• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    সেরা চারের দৌড়ে ভালোভাবেই টিকে থাকল চেলসি, লাইফলাইন পেল আর্সেনাল

    প্রিমিয়ার লিগে গত রাতে জয়ের দেখা পেয়েছে লন্ডনের দুই ক্লাব আর্সেনাল ও চেলসি। শেষ চারের দৌড়ে থাকা চেলসি অবনমনের ঝুঁকিতে থাকা ওয়াটফোর্ডকে কোনও সুযোগ না দিয়েই ৩-০ গোলের জয় তুলে নিয়েছে। আর মলিনক্সে গিয়ে স্বাগতিক উলভসকে হারিয়েছে আর্সেনালও। অপরদিকে সিরি আ-তে ইব্রাহিমোভিচের গোলের পর লাৎসিওকে হারিয়ে জুভেন্টাসের শিরোপার পথ সুগম করেছে এসি মিলান।

    চতুর্থ স্থান ধরে রাখল ল্যাম্পার্ডের চেলসি

    শেষ ম্যাচে ওয়েস্ট হামের সঙ্গে হেরে গিয়ে চাপে পড়েছিল চেলসি। এর আগে অবশ্য টানা ৪ ম্যাচ জিতেছিল তারা। তবে সেই ম্যাচের হারে মৌসুমের শেষদিকে আবার বাজে ফর্মের গ্যাঁড়াকলে পড়ে যায় কিনা ল্যাম্পার্ডের চেলসি, সেটি নিয়ে একটু ভয়েই ছিলেন সমর্থকরা। তবে সব শঙ্কার কালো মেঘ সরিয়ে দিয়ে অবনমনের ঝুঁকিতে থাকা ওয়াটফোর্ডকে ঘরের মাঠে একরকম শাসনই করেছে চেলসি। 

    ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড অলিভিয়ের জিরুর বাঁ পায়ের দুর্দান্ত ফিনিশে গোলের খাতা খোলে চেলসি। এরপর বক্সের ভেতর ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ ফাউলের শিকার হন। সেখান থেকে পাওয়া পেনাল্টিতে টপ কর্নার কাঁপিয়ে ব্যবধান ব্রাজিলিয়ান উইলিয়ান। আর ম্যাচের যোগ করা সময়ে রস বার্কলির ডান পায়ের অপ্রতিরোধ্য শটে জয় নিশ্চিত হয় ল্যাম্পার্ডের দলের। ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে এখন টেবিলের চতুর্থ স্থানে রয়েছে চেলসি।

    উলভসকে হারিয়ে একধাপ এগুল আর্সেনাল

    মলিনক্স থেকে অ্যাওয়ে দলগুলোর জন্য জয় নিয়ে ফেরা চাট্টিখানি কথা নয়। শেষ জানুয়ারিতে চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল উলভসের মাঠে গিয়ে ২-১ গোলে জয় পেয়েছিল। তবে মিকেল আর্টেটার আর্সেনাল সেই ‘প্রায় অসম্ভব’ কাজটিই খুব সহজ ভঙ্গিমায় করে দেখাল। বল দখলের লড়াই এমনকি মোট শটের দিক দিয়েও উলভসে চেয়ে ম্যাচে পিছিয়ে ছিল গানাররা। তবে জাল খুঁজে নেওয়ার কাজটি বেশ ভালোভাবেই করেছে তারা। আর সেই সুবাদেই উলভসের মাঠে থেকে ২-০ গোলের জয়ের সঙ্গে পয়েন্ট টেবিলেও একধাপ এগিয়ে গেছে তারা। ৪৯ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সপ্তম স্থানে রয়েছে এখন আর্সেনাল। ইউরোপার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে আরও, টিকে আছে চ্যাম্পিয়ন লিগের আশাও।

    দুই অর্ধে বুকায়ো সাকা এবং অ্যালেক্সান্ডার লাকাজেতের গোলে জয় নিশ্চিত হয়েছে তাদের। প্রথমার্ধের শেষদিকে গোলের ১০ গজ দূর থেকে সাকার দারুণ ভলিতে ম্যাচে এগিয়ে যায় আর্সেনাল। আর ম্যাচের ৮৬ মিনিটে লাকাজেতের বুদ্ধিদীপ্ত ফিনিশে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিশ্চিত হয় আর্সেনালের।

    মিলানের কাছে লাৎসিও-র হারে ৭ পয়েন্টে এগিয়ে গেল জুভেন্টাস

    তরিনোর বিপক্ষে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ফ্রি-কিক ম্যাজিকে জয় পেয়ে নিজেদের কাজ আগেই গুছিয়ে রেখেছিল জুভেন্টাস। টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাৎসিও-কে উড়িয়ে দিয়ে জুভেন্টাসকে শিরোপার পথে আরেকটু এগিয়ে দিয়েছে এসি মিলান।

    ২৩ মিনিটে মিলানের হাকান চালহানগলু প্রথম লাৎসিও-র জালে বল পাঠান। এরপর পেনাল্টি থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ইব্রাহিমোভিচ। করোনাভাইরাসের বিরতির এই ম্যাচ দিয়েই মাঠে ফিরেছেন তিনি। অবশ্য এই গোলের মিনিট দুয়েক আগে ইব্রাহিমোভিচ আরেকটি গোল বাতিল অফসাইডে বাতিল হয়ে গিয়েছিল। পেনাল্টি থেকে করা গোলটিতে অবশস ভাগ্যে সাহায্য পেয়েছেন তিনি। লাৎসিও ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে তার শট প্রায় ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন, তবে এরপরও হাত গলে বল গোলের দাগ পেরিয়ে যায়। ৫৯ মিনিটে ক্রোয়েশিয়ান ফরোয়ার্ড আনতে রেবিচের গোলে লাৎসিও-র শেষ পেরেকটি ঠোকে এসি মিলান।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন