• " />

     

    জিম্বাবুয়ের উৎসবে জল ঢাললেন কুসাল মেন্ডিস

    ২য় টেস্ট
    জিম্বাবুয়ে ৪০৬ ও ২৪৭/৭
    শ্রীলঙ্কা ২৯৩ ও ২০৪/৩
    ম্যাচ ড্র, শ্রীলঙ্কা ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জয়ী  


    ২০১৩ সালে শেষ দেশের মাটিতে টেস্ট জিতেছিল জিম্বাবুয়ে, ৭ বছরের অপেক্ষা শেষ করতে শেষদিন তাদের প্রয়োজন ছিল ১০ উইকেট। আর শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ছিল সারাদিন ব্যাট করা। কুসাল মেন্ডিসের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কা তাদের কাজটি করে ফেলেছে, ৩ উইকেটের বেশি নেওয়া হয়নি ২য় ইনিংসে জিম্বাবুয়ের। হারারেতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে সুযোগ তৈরি করেও ঠিক শ্রীলঙ্কাকে বাগে আনতে পারেনি স্বাগতিকরা, এ টেস্ট ড্রয়ের ফলে ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে গেছে সফরকারীরা। 

    আগেরদিন বৃষ্টি এসে থামিয়ে দিয়েছিল খেলা, এদিন জিম্বাবুয়ে ব্যাটিং করেছে শুধু ১ বল। এরপরই শ্রীলঙ্কাকে ৩৬১ রানের লক্ষ্য দিয়ে ইনিংস ঘোষণা করে দিয়েছিলেন শেন উইলিয়ামস। প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেট নেওয়া সিকান্দার রাজাকে দিয়েই বোলিং ওপেন করিয়েছেন তিনি, তবে প্রথম ব্রেকথ্রু পেতে তাদের অপেক্ষা করতে হয়েছে ১৪তম ওভার পর্যন্ত। 

    কার্ল মুম্বার বলে খোঁচা দিয়ে ফিরেছেন শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে, ওশাদা ফার্নান্ডোর সঙ্গে তার জুটি টিকেছিল ৪৮ মিনিট। লাঞ্চের আগে আর উইকেট হারায়নি শ্রীলঙ্কা, মেন্ডিস-ফার্নান্ডোর জুটি অবিচ্ছিন্ন ছিল ৭৯ রানে। অবশ্য বিরতির পরপরই সে জুটি ভেঙেছেন রাজা, ঝুলিয়ে দেওয়া বলটা সোজা হয়েছিল তার, তাতেই এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন ফার্নান্ডো, ১০৮ বলে ৪৭ রান করে। 

    তবে ঠিক শ্রীলঙ্কাকে এরপরও চেপে ধরা হয়নি জিম্বাবুয়ের। মেন্ডিস ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস তাদের জুটিতে প্রায় ২৩ ওভার ব্যাটিং করে তুলেছিলেন মাত্র ৩৩ রান। ততক্ষণে রান নামের চলকটি সমীকরণ থেকে বাদ পড়ে গেছে হারারে টেস্টের। 

    ভিক্টোর নায়াউইচির বলে মিড-অনে ধরা পড়ে ম্যাথিউস ফেরার সময়ে একটু রোমাঞ্চ জেগেছিল হয়তো জিম্বাবুয়ের, তবে চান্ডিমাল এসে ম্যাথিউসের ভূমিকাটাই পালন করেছেন ঠিকঠাক। শেষ সেশনে জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ৭ উইকেট, আর সেঞ্চুরি থেকে ২০ রান দূরে ছিলেন মেন্ডিস। 

    এরপর আর উইকেট হারায়নি শ্রীলঙ্কা, ১৯৩ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর মেন্ডিস অপরাজিত ছিলেন ১১৬ রানে, ২৩৩ বল খেলে। তার সঙ্গী চান্ডিমাল অপরাজিত ছিলেন ১৩ রানে, প্রায় ১ ঘন্টা ৪২ মিনিট ব্যাটিংয়ের পর। 

    প্রথম টেস্টে শেষদিনে গিয়ে হারের পর এ টেস্টে তাই জিম্বাবুয়ে দেখালো আরও ভাল এক লড়াই। শেন উইলিয়ামসের সেঞ্চুরি, ব্রেন্ডন টেইলরের ফিফটিতে প্রথম ইনিংসে ৪০৬ রান তুলেছিল তারা, জবাবে রাজার ৭ উইকেটে শ্রীলঙ্কাকে তারা অল-আউট করে দিয়েছিল ২৯৩ রানে। ২য় ইনিংসে টেইলর-উইলিয়ামসের ফিফটিতে শ্রীলঙ্কাকে চেপে ধরতে পেরেছিল তারা, তবে মেন্ডিস ঠিক উৎসবটা করতে দেননি তাদের। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন