• বাংলাদেশের ভারত সফর
  • " />

     

    জন্মদিনে 'চিকুর' কাছে কোহলির খোলা চিঠি

    ৩১তম জন্মদিনে শুভেচ্ছায় ভাসছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সব শ্রেণি পেশার মানুষের থেকেই জন্মদিনের শুভেচ্ছা বার্তা পেয়েছেন তিনি। এসবের মাঝে কোহলি নিজেকে নিজেই দিয়েছেন এক শুভেচ্ছা বার্তা। টুইটারে ১৫ বছর বয়সী কোহলিকে লেখা এক চিঠিতে কোহলি তুলে ধরেছেন নিজের জীবনের বিভিন্ন মোড়ে পাওয়া শিক্ষাগুলো। 

    টুইটারে নিজের প্রোফাইলে আজ সকালে খোলা চিঠিটি পোস্ট করেছেন কোহলি। ছবির ক্যাপশনে লেখা ছিল, ‘নিজের জীবনে চলার পথে যে শিক্ষাগুলো অর্জন করেছি সেটা ১৫ বছর বয়সী কোহলির কাছে লিখছি। লেখার চেষ্টা করেছি আর কি!’ 

    নিজের কাছে কোহলির লেখা খোলা চিঠি 

     

    চিঠির প্রথম অংশে কোহলি লিখেছেন, ‘হাই চিকু। প্রথমেই জন্মদিনের শুভেচ্ছা। আমি জানি নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে আমার কাছে তোমার অনেক প্রশ্ন আছে। আমি দুঃখিত, ওসবের বেশি কিছুর জবাব আমি দেবো না। কারণ অজানা ব্যাপারগুলোতে পাওয়া চমক সবসময় মধুর হয়, সব চ্যালেঞ্জ রোমাঞ্চকর হয়, সব হতাশা শিক্ষা নেওয়ার সুযোগ হয়ে ওঠে। এখন তুমি এটা অনুধাবন করতে পারবে না। তোমার লক্ষ্যের চেয়ে যাত্রাটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ এবং সেটা অবশ্যই দারুণ।’ 

    কোহলি আরও লিখেছেন, ‘আমি তোমাকে বলতে চাই; ভিরাট তোমার জন্য ভবিষ্যতে অনেক বড় কিছুই অপেক্ষা করছে। কিন্তু সেসবের জন্য তোমাকে অপেক্ষা করতে হবে। যখন সুযোগ আসবে সেটাকে কাজে লাগাতে হবে। সুযোগকে লুফে নাও, কারণ কোনোকিছুই চিরস্থায়ী না। তুমি অনেক সময় ব্যর্থ হবে, সবাই হয়। শুধু আমাকে প্রতিজ্ঞা করো তুমি সেই ব্যর্থতা থেকে উঠে দাঁড়াবে। এটার জন্য বারবার চেষ্টাও করবে। তোমাকে অনেকে পছন্দ করবে, অনেকে করবে না। এদের মাঝে অনেকে তোমাকে চিনবেও না। তাদের নিয়ে মাথা ঘামিও না। নিজের ওপরে বিশ্বাস রাখো।’

    চিঠির শেষভাগে কোহলি লিখেছেন, ‘আমি জানি তুমি এখন সেই জুতার কথা ভাবছ যা বাবা তোমাকে দেয়নি, কিন্তু যখন বাবা তোমাকে সকালে এসে জড়িয়ে ধরবে কিংবা তোমার উচ্চতা নিয়ে মজা করবে, সেটার তুলনায় এই জুতা কিছুই না। এটাকে উপভোগ করো। অনেক সময় মনে হতে পারে তিনি খুব কঠোর একজন মানুষ। কিন্তু তিনি সবসময় তোমার ভালোই চান। তোমার হয়তো মনে হতে পারে মা-বাবা তোমাকে বুঝতেই পারে না। তবে মনে রাখবে, শুধু তোমার পরিবারই তোমাকে নিঃস্বার্থভাবে ভালোবাসে। সেই ভালোবাসাটা তাদের ফিরিয়ে দাও। যতক্ষণ পারো তাদের সাথে সময় কাটাও। বাবাকে বলো তুমি তাকে অনেক ভালোবাসো। আজকেই সেটা বলো, কালও বলো, বারবার বলো।’ 

    কোহলি নিজের চিঠিটা শেষ করেন এভাবেই, ‘শেষে আমি একটা কথা বলতে চাই। নিজের স্বপ্নের পেছনে ছোটো, হৃদয়ের কথা শোনো। দয়ালু হও ও বিশ্বকে দেখিয়ে দাও, স্বপ্ন দেখাই সবকিছু বদলে দিতে পারে। নিজের স্বকীয়তা ধরে রাখো। আর যে পরোটাগুলো খাচ্ছো সেগুলোর মজা নিয়ে নাও। সামনের দিনগুলোতে সেগুলো বিলাসিতা হয়ে দাঁড়াবে!’