• বাংলাদেশের ভারত সফর
  • " />

     

    ভারতেও সাকিবদের মতো ক্রিকেটারদের ঐক্য চান যুবরাজ

    বিসিবিকে দেওয়া বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ১৩ দফা প্রস্তাবের অন্যতম ছিল শক্তিশালী ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন গঠন। সাকিব-তামিমদের মতো ভারতের ক্রিকেটারদেরও একতাবদ্ধ হতে বললেন সাবেক অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং। মুম্বাইয়ের একটি অনুষ্ঠানে পিটিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে যুবরাজ বলেছেন, ক্রিকেটারদের নিজেদের দাবি আদায়ের জন্যই ভারতে শক্তিশালী ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন গঠনের সময় এসেছে। 

    ভারতে নেই কোনো ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন। গত জুলাইয়ে অবশ্য বিসিসিআই অবসর নেওয়া পুরুষ ও নারী ক্রিকেটারদের কল্যাণে কাজের জন্য একটি অ্যাসোসিয়েশনের অনুমোদন দিয়েছিল। প্রাথমিকভাবে এই অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালক করা হয়েছিল কপিল দেব, শান্ত রানগোস্বামী ও অজিত আগারকারকে। 

    অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল যেভাবে স্বেচ্ছায় ক্রিকেট থেকে বিরতি নেওয়ার সাহস দেখিয়েছেন, ভারতের ক্রিকেটাররাও যেন এমনটা করতে পারেন সেজন্য ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন গড়ার দাবি যুবরাজের, ‘বাইরের দেশের অনেক ক্রিকেটারই নিজেদের সমস্যার কারণে খেলা থেকে বিরতি নেয়, যেমনটা ম্যাক্সওয়েল নিয়েছে। ভারতের কেউ এমনটা করার সাহস দেখায় না, কারণে দলে নিজের জায়গা নিয়ে সে দুশ্চিন্তায় থাকে। আমি চাই ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন গঠন হোক, এতে ক্রিকেটারদের বার্তা সবার কাছে পৌঁছাতে পারবে। এটা তো অন্য দেশেও আছে। এরকম অনেক সময় গেছে যখন আমরা খেলতে চাইনি কিন্তু আমাদের খেলতে বলা হয়েছে। চাপ নিয়েই আমাদের খেলে যেতে হয়েছে।’  

    ক্রিকেটাররা যেন নিজেদের ভালো-মন্দের সিদ্ধান্ত নিজেরাই নিতে পারে, এজন্য বর্তমান ক্রিকেটারদের এক হওয়ার আহবান যুবরাজের, ‘ক্রিকেটারদের ওপর থেকে এই চাপটা দূর করতে হবে। বর্তমানে যারা খেলতে তাদের সাহায্য করাটা আরও বেশি দরকার। এখন যারা খেলছে, তাদের মাঝে থেকেই কাউকে এগিয়ে আসতে হবে এই অ্যাসোসিয়েশন গড়ার ব্যাপারে। জানি না সেই ব্যক্তিটা কে হবে, সেটা ক্রিকেটারদের মাঝে থেকে কাউকে দেখতে চাই। শুধু অধিনায়ক কিংবা সহ-অধিনায়ক না, সবার মতামতই উঠে আসা উচিত।’ 

    যুবরাজের এক সময়ের অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি এখন ভারতের ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান। সৌরভের অধীনে সবাই অনেক বেশি স্বাধীনতা পাবে বলেই বিশ্বাস যুবরাজের, ‘একজন ক্রিকেটারের দৃষ্টিভঙ্গি ও প্রশাসনিক কর্মকর্তার দৃষ্টিভঙ্গি পুরোপুরি ভিন্ন হবে। যিনি দীর্ঘ সময় অধিনায়ক ছিলেন, ক্রিকেটারদের ব্যাপারগুলো বুঝেন, তিনি সবার দাবিগুলো শুনবেন। এটা আগে কখনো হয়নি। আগের কর্তৃপক্ষ নিজেদের সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিয়েছে। ক্রিকেটাররা কী চাইছে সেটা সৌরভ শুনবেন।’