• বাংলাদেশের বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
  • " />

     

    ফিফার কাছ থেকে দ্বিতীয় দফায় ক্ষতিপূরণ পেলেন বাংলাদেশ ফুটবলার

    গত বছর আফগানিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাছাইয়ের ম্যাচের আগে চোটে পড়েছিলেন মাশুক মিয়া জনি। এরপর হাঁটুর অপারেশন শেষে এখনও চলছে তার মাঠে ফেরার লড়াই। নিয়ম অনুযায়ী ফিফার ম্যাচে ইনজুরি পড়লে জাতীয় দলের ফুটবলাররা ক্ষতিপূরণ পান। সেই নিয়মের আওতায় দ্বিতীয় দফায় প্রায় ৪ লাখ টাকা পাচ্ছেন বসুন্ধরা কিংসের জনি।

    গত ফেব্রুয়ারিতে প্রথম দফায় ৪ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ পেয়েছিলেন জাতীয় দলের এই ফুটবলার। দ্বিতীয় দফায় জনির ক্ষতিপূরণ পাওয়ার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছে বাফুফেও।

    আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের আগে অ্যান্টেরিওর ক্রুশিয়েট লিগামেন্টে চোট পেয়েছিলেন জনি। লিগামেন্টের চোট সারাতে এরপর অস্ত্রপচারও হয়েছে তার হাঁটুতে। ফিফার 'ক্লাব প্রটেকশন স্কিমের' নিয়ম অনুযায়ী মূলত ক্লাবের খেলোয়াড় জাতীয় দলের দায়িত্ব পালনের সময় ইনজুরিতে পড়লে তার জন্য ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়।  এর আগে জাতীয় দলের আতিকুর রহমান ফাহাদও ইনজুরিতে পড়ায় ফিফার কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ পেয়েছিলেন।

    জাতীয় দলের হয়ে জনি সবশেষ খেলেছিলেন লাওসের বিপক্ষে। বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ প্রাক-বাছাইয়ের ওই ম্যাচে লাওসের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে দ্বিতীয় পর্বে উঠেছিল বাংলাদেশ।