• " />

     

    'গম্ভীরের এমন কোনো রেকর্ড ছিল না, কিন্তু ভাব নিত অনেক বেশি'

    মাত্রই বের হয়েছে শহীদ আফ্রিদির আত্মজীবনী গেম চেঞ্জার। বয়স নিয়ে এক দফা তোলপাড় এর মধ্যেই ফেলে দিয়েছে সেখানে, স্বীকার করেছেন পাঁচ বছর বয়স কমিয়েছেন। সেখানেই গৌতম গম্ভীরকে নিয়ে মন্তব্যটা আরেক দফা উস্কে দিল বিতর্ক। গম্ভীরের কোনো ব্যক্তিত্ব বা রেকর্ড নেই, সরাসরিই এমন কথা বলেছেন আফ্রিদি।

    কিন্তু সাবেক ভারতীয় ওপেনারের সাথে আবার আফ্রিদির কী হলো? ঘটনাটা ২০০৭ সালে, ভারত-পাকিস্তানের  ওয়ানডেতে। কানপুরের ম্যাচে সিঙ্গেল নেওয়ার সময় আফ্রিদির সঙ্গে ঠোকাঠুকি হয়ে যায় গম্ভীরের। বেশ উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয়েছিল দুজনের, যে জন্য জরিমানাও হয়েছিল তাঁদের। তবে আফ্রিদি ওই ঘটনা ভোলেননি, ‘আমার মনে আছে ২০০৭ সালে ভারত-পাকিস্তানের এশিয়া কাপের ম্যাচে হয়েছিল ওই ঘটনা। সিঙ্গেল নিয়ে সে সরাসরি আমার দিকে দৌড়ে এসেছিল। আমি বা আম্পয়ারের কাউকে এটা শেষ করতে হতো। তবে আমার দুজনের মধ্যে নিজেদের মায়ের দিকের আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে বেশ কথাবার্তা হয়েছে।’

    শেষের কথাটা মজা করে বললেও গম্ভীরের প্রতি আফ্রিদির মনোভাব বদলায়নি এখনো, ‘গম্ভীর মনে করে ও ডন ব্র্যাডম্যান আর জেমস বন্ডের ক্রস। করাচিতে এরকম লোককে আমরা বলি ফালতু। আমি হাসিখুশি ইতিবাচক লোক পছন্দ করি। আগ্রাসী হলেও আমার সমস্যা নেই, তবে আপনাকে ইতিবাচক হতে হবে। কিন্তু গম্ভীর ওরকম ছিল না।’

     

     

    আফ্রিদি অবশ্য সেখানেই থামেননি, এরপর বলেছেন, ‘কিছু দ্বন্দ্ব আছে ব্যক্তিগত, আবার কিছু পেশাদার। গম্ভীরের সঙ্গে প্রথমটাই ছিল। তার আচরণের সমস্যা ছিল। ব্যক্তিত্ব বলতে কিছু ছিল না তার। সাহসী ক্রিকেটারও তাকে বলা যাবে না কোনোভাবেই। এমন বড় কোনো রেকর্ডও ছিল না তার, তবে ভাব ছিল অনেক বেশি।’

    বোঝাই যায়, গম্ভীরের ওপর আফ্রিদির রাগটা অনেক বেশি!