• ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাংলাদেশ সফর ২০২১
  • " />

     

    নেট সেশন : নতুন করে পুরোনো চ্যালেঞ্জের সামনে বাংলাদেশ

    নেট সেশন : নতুন করে পুরোনো চ্যালেঞ্জের সামনে বাংলাদেশ    


    আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাংলাদেশ সফর
    প্রথম টেস্ট

    কবে, কখন
    ৩-৭ ফেব্রুয়ারি 
    বাংলাদেশ সময় ৯.৩০ টা (০৯৩০)


    এমন না যে এমন বিরতি টেস্টে বাংলাদেশের আগে আসেনি। তবে এ মৌসুমটা টেস্টের দিক দিয়ে বাংলাদেশের অন্যতম ব্যস্ততম হওয়ার কথা ছিল, কোভিড-১৯-এ হয়নি তা। গত বছরের শুরুতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টই তাই হয়ে আছে শেষ। চট্টগ্রামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে বাংলাদেশ ‘ফেভারিট’ হলেও সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং ফরম্যাটের চ্যালেঞ্জটা থেকেই যায় তাই, সে চ্যালেঞ্জ যতো পুরোনোই হোক না কেন। 

    ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, তাদের একাদশ বিবেচনায় সেটি যেন অনুমিতই ছিল। টেস্টেও রেকর্ড বিবেচনায় বাংলাদেশই এগিয়ে, তার ওপর নিয়মিত অধিনায়কসহ টেস্ট স্কোয়াডেও নেই বেশ কয়েকজন সফরকারিদের। যদিও ওয়ানডে সিরিজের তুলনায় টেস্ট দলের অভিজ্ঞতা বেশি। ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট, জেরমাইন ব্ল্যাকউডদের সঙ্গে পেসে কেমার রোচ-শ্যানন গ্যাব্রিয়েলদের উপস্থিতি অন্তত ওয়ানডের মতো অতোটা ‘অসহায়’ বোধ করার কথা নয় উইন্ডিজের। 

    তবে চট্টগ্রামের উইকেট নিয়ে আগেরদিনই উইন্ডিজ অধিনায়ক ব্রাথওয়েট বলেছেন, শুষ্ক, চিরায়ত বাংলাদেশ স্টাইলের সেটি। আর স্কোয়াডে ৫ জন পেসার থাকলেও বাংলাদেশের হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো তো সরাসরিই বলে দিয়েছিলেন, যেখানে পেসারদের কিছু নেই, সেখানে তাদের সংখ্যা বাড়ানোর মতো ‘স্টুপিড’ তারা নন। সেক্ষেত্রে লড়াইটা আপাতদৃষ্টিতে স্পিনেই। তবে পেসারদের ভূমিকাও থাকবে, মনে করেন ব্রাথওয়েট। 

    “আমার তবুও মনে হয়, পেসারদের ভূমিকা একই থাকবে। আমাদের এমন বোলার আছে, যাদের বাড়তি পেস, ফলে একটু নিচু বাউন্স থাকলে, আর ঠিকঠাক ফিল্ড-সেটিং হলে পেসাররাও চাপ তৈরি করতে পারবে। উইকেট দেখে মনে হয় স্পিনই করবে, তবে পেসারদের আক্রমণাত্মক অপশনটা থেকেই যাচ্ছে, যেহেতু নিচু বাউন্সের সম্ভাবনাটা আছে”, ম্যাচের আগেরদিন বলেছেন ব্রাথওয়েট। 

    তবে স্পিনেই বাংলাদেশের জন্য হুমকি হতে পারেন রাকিম কর্নওয়াল। প্রস্তুতি ম্যাচেও সফল হয়েছিলেন এই অফস্পিনার। স্পিনে বাংলাদেশ অবশ্য ফিরে পাচ্ছে বড় অস্ত্র সাকিব আল হাসান, নিষেধাজ্ঞা, শেষ ওয়ানডেতে পাওয়া চোট কাটিয়ে প্রথম টেস্টের একাদশে তার ফেরাটা প্রায় নিশ্চিতই। 

    টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দেশের মাটিতে আগের সিরিজ জিতেছিল বাংলাদেশ, সেখানে ৪০টি উইকেটই নিয়েছিলেন বাংলাদেশ স্পিনাররা। তবে চট্টগ্রামে নিজেদের শেষ টেস্টে স্বীকৃত পেসার ছাড়াই খেলতে নামা বাংলাদেশ হেরে গিয়েছিল আফগানিস্তানের বিপক্ষে। তেমন হওয়ার সম্ভাবনা এবার কম, তবে একজন পেসারের সঙ্গে সাকিবসহ ৪ স্পিনার নামবেন কিনা, সেটি খোলাসা করেননি মুমিনুল। ওপেনিংয়ে তামিমের সঙ্গী কে হবেন, নিশ্চিত নয় সেটিও।

    একাদশ ঠিক করার চ্যালেঞ্জের সঙ্গে বাংলাদেশের সামনে আছে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে পয়েন্টের কলামে কিছু যোগ করার ব্যাপারও। ৩ টেস্ট খেলে এখনও সেটি শূন্যই বাংলাদেশের।  

    রঙ্গমঞ্চ
    জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম

    এ মাঠের শেষ টেস্টটি আফগানিস্তানের বিপক্ষে হেরেছিল বাংলাদেশ। তবে মুমিনুল হক বলছেন, সেসব মনে রাখার দরকার নেই কোনও, “কাল আপনি যা করেছেন, তা ভালো হোক বা খারাপ হোক মনে রাখার দরকার নেই। এটা মনে রেখে আপনি কিছু পাবেনও না। আমিও একইভাবে ভাবছি। হয়ত উত্তরটা বুঝতে পেরেছেন। আফগানিস্তানের সাথে কী হয়েছিল মনে রাখতে চাই না। কালকের ম্যাচেই মনযোগ রাখতে চাচ্ছি।”

    অবশ্য চট্টগ্রামের উইকেট হওয়ার কথা টার্নিং-ই।   


    যাদের ওপর চোখ

    মুশফিকুর রহিম

    শেষ ওয়ানডেতে ম্যাচসেরা হয়েছেন, বাংলাদেশের শেষ টেস্টে করেছিলেন ডাবল সেঞ্চুরিও। এমনিতে চট্টগ্রাম মুমিনুল হকের ‘প্রিয়’ ভেন্যু, আছে সাকিব আল হাসানের ফেরার উপলক্ষ্যও। তবে উইকেটকিপিং আগেই ছেড়ে দেওয়া মুশফিকও কাড়তে পারেন আলো। 

    রাকিম কর্নওয়াল

    তিন ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ার, তিন টেস্ট এই অফস্পিনার খেলেছেন তিন কন্ডিশনে-- কিংস্টন, লক্ষ্ণৌ ও ম্যানচেস্টারে। লক্ষ্ণৌয়ে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়েছিলেন, কন্ডিশন পক্ষে এলে তিনি ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে পারেন, সে ইঙ্গিত দিয়েছেন আগেই। 

    সম্ভাব্য একাদশ

    একজন পেসার খেলানো হলে মোস্তাফিজুর রহমান নাকি আবু জায়েদ রাহি, কিংবা এবাদত হোসেনের দিকে ঝুঁকবে বাংলাদেশ, নিশ্চিত নয় সেটি। ওয়ানডে সিরিজেও নিজের ছন্দ দারুণভাবে ফিরে পাওয়া মোস্তাফিজ ২০১৯ সালে শেষ টেস্ট খেলেছিলেন। 

    বাংলাদেশ

    তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান/সাদমান ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, তাইজুল ইসলাম, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান/আবু জায়েদ রাহি

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ

    ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট (অ), জন ক্যাম্পবেল, এনক্রুমাহ বোনার, জেরমাইন ব্ল্যাকউড, জশুয়া ডা সিলভা (উই), কাইল মেয়ার্স, রাকিম কর্নওয়াল, রেমন রিফার, জোমেল ওয়ারিক্যান, কেমার রোচ, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল


    সংখ্যার খেলা 

    • সচতুর্থ বাংলাদেশী বোলার হিসেবে টেস্টে ১০০ উইকেট থেকে ১০ ব্যবধানে দাঁড়িয়ে মেহেদি হাসান মিরাজ
    • আর ৪ উইকেট হলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৫০ উইকেট পাবেন সাকিব আল হাসান 

    তারা বলেন 

    “এক বছর পর ক্রিকেটে ফেরা এটা সত্যি। আমার কাছে মনে হয় এক বছর পর যেহেতু ফিরছি নতুন করে আরেকটা সুযোগ এসেছে টেস্ট ক্রিকেট নতুনভাবে শুরু করার। এটাকে সুযোগ হিসেবেই দেখছি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একটু চ্যালেঞ্জ তো থাকেই। ওটার চাইতে আমি যে জিনিসটা ভাবছি,  আমরা দল হিসেবে ভালো পারফর্ম করার, নতুন করে শুরু করার সুযোগ পাচ্ছি।”

    মুমিনুল হক, বাংলাদেশ অধিনায়ক

    “আমার মনে হয় ওপেনারদের বড় জুটি জরুরী, বিশেষ করে বাংলাদেশে। এর ফলে পরের ব্যাটসম্যানদের কাজ সহজ হয়ে যায়, এমন হলে আমাদের অবস্থানও দৃঢ় হবে। জন (ক্যাম্পবেল) দারুণ ব্যাটিং করছে, আমি তার সঙ্গে ব্যাটিং উপভোগ করছি।” 

    ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট, ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন