• ক্রিকেট

আলোচনায় তিন 'নতুন' অধিনায়ক

মেহেদি হাসান মিরাজ। ডেভিড ওয়ার্নার। স্টিভেন স্মিথ। বিপিএলে তিনজনই প্রথমবারের মতো করছেন অধিনায়কত্ব। মিরাজের অধিনায়কত্বের ছাপটা রাজশাহীর প্রথম ম্যাচে কিছুটা ম্লান ছিল, বেশ সরব থেকেও হারতে হয়েছে সিলেটের ওয়ার্নারকে। সেক্ষেত্রে এগিয়ে স্মিথ, প্রথম ম্যাচেই বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছেন দলের ভেতর, তার দল কুমিল্লাও জিতেছে। তবে তিনজনকে নিয়েই বেশ আশাবাদি তার সতীর্থরা। 

ঢাকার বিপক্ষে ম্যাচে হযরতউল্লাহ জাজাই ও সুনীল নারাইনের ওপেনিং জুটিতে খেই হারিয়েছিল রাজশাহী। সে জুটি ভেঙেছিলেন মোহাম্মদ হাফিজ, ৩ ওভারে এই অফস্পিনার ১৫ রান দিলেও তাকে দিয়ে পরে কোটা পূরণ করেননি মিরাজ। নিজের বোলিংয়েও নিস্প্রভ ছিলেন, একটি উইকেট নিলেও ৩ ওভারে গুণেছেন ৩৮ রান। রাজশাহীর আরেক স্পিনার আরাফাত সানি মনে করিয়ে দিচ্ছেন, বাড়তি দায়িত্বটা সামাল দেওয়ার সামর্থ্য ভালভাবেই আছে মিরাজের, “মিরাজ হয়ত বিপিএলে প্রথম অধিনায়কত্ব করছে। কিন্তু সে নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষেত্রে অভ্যস্ত। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক ছিল সে, সেরা ক্রিকেটারও হয়েছে আমাদের। ওর জন্য একটু বাড়তি দায়িত্ব বলা যায়। আমরা ওকে ইতিবাচক সহায়তা করছি সে যা করতে চায়।”

প্রথম ম্যাচ দিয়ে ওয়ার্নারকেও বিচার করতে না করছেন সোহেল তানভীর, “মাত্র একটি ম্যাচ হয়েছে। আপনি একজন অধিনায়ককে এক ম্যাচ দিয়ে বিচার করতে পারেননা। সে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। অন্য অনেক ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে সে অধিনায়কত্ব করেছে। আমি তাঁকে কানাডায় দেখেছি, সেখানেও ভালো করেছে। আশা করি আমাদের জন্যও ভালো করবে।”

তবে উলটো চিত্র স্মিথের ক্ষেত্রে। কুমিল্লার স্পিনার মেহেদি হাসান তো বেশ উচ্ছ্বসিত তাকে নিয়ে, “স্মিথ অধিনায়ক হিসেবে, মানুষ হিসেবে সব দিক থেকেই ভালো। সব কিছুই ভালো লেগেছে। ম্যাচে নিজেকে এবং সবাইকে ব্যস্ত রাখে সে, যেটা টি-টোয়েন্টিতে ক্রিকেটের জন্য অনেক জরুরী। সবাইকে সে খেলায় মনোযোগী রাখে।”

“আসলে তার জন্য একদিনেই সবার সাথে মানিয়ে নেয়া সম্ভব নয়। সময় লাগবে। খেলতে খেলতে সে আমাদের উন্নতির জন্য আরও সাহায্য করতে পারবে। সবার সাথেই সে অনেক মিশুক।”