• আইপিএল ২০২১
  • " />

     

    কোভিড-১৯-এ বাবাকে হারালেন মোস্তাফিজের রাজস্থান সতীর্থ সাকারিয়া

    কোভিড-১৯-এ বাবাকে হারালেন মোস্তাফিজের রাজস্থান সতীর্থ সাকারিয়া    

    কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন রাজস্থান রয়্যালস পেসার চেতন সাকারিয়ার বাবা কাঞ্জিভাই সাকারিয়া। রবিবার বাবাকে হারিয়েছেন চেতন। 

    আইপিএলের চলার সময়ই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন কাঞ্জিভাই। এ বছর পরিবারের দ্বিতীয় সদস্যকে হারালেন চেতন। আইপিএল নিলামের কয়েক সপ্তাহ আগে তার ভাই রাহুল আত্মহত্যা করেছিলেন। 

    পরিবারের খরচ জোগাতে একসময় এক আত্মীয়র দোকানে কাজও করতে হয়েছিল সাকারিয়াকে। এরপর এবারের আসরের নিলামে রাজস্থান তাকে কিনেছিল প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ রুপি বা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১ কোটি ৩৮ লাখে। ক্রিকইনফোকে সাকারিয়া বলেছিলেন, বাবার ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর এক রুমের বাড়িতে থাকতেন তারা, তার স্বপ্ন নতুন একটি বাড়ি বানানোর। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিও ছিলেন ২৩ বছর বয়সী তিনি। 

    আইপিএল নিলাম সে স্বপ্নপূরণের পথটা সহজ করে দিয়েছিল তার। মাঠের পারফরম্যান্সেও সাকারিয়া ছিলেন দারুণ। ১৬ বছর বয়সের আগে সে অর্থে প্রচলিত ক্রিকেট কোচিং পাননি তিনি। তবে আইপিএলের মঞ্চে তিনি ছিলেন উজ্জ্বল। 

    ৭ ম্যাচে তিনি নিয়েছেন ৭ উইকেট, মোস্তাফিজুর রহমানের মতো রাজস্থানের হয়ে তিনিও খেলেছেন সবকটি ম্যাচই। 

    করোনাভাইরাস আইপিএলের বায়ো-সিকিউর বলয়ে ঢুকে পড়ার পর স্থগিত হয়েছে এবারের আসর। সাকারিয়ার আগে আক্রান্ত হয়েছে আইপিএলে খেলা বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের পরিবার। এজন্য আগেভাগেই আইপিএল থেকে বিরতি নিয়েছিলেন রবিচন্দ্রন আশ্বিন, আম্পায়ার নিতিন মেনন। এমএস ধোনির পরিবারের সদস্যও আক্রান্ত হয়েছেন এ ভাইরাসে। 

    কোভিড-১৯-এর সেকেন্ড ওয়েভ আঘাত করার পর ভয়ঙ্কর অবস্থা ভারতে, আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছেই শুধু। হাসপাতালগুলিতে অক্সিজেন সঙ্কটও প্রকট আকার ধারণ করেছে। সাকারিয়ারার আগে এ ভাইরাসে পরিবারের সদস্যকে হারিয়েছেন ভারত উইমেনসের ক্রিকেটার ভেদা কৃষ্ণামূর্তি- মায়ের পর বোনও মারা গেছেন তার। 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন