফা কাপ জিতেছিলেন, সেই শহরেই একটি মসজিদ বানানোর উদ্যোগ নিয়েছেন কানুটে।

    সেভিলে প্রায় ৩০ হাজার মুসলমান বসবাস করেন। তবে গত ৭০০ বছরে এই অঞ্চলে মুসলমানদের জন্য কোনও মসজিদ নির্মিত হয়নি। বিভিন্ন বাড়ির পার্কিংয়ের জায়গাতেই মূলত নামাজের জন্য জায়গা তৈরি করে প্রার্থনার কাজ সারতেন সেই অঞ্চলের মুসলিমরা।


    ইউয়েফা কাপজয়ী সাবেক সেভিয়া স্ট্রাইকার কানুটে ২০ বছর বয়সে ধর্মান্তির হয়ে ইসলাম গ্রহণ করেন। সেভিয়ার হয়ে খেলার সময়ই ২০০৭ সালে সেভিলে নামাজের জন্য একটি জায়গা কিনে নিয়েছিলেন তিনি। তবে সেই জায়গাটি ব্যবহারের মেয়াদ প্রায় ফুরিয়ে আসছিল। এখন ওই জায়গাতেই নির্মান হবে মসজিদ।

    স্প্যানিশ মুসলিম কাউন্সিলের সঙ্গে মিলে মসজিদ তৈরির প্রকল্প শুরু করেন কানুটে। প্রকল্পের অর্থায়নের জন্য ‘লঞ্চগুড’ নামের একটি ওয়েবসাইটে অনলাইনে অর্থ সংগ্রহ শুরু করেন প্রায় বছর খানেক আগে। এরই মধ্যে ১ মিলিয়ন ডলারও সংগ্রহ করেছেন তিনি। ২৭ মে পর্যন্ত সেখানে অর্থ প্রদান করা যাবে। প্রকল্পটিতে মসজিদ এবং সাংস্কৃতিক কেন্দ্র তৈরির জন্য প্রায় ১৩.১ মিলিয়ন ডলার খরচ হবে।

    সেভিয়ার হয়ে খেলতে আসার পর এই শহরে নামাজের জায়গা না পেয়েই প্রথম মসজিদ নির্মাণের বিষয়টি তার মাথায় আসে বলে জানিয়েছেন কানুটে, “আমি যখন প্রথম এখানে (সেভিয়ায়) আসি, এখানে মসজিদ খুঁজে পাওয়াটা খুব কষ্টকর ছিল। মসজিদ কোথায় আছে জানতে লোকজনকে অনেক জিজ্ঞেস করতে হত।”

    গত মঙ্গলবার টুইটারে এক ভিডিও বার্তায় অনলাইনে অর্থ অনুদান দেওয়া ব্যক্তিদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি, “ধন্যবাদ এবং এই ক্যাম্পেইনে অংশ নেওয়া সবাইকে আল্লাহ ভালো রাখুন।”

    ফ্রান্সে বেড়ে ওঠা হলেও কানুটে খেলেছেন মালী জাতীয় দলের হয়ে। সেভিয়ার আগে খেলেছেন ওয়েস্ট হাম, টটেনহাম হটস্পারের জার্সিতেও। ২০০৭ সালে আফ্রিকার বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হন কানুটে। সেভিয়ার হয়ে খেলেছেন ২০০৫ থেকে ২০১২ পর্যন্ত। এরপর চায়নিজ লিগের ক্লাবের হয়ে ক্যারিয়ার শেষ করেছিলেন ৪২ বছর বয়সী সাবেক স্ট্রাইকার।