• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    নিজের জালে হ্যাটট্রিকের পর আব্রাহামের প্রতিপক্ষের জালেও গোল

    ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড জয় পেয়েছে কোনোমতে, ১-০ ব্যবধানে হারিয়েছে লেস্টার সিটিকে। টটেনহাম চার গোল দিয়েছে ক্রিস্টাল প্যালেসকে। তবে আজকের সেরা চমক সম্ভবত উলভসের মাঠে এসে চেলসির পাঁচ গোল দেওয়া। ট্যামি আব্রাহাম হ্যাটট্রিক করেছেন, অবশ্য পরে একটা আত্মঘাতী গোলও দিয়েছেন।  

    চেলসির প্রথম একাদশে তার থাকা নিয়ে মৌসুম শুরুর আগে হয়তো সংশয়ে ছিলেন কেউ কেউ। হ্যাজার্ড চলে যাওয়ায় চেলসির তো একটা শুন্যতা ছিলই। তবে আব্রাহাম এখন পর্যন্ত সেই অভাবটা বুঝতে দিচ্ছেন না। শুরুটা অবশ্য করেছেন আরেক তরুণ ফিকায়ো তোমোরি, ৩১ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে দারুণ এক শটে এগিয়ে নিয়েছেন চেলসিকে। তিন মিনিট পরে আব্রাহাম পেয়ে যান নিজের প্রথম গোল। ৪১ মিনিটে হেড করে নিজের দ্বিতীয় গোল পেয়ে যান আব্রাহাম, প্রথমার্ধ শেষ হয় ৩-০ গোলে।

    প্রথমার্ধ যেখানে শেষ করেছিল, দ্বিতীয়ার্ধ সেখান থেকে শুরু করল চেলসি আব্রাহামও। ৫৫ মিনিটে হেড করে গোল দিয়ে পেয়ে যান হ্যাটট্রিক আগুয়েরোকে ছাড়িয়ে প্রিমিয়ার লিগের সর্বোচ্চ সাত গোলও হয়ে গেছে তার। তবে আব্রাহামের গোল সেখানেই শেষ নয়, ৬৯ মিনিটে আবারও করলেন। সেটি অবশ্য নিজের জালে। প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে হ্যাটট্রিকের সঙ্গে আত্মঘাতী গোল নেই আর কোনো স্ট্রাইকারের। ৮৫ মিনিটে প্যাট্রিক কট্রোনের গোলে ব্যবধান কমায় উলভস। কিন্তু ম্যাসন মাউন্ট একদম অন্তিম মুহূর্তে আরেকটি গোল করে স্কোরলাইনটা করেন ৫-২।

     

    ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জন্য অবশ্য জয়টা এতো সহজে আসেনি। এই মৌসুমটা একদমই ভালো যাচ্ছে না ওলে গানার সোলশারের। প্রথম চার ম্যাচের তিনটিতেই হারাতে হয়েছে পয়েন্ট। তার ওপর আজ ছিলেন না পগবা, মার্শিয়াল। ওল্ড ট্রাফোর্ডে প্রতিপক্ষ লেস্টার সিটির সঙ্গে স্বস্তিতে থাকার সুযোগ ছিল না কোনো। তবে সেটি শুরুতেই পেয়ে যায়, ৮ মিনিটে রাশফোর্ডকে পেনাল্টি বক্সের ভেতর ফেলে দেন কাগলার সোয়ুনচো। পেনাল্টি নিয়ে এই মৌসুমে ইউনাইটেড কম ভোগেনি। তবে আজ আর ভুল করলেন না রাশফোর্ড। এরপর ডেভিড ডি গিয়াকে কয়েকবার পরীক্ষা নিয়েছে লেস্টার, তবে প্রথমার্ধে আর কোনো বিপদ হতে দেননি।

     

     

    দ্বিতীয়ার্ধে মাতা সুযোগ পেয়েছিলেন, কিন্তু কাসপার স্মেইকেল ব্যবধান বাড়াতে দেননি। রাশফোর্ডও আরেকটি গোল পেতে পারতেন, কিন্তু তার ফ্রিকিক পোস্টে লেগে চলে যায় বাইরে। ওই এক গোলেই তাই জিতেছে ইউনাইটেড। পাঁচ ম্যাচে আট পয়েন্ট হলো ইউনাইটেডের, চেলসিরই ঠিক তাই। তবে গোল ব্যবধানে এগিয়ে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ইউনাইটেড ছিল চারে।

     

    টটেনহামেরও পাঁচ ম্যাচে আট পয়েন্টই, তবে আজকের জয়ে বাড়িয়ে নিয়েছে গোল ব্যবধান। ১০ মিনিটে সন হিউং মিনের গোলে শুরু স্পারসের গোল উৎসবের। ২১ মিনিটে প্যাট্রিক ফন আর্নহল্ট আত্মঘাতী গোল করে ব্যবধান বাড়ান। ২৩ মিনিটে সনের আরেকটি গোল। এরপর ৪২ মিনিটে এরিক লামেলা গোল করে প্রথমার্ধেই এক হালি গোল এনে দেন দলকে। কিন্তু ওই পর্যন্তই, দ্বিতীয়ার্ধে আর কোনো গোল হয়নি ম্যাচে।