• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    গ্রিনউডের জোড়া গোল, 'ফাটাফাটি' ফার্নান্দেজ, সোলশারের স্বস্তি

    বাজে শুরুর পর দারুণ ফেরায় বোর্নমাউথকে উড়িয়ে দিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ওলে গানার সোলশারের দলের আর এক জয়ে ১৮ বছর বয়সী মেসন গ্রিনউড করেছেন জোড়া গোল। বাকি দুই ফরোয়ার্ড মার্কাস র‍্যাশফোর্ড, অ্যান্থনি মার্শিয়াল- দুইজনই গোল করেছেন। ব্রুনো ফার্নান্দেজও ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছেন, সরাসরি ফ্রি-কিক থেকে দলের পঞ্চম গোলটি করেছেন পর্তুগিজ। ৩৩ ম্যাচে ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চার নম্বরেও উঠে এসেছে ইউনাইটেড। এক পয়েন্ট পিছিয়ে পাঁচে থাকা চেলসির হাতে অবশ্য আছে এক ম্যাচ বেশি।

    নড়বড়ে শুরু ডি গিয়ার
    বক্সের ভেতর বল ক্লিয়ার করতে পারেনি ইউনাইটেড। জুনিয়র স্টানিস্লাস বাইলাইনের কাছে বল পেয়ে হ্যারি ম্যাগুয়েরকে নাটমেগ করার পর ডেভিড ডি গিয়াকে কাছের পোস্টে বোকা বানিয়ে গোল করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান। রেলিগেশন এড়ানোর লড়াইয়ে থাকা বোর্নমাউথের জন্য শুরুটা ছিল স্বপ্নের মতো। যদিও সব পরে তছনছ হয়ে গেছে ইউনাইটেডের দারুণ ফেরায়।

    সোলশারকে ভরসা দিচ্ছেন গ্রিনউড
    মৌসুমের শুরুতে মেসন গ্রিনউডকে নিয়ে নিজের উচ্চাকাঙ্ক্ষার কথা আড়াল করেননি ইউনাইটেড ম্যানেজার। তার প্রতিদান দিয়েই যাচ্ছেন গ্রিনউড। ১৫ মিনিটে পিছিয়ে যাওয়ার পর ২৯ মিনিটে তার গোলে সমতায় ফেরে ইউনাইটেড। ব্রুনো ফার্নান্দেজের কাছ থেকে বল পেয়েছিলেন। বক্সের ভেতর থেকে এরপর বাম পায়ের জোরালো শটে গ্রিনউড করেছেন প্রথম গোল।

    এরপর র‍্যাশফোর্ড পেনাল্টি থেকে গোল করে ইউনাইটেডকে এগিয়ে দেন। বিরতির ঠিক আগে মার্শিয়াল গোল করেন বক্সের ঠিক বাইরে থেকে ডান পায়ের বাঁকানো শটে টপ কর্নারে বল জড়িয়ে। তবে দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান ৩-২ করেন বোর্নমাউথের জশুয়া কিং।

    এর ৪ মিনিট পর আবার ইউনাইটেডকে স্বস্তি এনে দেন গ্রিনউড। এবার বক্সের ভেতর থেকে ডান পায়ের শটে গোল করেন তিনি। তাতে মৌসুমে সব প্রতিযোগিতায় গ্রিনউডের গোল দাঁড়িয়েছে ১৫টি, এর ভেতর প্রিমিয়ার লিগে গোল আছে ৮টি। ১৮ বছর বা তার কম বয়সী হিসেবে প্রিমিয়ার লিগে এর চেয়ে বেশি গোল আছে কেবল ওয়েইন রুনি, রবি ফাউলার  আর মাইকেল ওয়েনের। 

    ফাটাফাটি ফার্নান্দেজ
    জানুয়ারির ২২ তারিখে বার্নলির কাছে হারের পর অপরাজিত থাকার ধারাটা ১৬ ম্যাচে নিয়ে গেছে ইউনাইটেড। রেড ডেভিলদের পরিবর্তনে বড় ভূমিকা জানুয়ারির দলবদলে যোগ দেওয়া ফার্নান্দেজের। আগের ম্যাচে জোড়া গোলের পর এবার বোর্নমাউথের বিপক্ষে করেছেন এক গোল, আর এক অ্যাসিস্ট।  প্রিমিয়ার লিগের ৯ ম্যাচে তার গোল এখন ৬টি, সঙ্গে অ্যাসিস্ট আরও ৪টি।

    সোলশারের স্বস্তি
    ইউনাইটেডের ডাগ আউটে বসার পর প্রথম ম্যাচেই সোলশারের ইউনাইটেড এক ম্যাচে দিয়েছিল ৫ গোল। ২০১৮ সালের পর লম্বা একটা সময় কেটে গেছে। দেড় বছর আবার এক ম্যাচে ৫ গোল করেছে ইউনাইটেড। আর ওল্ড ট্রাফোর্ড লিগের এক ম্যাচে ৫ গোল দেখেছে ২০১১ সালের পর প্রথমবারের মতো।

    মার্শিয়াল, র‍্যাশফোর্ডও ওল্ড ট্রাফোর্ডে লিগে গোলসংখ্যা নিয়ে গেছেন ১০ এ। এক মৌসুমে সবশেষ ইউনাইটেডের দুইজন (ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, কার্লওস তেভেজ) খেলোয়াড় ঘরের মাঠে অন্তত ১০ গোল পেয়েছিলেন ২০০৭-০৮ মৌসুমে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন