• " />

     

    বেন স্টোকস, (ভার্চুয়াল) ফর্মুলা ওয়ান, এবং 'অংশগ্রহণই বড়'

    ইংল্যান্ডের হয়ে বিশ্বকাপ জিতেছেন, হেডিংলিতে ঢুকে গেছেন রূপকথায়। বিবিসির স্পোর্টস পারসন অফ দ্য ইয়ারও হয়েছিলেন। তবে ব্যাপারটা যখন ফর্মুলা ওয়ানের গ্রাঁ প্রিঁ, তখন বেন স্টোকসের কাছে তা হয়ে উঠেছে ‘অংশগ্রহণই বড় কথা’। অবশ্য স্টোকস ফর্মুলা ওয়ান রেসিংয়ে নামেননি, করোনাভাইরাস মহামারির হুমকি কাটিয়ে সার্কিটে ফেরেনি এফওয়ানও। এসব ঘটেছে ভার্চুয়ালি, ইস্পোর্টসে এফওয়ান২০১৯ গেমে। 

    একের পর এক রেস বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর ভার্চুয়াল গ্রাঁ প্রিঁর আয়োজন করছে ফর্মুলা ওয়ান। তারই ধারাবাহিকতাই ভিয়েতনাম গ্রাঁ প্রিঁর আদলে হয়েছে এই রেস। অবশ্য ২০১৯ ভার্শনের গেমে ভিয়েতনাম সার্কিট না থাকায় এটি হয়েছে মেলবোর্নের অ্যালবার্ট পার্কে। যেটি শেষ পর্যন্ত জিতেছেন ফেরারির ড্রাইভার চার্লস লেকলেয়া, মোনাকোর নিজ বাসা থেকে খেলেছেন যিনি। শেষ পর্যন্ত টিকে থাকা ১৮ জন রেসারের মাঝে স্টোকস হয়েছেন সর্বশেষ। 
     


    বাস্তবে গ্রাঁ প্রিঁ যখন বন্ধ, তখন আপাতত ভার্চুয়াল ইস্পোর্টসের রেসেই কাজ চালাচ্ছে ফর্মুলায় ওয়ান। নিয়মিত ড্রাইভারের সঙ্গে সাবেকরা, অন্য খেলার তারকাদের সঙ্গে ইউটিউবার বা এমন তারকাদেরও যুক্ত করা হচ্ছে এখানে। রেডবুলের সঙ্গে বেশ অনেকদিন ধরেই যুক্ত থাকা স্টোকসও তাই অংশ নিয়েছেন ‘ফর্মুলা ওয়ান’-এর গ্রাঁ প্রিঁতে। 

    যুক্তরাজ্যের জর্জ রাসেল এ রেসে তৃতীয় হয়েছেন। অন্য ড্রাইভারদের মধ্যে ছিলেন রেড বুলের অ্যালেক্স অ্যালবন, আলফা রোমিওর অ্যান্তোনিও গিওভিনাজ্জি, ২০০৯ সালের এফওয়ানের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ম্যাকলারেনের জেনসন বাটন। 

    ভার্চুয়াল বলে এই রেসে সব কারের ‘সামর্থ্য’ ছিল একই, মানে ফেরারি বা মার্সিডিসের মাঝে কার্যত রেস-ট্র্যাকে পার্থক্য ছিল না কোনো। এ রেসে অংশ নিতে বেশ কিছুদিন ধরে অনুশীলন করেছেন ড্রাইভাররা। নিজের অনুশীলনের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়েছিলেন স্টোকসও। 

    রেস শেষের পর এই ব্রডকাস্টিংয়ে যুক্ত হয়েছিলেন স্টোকস, তবে তার কথা শোনা যায়নি। অবশ্য তার এক আঙুল দেখানোর অর্থ প্রেজেন্টার করেছেন এভাবে, “স্টোকস বুঝাচ্ছেন তিনি এক নম্বর হয়েছেন”। 

    তবে সবকিছুর পর স্টোকসের টুইটই আদতে বলে দেয় সব, “অংশগ্রহণের ব্যাপারটিই গণ্য করা হয়। আমি আমার বাচ্চাদের সবসময় এটিই বলি।”