• বিপিএল ২০১৯
  • " />

     

    • বিপিএল ২০১৯

    অথচ শুভকে নিতেই চাননি কুমিল্লা কোচ!

    হঠাৎ করেই ব্যাটিং অর্ডারের ‘জিগস পাজলটা’  মিলিয়ে ফেলেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, এনামুল হক বিজয়রা থাকার পরও একটা জায়গায় একটু খামতি ছিল। সবাইকে অবাক করে সেই দাবিটা এবার শামসুর রহমান শুভ মেটাচ্ছেন দারুণভাবে।  ফাইনালের আগে আজ অনুশীলনে কুমিল্লা কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন বললেন, শুভকে তিনি দলেই নিতে চাননি। তামিম ইকবালের চাওয়াতেই সুযোগ হয়েছে জাতীয় দলে খেলা এই ব্যাটসম্যানের।

     

     

    এবারের বিপিএলে এখন পর্যন্ত যে নটি ম্যাচ খেলেছেন শুভ, তার মধ্যে মাত্র দুইটিতে আউট হয়েছেন দুই অঙ্কের নিচে। ফিফটি অবশ্য নেই, তবে স্কোরকার্ড এখানে শুধু ভুল ধারণাই দেবে। প্রায় প্রতিটা ম্যাচে পরিস্থিতির দাবি মেটানোর জন্য বিভিন্ন পজিশনে নামতে হয়েছে। গত ম্যাচেই যেমন রংপুরের ১৬৬ রান তাড়া করে চারে নেমে খেলেছেন ১৫ বলে ৩৪ রানের ইনিংস। ঢাকার সঙ্গে আগের ম্যাচেই যেমন চারে নেমে খেলেছিলেন ৩৫ বলে ৪৮ রানের একটা ইনিংস।

    কুমিল্লা কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিনও স্বীকার করলেন, শুভের সাফল্যে তাঁর কোনো কৃতিত্ব নেই, ‘আমার আসলে কাজ করার কোনো সুযোগ হয় নাই। সে যেই সাফল্যটা পাচ্ছে সেটা তার নিজের যোগ্যতায় সে করছে এবং সে সারা বছর অনেক সিরিয়াস ছিল। এর পুরো ক্রেডিট আমি দেব তামিমকে। তামিমের কল্যানেই সে এই টিমে আসছে। প্রথমে আমি তাকে নিতে চাইনি। কিন্তু তামিম বলেছে সে অনেক প্র্যাকটিস করতেছে স্যার একটা সুযোগ দেন। এই কারণে শামসুর রহমানকে নেয়া।’

    এখন পর্যন্ত বিপিএলে ১৩৬ স্ট্রাইক রেটে করেছেন ২১০ রান। স্থানীয়দের মধ্যে অনেকের বেশি রান আছে, কিন্তু শুভর মতো পরিস্থিতির দাবি মেটাতে পেরেছেন কম জনই। জাতীয় দলের বাইরে আছেন চার বছরেরও বেশি হয়ে গেছে। সালাহ উদ্দিন মনে করছেন, বয়স ৩০ হলেও এখনো শুভর জন্য দলে ফেরা অসম্ভব নয়,

    ‘সে যদি ক্রিকেট নিয়ে আরেকটু সিরিয়াস হয় তার এখনও সুযোগ আছে ন্যাশনাল টিমে ব্যাক করার। সে ফ্রি স্ট্রোক প্লেয়ার এবং সবচেয়ে বড় জিনিস সে প্রেশার নিতে পারে। তাকে আমরা যে পজিশনেই খেলিয়েছি সে কিন্ত সফল হয়েছে। পরবর্তীতে সে কীভাবে আগাবে সেটা তার উপরই ডিপেন্ড করে। ’

    সর্বশেষ ম্যাচে রংপুরকে হারানোর পর ইমরুলও শুভকে ভরিয়ে দিয়েছিলেন প্রশংসায়,  ‘শুভর (শামসুর) ব্যাটিং আমাদের জন্য খুবই দরকারি এবার, খুবই কার্যকর হচ্ছে। ওকে আমরা পরিস্থিতি অনুযায়ী শাফল করাচ্ছি, একদিন তিনে, আরেকদিন চারে, কখনও আরও পরে। সে জাতীয় দলে খেলেছে। তার কোয়ালিটি ওরকমই আছে। বিপিএলে আগেও অনেক রান করেছে।’