• বাংলাদেশের ভারত সফর
  • " />

     

    নেট সেশন : ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কার মাঝে বাংলাদেশের প্রথম 'ম্যাচ পয়েন্ট'

    টি-টোয়েন্টি সিরিজ, ২য় ম্যাচ
    ভারত-বাংলাদেশ

    কবে, কখন
    ৭ নভেম্বর, ২০১৯ 
    বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭.৩০ (১৯৩০)


    ঠিক ‘ওয়াইল্ড-কার্ড’ পেয়ে গ্র্যান্ড স্লাম খেলতে আসা খেলোয়াড় না হলেও টি-টোয়েন্টিতে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ ‘শীর্ষ বাছাই’দের একজন নয় কখনোই। সেই তারাই প্রথম ‘সেট’ জিতে এগিয়ে গেছে, দ্বিতীয়টি জিতলে ‘গেম’টাও তাদের। সেই দারুণ কীর্তির হাতছানিটাই অবশ্য হয়ে যেতে পারে চাপ, যে চাপে গুবলেট পাকিয়ে যেতে পারে যে কোনও সময়। আবার ভারতের মতো ‘শীর্ষ বাছাই’ দলের সবসময় ঘুরে দাঁড়ানোর আত্মবিশ্বাসেও ঘাটতি পড়ার কথা নয়। তবে স্কোরলাইন যখন ০-১, তখন তো চাপকে সরিয়ে রাখতে চাইলেও উঁকি দিতেই পারে তাদের জন্য। 

    টি-টোয়েন্টি সিরিজে এক ম্যাচ পর পরিস্থিতি এমনই। দিল্লীর ‘দূষিত’ বায়ু পেরিয়ে বাংলাদেশ রাজকোট গিয়ে পড়েছে ‘মাহা’ নামের ঘূর্ণিঝড়ের কবলে। অবশ্য সে আরব সাগর থেকে আসা সে ঘূর্ণিঝড়ের গুজরাটসহ ভারতের কয়েক জায়গায় আঘাত করার সম্ভাব্য সময় বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল। তবে সেটি দূর্বল হয়ে তৈরি করতে পারে শুধুই নিম্নচাপ, আর নিম্নচাপের কারণে হতে পারে প্রবল বৃষ্টিপাত। দিল্লীর মতো রাজকোটের ম্যাচ নিয়েও তাই রয়েছে সংশয়। 

    মাঠের খেলায় অবশ্য নিজেদের সামর্থ্য নিয়ে সংশয় থাকার কথা নয় বাংলাদেশের। পিচকে দারুণভাবে পড়ে সে অনুযায়ী বোলিং, এবং রানতাড়ায় শেষ পর্যন্ত হাল না ছাড়ার কৌশলটা প্রথম ম্যাচে কাজে দিয়েছে বাংলাদেশের। শেষদিকে ‘১০-১৫ রান বেশি দিয়ে ফেললেও’ মুশফিকুর রহিমের দারুণ ইনিংসে ভারতকে টপকে গিয়েছিল বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে তাদেরকে আটকাতে তাই যুঝভেন্দ্র চাহাল ছাড়াও অন্য কোনও অস্ত্রের সহায়তা বেশি করে প্রয়োজন পড়বে ভারতের। 

    মাহমুদউল্লাহর নেতৃত্বের বাংলাদেশ যখন আত্মবিশ্বাসে ভরপুর, রোহিত শর্মার ভারত তাই আশ্রয় নিতে পারে নতুন কৌশলের। ভারতকে বাংলাদেশ শুধু ‘চমকে’ দিতে পারে তা নয়, বরং যে ‘হারিয়ে’ দিতে পারে- রোহিতের এমন কথাই যেন সত্যি হয়েছে দিল্লীতে। নিজের বলা কথার বিপরীতেই তাই সিরিজ হারের সম্ভাবনা কাঁধে নিয়ে রাজকোটে নামতে হবে রোহিত ও তার দলকে। 

    ১-০ সেটে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ পারবে এক সেট বাকি রেখেই ম্যাচ পয়েন্ট পেতে? নাকি ম্যাচটা তৃতীয় সেটে নিয়ে যাবে ভারত? 

