• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    'নতুন বুস্কেটস' পেয়েছেন গার্দিওলা?

    নিজেদের ট্রান্সফার রেকর্ড ভেঙ্গে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ থেকে স্প্যানিশ মিডফিল্ডার রদ্রিকে দলে নিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। গত বছর রিয়াদ মাহরেজকে দলে নিতে প্রায় ৬৭ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছিল সিটি। ৭০ মিলিয়ন ইউরোতে রদ্রিকে দলে নিয়ে এক বছরের মাথায় সে রেকর্ড আবারও ভাঙ্গল সিটিজেনরা। সিটির হয়ে ১৬ নম্বর জার্সি গায়ে জড়াবেন তিনি।

    রদ্রিকে অবশ্য গত বছর থেকেই দলে নিতে চাচ্ছিল সিটি। কিন্তু অ্যাটলেটিকো কোনওভাবেই ছাড়তে না চাওয়ায় বছরখানেক অপেক্ষা করতে হয়েছে তাদের। ২০১৮-১৯ মৌসুম শেষে রদ্রি নিজেই ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছাপোষণ করলে এবার আর বাধা দেয়নি অ্যাটলেটিকো। রদ্রি ক্লাব ছাড়ার আগেই তার বদলি হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে মার্কোস ইয়োরেন্তেকে দলে নিয়েছিল ডিয়েগো সিমিওনের দল। ইয়োরেন্তেকে রদ্রির ১৪ নম্বর জার্সি দিয়ে তার বিদায় বলতে গেলে নিশ্চিতই করেছিল অ্যাটলেটিকো।

    সিটিতে যোগ দিতে পেরে যারপরনাই উচ্ছ্বসিত রদ্রি, 'সিটি নিঃসন্দেহে ইংল্যান্ডের সেরা দল। গত দু'বছর তাদের অর্জন দুর্দান্ত। শুধু শিরোপার ক্ষেত্রে নয়, মাঠের খেলাতেও তারা অপ্রতিদ্বন্দ্বী। পেপ গার্দিওলা ছোটবেলা থেকেই আমার আইডল। তার দলে যোগ দিতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি।'

     

     

    রদ্রিকে পেয়ে খুশি সিটিও। স্প্যানিশ মিডফিল্ডারের ব্যাপারে প্রশংসাই ঝরেছে সিটির ডিরেক্টর চিকি বেগিরিস্টেইনের কথায়, 'ইউরোপের অন্যতম সেরা ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারকে দলে নিয়েছি আমরা। বল পায়ে সে দুর্দান্ত একজন ফুটবলার। রক্ষণে সাহায্যের মত আক্রমণেও দারুণ সে। আশা করি আগামী মৌসুমে আমাদের হয়ে নিজেকে চেনাতে পারবে সে।'

    অ্যাটলেটিকোর যুবদলে নিজেকে চিনিয়ে মাত্র ১৯ বছর বয়সে 'লস রোহিব্লাঙ্কোস'দের হয়ে অভিষেক হয়েছিল তার। গত মৌসুমের শুরুতে রিয়ালকে হারিয়ে অ্যাটলেটিকোর হয়ে ইউয়েফা সুপার কাপও জিতেছিলেন তিনি। সিমিওনের দলের হয়ে তিন মৌসুমে ৮৪ ম্যাচ খেলেছিলেন রদ্রি। গত বছর জার্মানির বিপক্ষে এক প্রীতি ম্যাচে স্পেনের হয়ে অভিষেক হয়েছিল তার। 'লা রোহা'দের হয়ে ৬টি ম্যাচ খেলেছেন রদ্রি।

    'নতুন বুস্কেটস' পেলেন গার্দিওলা?
    ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই এন'গোলো কান্তে, সার্জিও বুস্কেটসদের সাথে তুলনা করা হচ্ছিল রদ্রিকে। 'ডিপ লাইং মিডফিল্ডার'দের মধ্যে ইউরোপের অন্যতম সেরা এখন তিনি। অ্যাটলেটিকোর হয়ে খেলা তিন মৌসুমে রক্ষণের ঠিক সামনে 'শিল্ড' হিসেবে খেলে নিজেকে চিনিয়েছেন তিনি। রক্ষণে গোডিনদের যেমন সাহায্য করেছেন, তেমনি আক্রমণে গ্রিযমানদেরও সাহায্য করেছেন। পাসিং অ্যাকুরেসি আর পজিশনাল সেন্সের বুস্কেটসের সঙ্গে তার মিল খুঁজে পাওয়া হয় নিয়মিতই। লা লিগায় গত মৌসুমে সবচেয়ে বেশি ট্যাকেল জিতেছিলেন তিনি। আর এরিয়াল ও পজিশন উইনের ক্ষেত্রে তিনি হয়েছেন দ্বিতীয়।  

    বার্সা ছাড়ার পর থেকেই বুস্কেটসের মত একজন ফুটবলারকে খুঁজছিলেন গার্দিওলা। বুস্কেটস রোলে ফিলিপ লামকেও খেলিয়েছিলেন বায়ার্ন মিউনিখে, সিটিতে খেলিয়েছেন ফার্নান্দিনহোকে। ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারের বয়স হয়ে গেছে ৩৪। ইলকায় গুন্ডোয়ানের সঙ্গে সিটির চুক্তির মেয়াদ আছে আর এক বছর। সেটা নবায়ন করার কথাও শোনা যাচ্ছে না। তাই ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার রোলে নতুন একজনকে দরকারই ছিল সিটির। মূলত রদ্রিকে দলে নেওয়া সিটির। বুস্কেটসকে আক্ষরিক অর্থেই যুবদল থেকে তুলে এনেছিলেন গার্দিওলা। স্প্যানিশ, ডিপ লাইং মিডফিল্ডার- বুস্কেটসের সাথে তুলনা পাওয়ার যথেষ্ট সাদৃশ্যও আছে রদ্রির। এখন অপেক্ষা নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার।