• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    বিশ্বরেকর্ড গড়ে ম্যান ইউনাইটেডে ম্যাগুয়ের

    সব কিছু আগে থেকেই নিশ্চিত হয়ে ছিল। এবার শেষ হলো আনুষ্ঠানিকতাও। লেস্টার সিটি থেকে ৮০ মিলিয়ন ইউরোতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছেন ডিফেন্ডার হ্যারি ম্যাগুয়ের। 

    ম্যাগুয়েরকে আনার জন্য এই মৌসুমের শুরু থেকেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল ইউনাইটেড। গেল সপ্তাহে অনুশীলনে যোগ না দেওয়ার পর সেই গুজবের পালে লেগেছে আরও জোর হাওয়া। গত বছরেই ভার্জিল ফন ডাইককে এনে কোনো ডিফেন্ডারের দলবদলের বিশ্বরেকর্ড গড়েছিল লিভারপুল। ডাইকের জন্য ৭৫ মিলিয়ন পাউন্ড খরচ করেছিল তারা। সেটাই এবার ভেঙে ফেলল ইউনাইটেড। বিশ্বের সবচেয়ে দামী ডিফেন্ডার এখন ম্যাগুয়ের। 



    ম্যাগুয়েরকে কিনতে অবশ্য বেশ অনেকদিন ধরেই আগ্রহ ছিল ইউনাইটেডের। বিশ্বকাপের পরপরই তার ইউনাইটেডে যোগ দেওয়ার জোর গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। সেসময় লেস্টার সিটি ম্যাগুয়েরের জন্য দাবি করেছিল ৭০ মিলিয়ন ইউরো। কিন্তু দাম তখন বাড়াবাড়ি মনে হওয়ায় সেবার আর তাকে দলে ভেড়ায়নি ইউনাইটেড। রক্ষণের পেছনে এই নিয়ে ইউনাইটেডের খরচ দাঁড়ালো ১৩০ মিলিয়ন পাউন্ড। এর আগে অ্যারন ওয়ান বিসাকাকে তারা কিনেছিল ৫০ মিলিয়ন পাউন্ডে।

    ২০১৭ সালে হাল সিটি থেকে লেস্টার সিটিতে যোগ দিয়ে মোট ৬৯ টি ম্যাচ খেলেছেন ম্যাগুয়ের লেস্টার সিটির হয়ে। ফক্সদের হয়ে দারুণ পারফরম্যান্স তার কপাল খুলে দিয়েছিল ইংল্যান্ড জাতীয় দলের হয়েও। গত বিশ্বকাপে দলের অন্যতম বড় ভরসা ছিলেন ডিফেন্সে।

    ইউনাইটেডে সফল হবেন ম্যাগুয়ের?
    ২৬ বছর বয়সী সেন্টারব্যাক প্রিমিয়ার লিগের সেরা না হলেও সেরাদের কাছাকাছি জায়গাতেই থাকবেন। শারীরিক সক্ষমতা দারুণ তার, বাতাসেও ভালো। গত মৌসুমে ফন ডাইকের চেয়েও এরিয়াল ক্লিয়ারেন্সে এগিয়ে ছিলেন তিনি। ৭৮ শতাংশ এরিয়াল জিতেছিলেন তিনি গতবার, যা প্রিমিয়ার লিগে গত মৌসুমে সর্বোচ্চ।

    এই মৌসুমে প্রীতি ম্যাচগুলো বলছে ইউনাইটেড হাই প্রেস করে খেলার ইঙ্গিত দিচ্ছে। সেদিক থেকেও ম্যাগুয়ের দারুণ কার্যকর। তবে তার সবচেয়ে শক্তিশালী দিক নিচ থেকে খেলা বিল্ড আপ করতে পারার দক্ষতা। ইউনাইটেডের রক্ষণে এমন একজন বল প্লেয়িং ডিফেন্ডারের অভাব ছিল এতোদিন। সেটা ভালোভাবেই পূরণ করতে পারার কথা ম্যাগুয়েরের।

    তার দলবদলের টাকার অঙ্কটা বেশ দৃষ্টিকটু মনে হতে পারে অবশ্য। ভার্জিল ফল ডাইক, ম্যাথিয়াস ডি লিটরা পরীক্ষিত হওয়ার পরও এর চেয়ে কম ট্রান্সফার ফি তে দলবদল করেছেন। সেই হিসেবে ম্যাগুয়েরের দামটা বেশিই বলতে হবে। তবে ইউনাইটেডের বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষাপটে আর কোনো উপায়ও ছিল না হয়ত। গত কয়েক মৌসুমে ইউনাইটেডকে সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছে তাদের রক্ষণ। ফার্ডিনান্ড-ভিদিচদের আমল শেষ হওয়ার পর আর সেভাবে কখনই শক্ত কোনো ডিফেন্সিভ জুটি দাঁড় করাতে পারেনি ইউনাইটেড। এবার সে স্বপ্ন দেখতেই পারে তারা। ইংলিশ ডিফেন্ডার হওয়ায় তার ব্যাপারে ইউনাইটেডের ঝোঁকটাও ছিল একটু বেশি। আর চ্যাম্পিয়নস লিগে বাছাই করতে না পারায় বিশ্বসেরা ডিফেন্ডার দলে ভেড়ানোর দৌড়ে কিছুটা পিছিয়ে পড়তে হয়েছিল ইউনাইটেডকে। লেস্টার সিটিও দলবদলের চড়া দাম দাবি করে বসায় সবমিলিয়ে একরকম বাধ্য হয়েই এতো দামে তাই ম্যাগুয়েরকে কিনতে হলো রেড ডেভিলদের।   

    ম্যাগুয়ের খেলেন সাধারণত লেফট সেন্টারব্যাক পজিশনে। থ্রি ম্যান বা কনভেনশাল ফোর ম্যান ব্যাকলাইন-দুই ফর্মেশনেই সাবলীল তিনি। নিজদের কর্নারের সময় প্রতিপক্ষের ডিবক্সের ভেতরও যথেষ্ট ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠেন। আর বয়স যেহেতু কম, তাই ইউনাইটেডও তার কাছ থেকে লম্বা সময়ের জন্য সার্ভিস চাইতেই পারে।