• কোপা আমেরিকা ২০২১
  • " />

     

    মেসিরা পেলেন প্রথম জয়ের দেখা, হার দিয়ে কোপা শুরু সুয়ারেজদের

    মেসিরা পেলেন প্রথম জয়ের দেখা, হার দিয়ে কোপা শুরু সুয়ারেজদের    

    ফুলটাইম স্কোর: আর্জেন্টিনা ১-০ উরুগুয়ে


    কোপা আমেরিকার সবচেয়ে সফল দুই দলের ফুটবলীয় দ্বৈরথটা বেশ পুরনো। অবশ্য আজকের ম্যাচের আগে আর্জেন্টিনা ছিল দারুণ চাপে। গত তিন ম্যাচে প্রথমে গোল দিয়ে এগিয়ে গেলেও শেষ পর্যন্ত ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল স্কালোনির দলকে। এমনকি উরুগুয়ের সাথেও শেষ ম্যাচে হয়েছিল ড্র। আজ অবশ্য হাসিমুখে ফিরেছেন মেসিরা, তারই দারুণ এক ক্রস থেকে হেডে বল জালে জড়িয়ে এবারের কোপায় আর্জেন্টিনার প্রথম জয় এনে দিয়েছেন গুইদো রদ্রিগেজ। এই জয়ে গ্রুপ এ’র শীর্ষে উঠে গেছে আলবিসেলেস্তেরা। 

    ম্যাচের শুরু থেকেই উরুগুয়ের উপর চেপে বসে আর্জেন্টাইনরা। আগের ম্যাচে সুযোগ তৈরি করেও কাজে লাগাতে পারেনি তারা। তাই এদিন শুরু থেকেই মেসিদের মাঝে জয়ের ক্ষিধেটা টের পাওয়া যাচ্ছিল। দারুণ শুরু করা মেসি গোল পেয়ে যেতে পারতেন ৮ মিনিটেই, ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ভিতরে ঢুকে নিয়েছিলেন তাঁর বাঁ পায়ের ট্রেডমার্ক বাঁকানো শট। মুসলেরা সেই যাত্রায় সেই শট প্রতিহত করলে ফিরতি শটে বল জালে জড়ানোর সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি লাওতারো মার্টিনেজ।



    তবে ১৩ মিনিটেই গোলের দেখা পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। রড্রিগো ডি পল কর্নার থেকে ছোট পাসে খুঁজে নেন মেসিকে। সেখান থেকেই একজনকে কাটিয়ে মেসির বাড়ানো দুর্দান্ত ক্রসে বল হেডে জালে জড়ান গুইদো রদ্রিগেজ, পেয়ে যান আকাশি নীল জার্সিতে নিজের প্রথম গোল। 

    গোলের পর অবশ্য নিজেদের কিছুটা গুছিয়ে নেয় উরুগুয়ে। তবে গোলমুখে শট তেমন একটা নিতে পারেনি তারা। ২৭ মিনিটের দিকে এডিনসন কাভানি বক্সের মাঝে পড়ে গেলে উরুগুয়ের জোরালো পেনাল্টির আবেদন রেফারি সাথে সাথেই নাকচ করে দেন। ৪৩ মিনিটের মাথায় কর্নার থেকে বল গিয়ে পড়ে রদ্রিগো বেন্টাঙ্কুরের পায়ে, বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া তাঁর নিচু শট অবশ্য পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। আর্জেন্টিনার রক্ষণভাগের তেমন একটা পরীক্ষা নিতে না পারায় প্রথমার্ধ তাই এক গোলের ব্যবধানে এগিয়েই শেষ হয়।

    দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই সমতাসূচক গোলের খোঁজে মরিয়া হয়ে উঠে উরুগুয়ে। ৫০ মিনিটের মাথায় ফেদেরিকো ভালভের্দের দারুণ এক ক্রসে ডে লা ক্রুজ পা বাড়ানোর আগেই দক্ষতার সাথে বল লুফে নেন এমি মার্টিনেজ। ৬৯ মিনিটের মাথায় একইভাবে বক্সে বল বাড়িয়েছিলেন ভিনা। তবে সেই ক্রস মাথায় লাগাতে পারেননি কাভানি, এমনকি পা বাড়িয়ে লাগাতে পারেননি সুয়ারেজও।  

    শেষ দশ মিনিটে অবশ্য উরুগুয়ের রক্ষণভাগে ত্রাস ছড়িয়েছে আর্জেন্টিনা। বেশ কয়েকবার মেসি বল নিয়ে ভেতরে ঢুকলেও অভিজ্ঞ উরুগুইয়ান রক্ষণের বাধায় গোলমুখে শট নিতে ব্যর্থ হন। মুহুর্মুহু আক্রমণ চালালেও আর্জেন্টাইনদের কোনও আক্রমণই ফলপ্রসু হয়নি। অন্যদিকে পিছিয়ে থাকলেও আর্জেন্টাইনদের আক্রমণের তোপে তাই আর বলার মত কোন সুযোগই তৈরি করতে পারেনি উরুগুয়ে।  কোপায় দুই দলের দেখায় ১৫তম জয় তুলে নিয়ে তাই আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল মেসিরা। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন