• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    ইতিহাদে উলভসের থাবায় আহত সিটি

    প্রিমিয়ার লিগ 
    ফলাফল ম্যানচেস্টার সিটি ০-২ উলভসোলা


    গোলশূন্য ম্যাচে ঘরের মাঠে গোলের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল ম্যানচেস্টার সিটি। কাউন্টার অ্যাটাকে গোল খাওয়ার সম্ভাবনাও ছিল তাই। সেটাই হয়েছে, শেষ দশ মিনিটে উলভসের কাছে দুই গোল হজম করে ঘরের মাঠ ইতিহাদে হেরে গেছে পেপ গার্দিওলার দল।

    উলভসের থাবায় সিটি কতোখানি আহত হয়েছে সেটা বোঝা যাবে পয়েন্ট টেবিলের দিকে তাকালে। মৌসুমের দ্বিতীয় হারে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে লিভারপুলের চেয়ে এরই মধ্যে ৮ পয়েন্টে পিছিয়ে গেছে সিটি। আর টানা ৮ জয়ে লিভারপুল উড়ছেই। 

    ঘরের মাঠে শেষ ৪৪ ম্যাচে সিটি গোল করতে ব্যর্থ হয়েছিল মাত্র একবার। মোট গোল ১৪২টি। কিন্তু এদিন কাজে লাগেনি কিছুই। প্রথমার্ধে উলভস ছিল উজ্জ্বল। অন্তত তিনটি গোলের সুযোগ পেয়েছিল তারা। কিন্তু সেসব কাজে লাগাতে না পারায় আফসোস নিয়ে বিরতিতে যেতে হয়েছিল উলভসকে।

    সিটির হয়ে ছিলেন না কেভিন ডি ব্রুইন। প্রথমার্ধটা সিটির কেটেছে হতাশায়। দ্বিতীয়ার্ধে ঘরের মাঠে অবধারিতভাবেই উন্নতি করার কথা ছিল পেপ গার্দিওলার দলের। উন্নতি হয়েছিলও বটে। কিন্তু অ্যাটাকিং থার্ডে অসাধারণ কিছু করা হচ্ছিল না সার্জিও আগুয়েরোদের। গোলের সবচেয়ে কাছে গিয়েছিলেন ডেভিড সিলভা। বক্সের বাইরে মাঝামাঝি জায়গা থেকে সিলভার নেওয়া ফ্রি-কিক গিয়ে লাগে বারপোস্টে।

    উলভস বক্সের ভেতর ভিড় বাড়িয়ে সিটির কাজটা আরও কঠিন করে রেখেছিল দ্বিতীয়ার্ধে। বদলি গ্যাব্রিয়েল হেসুস নেমেও কিছু করতে পারেননি। হেসুস নামার ৫ মিনিট পরেই কপাল পোড়ে সিটির। হোয়াও ক্যান্সেলো ভুল করেছিলেন উলভসের বক্সের মাথায়। রাউল হিমেনেজ বল নিয়ে এরপর দিয়েছেন ভোঁ দৌড়। সামনে ছিলেন নিকোলাস অটামেন্ডি। সিটির আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডারকে এক ঝটকায় আছড়ে ফেলে হিমেনেজ এগিয়ে গিয়েছিলেন সামনের দিকে। ততোক্ষণে আদামা ত্রায়োরে হয়ে গিয়েছিলেন ফাঁকা। নিচু শটে গোল করে ত্রায়োরে এগিয়ে নিয়ে যান উলভসকে। 

    দ্বিতীয় গোলটিও একই ঢঙে খেয়েছে সিটি। একেবারে ম্যাচের শেষদিকে। তখন ম্যাচ বাঁচাতে উঠে পড়ে লেগেছিল সিটি। সেই হিমেনেজ আর ত্রায়োরে জুটিই আবার কাউন্টার অ্যাটাকে গোল পাইয়ে দেন উলভসকে।  

    তিন দিন আগে তুরস্কে বেসিকতাসকে হারিয়ে  এসেছিল উলভস। এরপর ইতিহাদে তারা হারাল সিটিকে। গার্দিওলার সিটির জন্য এমন কিছু নতুনই। ঘরের মাঠে কোনো গোল না করে এর আগে হারেননি সিটির গার্দিওলা।