    রাজকোটে ‘মাহা’র আগমনের সঙ্গে এখন সে প্রশ্নের উত্তর খোঁজার অপেক্ষাও। 


    রঙ্গমঞ্চ
    সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, রাজকোট 

    ভারতের ক্রিকেটে রাজকোট বলতে এখন ‘চে’ বা চেতেশ্বর পুজারার শহর। এ মাঠে এখন পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি হয়েছে দুটি, ২০১৩ সালের পর ২০১৭ সালে আরেকটি। একটিতে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে ভারত, আরেকটিতে হেরেছে নিউজিল্যান্ডের কাছে। অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ভারত জিতেছিল ২০১ রান তাড়া করে, ৪ ইনিংসে গড়ে এখানে রান হয়েছে ১৮৮.৭৫ করে। ম্যাচ ঠিকঠাক হলে একটা রান-উৎসবের আশা করতেই পারেন আপনি। 


    যাদের ওপর চোখ

    আমিনুল ইসলাম বিপ্লব

    লেগস্পিনার নিয়ে হাহাকারটা কম দিন ধরে করছে না বাংলাদেশ। মাত্র ২ ম্যাচ খেললেও সে হাহাকারের বেগটা একটু কমিয়ে দিতে পেরেছেন বিপ্লব। প্রথম ম্যাচে শ্রেয়াস আইয়ারের ব্যাটে পরপর দুই ওভারে দুটি ছয়ের শিকার হলেও প্রতিশোধ নিয়েছিলেন বিপ্লব, ম্যাচে করেছেন দারুণ বোলিং। রাজকোটের উইকেট শেষ পর্যন্ত রান-প্রসবা হলে চ্যালেঞ্জটা আরও বেড়ে যাতে পারে এই তরুণ স্পিনারের।  

    যুঝভেন্দ্র চাহাল

    বিপ্লব একেবারেই নতুন, তবে চাহাল ভারতের সীমিত ওভারে বেশ নিয়মিত মুখ চাহাল। দিল্লীতে অবশ্য খেলতে নেমেছিলেন একটা বিরতির পর। ৮ম ও ১০ম ওভারে ১ রান করে দিয়ে মাঝের ওভারের চাপটা বাংলাদেশের ওপর কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছিলেন তিনি। অন্যদিক থেকে ঠিক সমর্থন পাননি, ম্যাচটাও তাই বের করে নিয়ে যেতে পারেননি শেষ পর্যন্ত। রাজকোটে তেমন কোনও ঝলক দেখাতে পারবেন? 


    সম্ভাব্য একাদশ

    তিন পেসার, একজন লেগস্পিনারের সঙ্গে পঞ্চম বোলারে বেশ কয়েকজন ‘মিনি-অলরাউন্ডার’ নিয়ে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচে। উইনিং কম্বিনেশন ভাঙার খুব একটা কারণ নেই তাদের।  

    বাংলাদেশ 

    লিটন দাস, নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), মোসাদ্দেক হোসেন, আফিফ হোসেন, আমিনুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, আল-আমিন হোসেন

    ডেথ ওভারে খলিল আহমেদের ওপর ভরসা করেছিলেন রোহিত, সেটির প্রতিদান খুব একটা দিতে পারেননি তিনি। শারদুল ঠাকুরকে তাই জায়গা করে দিতে হতে পারে খলিলের। লোকেশ রাহুলের বদলে মনীশ পান্ডে বা সানজু স্যামসনকেও বাজিয়ে দেখতে পারে ভারত। আর শিভাম দুবের বোলিংকে কাজে লাগানোর কথা ভেবে তাকে একাদশে রেখে দেওয়া হবে কিনা, প্রশ্ন সেটিও।  

    ভারত

    রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, সানজু স্যামসন/লোকেশ রাহুল/মনীশ পান্ডে, শ্রেয়াস আইয়ার, ঋশাভ পান্ট (উইকেটকিপার), শিভাম দুবে, ক্রুনাল পান্ডিয়া, ওয়াশিংটন সুন্দর, যুঝভেন্দ্র চাহাল, দীপক চাহার, শারদুল ঠাকুর


    সংখ্যার খেলা 

    • ৫- এখন পর্যন্ত ৫টি দ্বিপক্ষীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ, ২৮টি খেলে
    • ৮- টানা ৮ ম্যাচ হারার পর ভারতকে টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবার হারিয়েছে বাংলাদেশ


    তারা বলেন 

    “শুরু থেকেই আমাদের হারানোর কিছু ছিল না এ সিরিজে। সবকিছুই পাওয়ার সুযোগ ছিল, বৃহস্পতিবার এমন আরেকটি সুযোগ আমাদের। সিরিজ জয় অবশ্যই আমাদের জন্য ‘বুস্ট’ হবে।”

    মাহমুদউল্লাহ, বাংলাদেশ অধিনায়ক

    “আমরা ইতিবাচকই আছি। সিরিজে প্রথম ম্যাচ হেরেও পরে সিরিজ জেতার ঘটনা তো আমাদের জন্য নতুন না। প্রথম ম্যাচটা হয়ে গেছে, সেটা নিয়ে ভাবলে মনের মাঝে নেতিবাচক চিন্তা আসবে। রাজকোটে আসার আগে আমরা আগের ম্যাচের হার ভুলে গেছি। দ্বিতীয় ম্যাচের জন্য আমরা নতুনভাবে শুরু করতে চাই।” 

    যুঝভেন্দ্র চাহাল, ভারত