• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    'অপেশাদার' তেভেজের ওপর ইউনাইটেড সাবেক অধিনায়কের যত ক্ষোভ

    ২০০৯ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছেড়ে রেড ডেভিলদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটিতে পাড়ি জমিয়েছিলেন কার্লোস তেভেজ। সেই দলবদল নিয়ে জল ঘোলাও হয়েছিল বেশ। তখন থেকেই ওল্ড ট্রাফোর্ডে ভক্তকুলের চক্ষুশূল হয়েছেন তিনি। তবে তেভেজকে নিয়ে ম্যান ইউনাইটেড কিংবদন্তি গ্যারি নেভিলের ক্ষোভ রেড ডেভিলদের ছেড়ে যাওয়ার আগ থেকেই। ইউনাইটেডে নিজের দ্বিতীয় মৌসুমে ক্লাব ছাড়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন তেভেজ। সেজন্য নিজের পারফরম্যান্সের মানও নিচে নামিয়ে এনেছিলেন তিনি- স্কাই স্পোর্টসের এক অনুষ্ঠানে নেভিল কড়া সমালোচনাই করেছেন তেভেজের।


    ওয়েস্ট হাম থেকে দুই বছরের জন্য ধারে খেলতে ২০০৭ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে এসেছিলেন তেভেজ। এরপর দুই মৌসুমে ইউনাইটেডের হয়ে প্রিমিয়ার এবং চ্যাম্পিয়নস লিগও জিতেছিলেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। তার সামগ্রিক পারফরম্যান্সের সন্তুষ্ট হয়ে ধারের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে ৫ বছরের চুক্তি প্রস্তাব করে ইউনাইটেড। তবে তেভেজ সেই প্রস্তাব নাকচ করে সিটিজেনদের ডেরায় পাড়ি জমান। এই বিষয়টি অন্য ইউনাইটেড ভক্তদের মতো নেভিলকেও পোড়ায়। তবে নেভিল এর চেয়েও বেশি বিরক্ত হয়েছেন ইউনাইটেডে তেভেজের শেষ মৌসুমে তার ‘অপেশাদারী’ আচরণে, “আমি বেশ বিরক্ত হয়েছি তার ইচ্ছে করে পারফরম্যান্স লেভেল নিচে নামিয়ে আনার চেষ্টায়। সে অনুশীলনে দেরি করে আসত। চোটের অজুহাতে ট্রিটমেন্ট বেঞ্চে বেশি সময় কাটত তার। একটা সময় সে যা নয় তাই করা শুরু করে। তাই সে সময় তার ইউনাইটেডে খেলার বিষয়টিই আমি মানতে পারছিলাম না।”

    “আমি সে সময় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছাড়া আর কিছু নিয়ে ভাবতেই পারতাম না। তাই আমার কাছে তার সেই আচরণগুলো বেশি খারাপ লেগেছে। আমি পরিষ্কার বুঝতে পারছিলাম যে, সে দলের জন্য নিজের সেরাটা দিচ্ছে না। তার হয়ত সমস্যা ছিল। তবে সে সবসময় তার আশপাশের লোকদের কথার বেশি গুরুত্ব দিত। আর এসব কারণে তার ইউনাইটেডে সময় যেভাবে শেষ হয়েছে, সেভাবে অন্ত হওয়াটাই স্বাভাবিক ছিল। আমি একজন পেশাদার ফুটবলার হিসেবে কষ্ট পেয়েছি এই কারণে যে, তার যেভাবে কাজ করা উচিৎ ছিল সে সেভাবে করেনি।”

    তবে একইসাথে ২০০৭-০৮ মৌসুমে ইউনাইটেডের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পেছনে তখনকার আক্রমণভাগের তিনজনের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেছেন নেভিল, যার মাঝে রোনালদো এবং রুনির সঙ্গে তেভেজকেও কৃতিত্ব দিয়েছেন তিনি। আক্রমণভাগের এই ত্রয়ীকে প্রিমিয়ার লিগ ইতিহাসের সেরা মনে করেন তিনি।

    বর্তমান সময় লিভারপুল এবং ম্যানচেস্টার সিটির আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের কথা উল্লেখ করে তাদের চেয়েও রোনালদো-রুনি-তেভেজকে এগিয়ে রেখেছেন নেভিল, "আপনি লিভারপুলে সালাহ-মানে-ফিরমিনো অথবা সিটিতে আগুয়েরো-স্টার্লিং-সানের কথা বলতে পারেন, কিন্তু রোনালদো-রুনি-তেভেজ ত্রয়ীর সেরা সময়ের সঙ্গে অন্য কিছুর তুলনা চলে না। প্রিমিয়ার লিগে অনেক ভালো ফ্রন্ট থ্রি আসতে পারে, তবে আমার জন্যে ঐ তিনজনই সবসময় সেরা থাকবে।"