• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    শিরোপার আনন্দে লিভারপুল বেশি যেন উদ্ধত না হয় : ল্যাম্পার্ড

    প্রতিপক্ষকে সম্মান দিতে কার্পণ্য নেই তার। লিভারপুলকে কাল গার্ড অফ অনারও দিয়েছে ফ্র্যাংক ল্যাম্পার্ডের চেলসি। তবে ম্যাচের সময়ই একটা গোল নিয়ে খানিকটা আগ্রাসন বিনিময় হয়েছিল চেলসির সঙ্গে লিভারপুলের বেঞ্চের। লিভারপুলকে অভিনন্দন জানালেও ম্যাচ শেষে মনে করিয়ে দিলেন, ব্যাপারটা সহজভাবে নিতে পারেননি।

    ঘটনাটা হয়েছিল লিভারপুলের দ্বিতীয় গোলের সময়। সাদিও মানেকে বক্সের বাইরে ফাউল করেছিলেন মাতেও কোভাসিচ। যদিও রিপ্লেতে দেখা গেছে, কোভাসিচ বলে টাচ করেছিলেন। সেই ফাউল নিয়ে ডাগআউটে এক প্রস্থ উত্তেজনা বিনিময় হয়ে যায় দুই দলের। চেলসির মড়ার ওপর খাড়ার ঘায়ের মতো সেই ফ্রিকিক থেকে গোল করেই এগিয়ে দেন ট্রেন্ট আলেকজান্ডার আরনল্ড।

    ম্যাচ শেষে লিভারপুল শিরোপা নিয়ে উল্লাস করেছেন। তবে ব্যাপারটা ভুলে যাননি ল্যাম্পার্ড, ‘আমার মনে হয়েছে ওটা ফাউল ছিল না। তবে বেচনে ওই সময় যা হয়েছে সেটা আমরা সবাই দেখেছি। আমি ক্লপকে ও তার দলকে সম্মান করি, তারা দারুণ ফুটবল খেলেছে।’

    ‘ওরা যেভাবে উদযাপন করেছে, সেটা হয়তো ঠিকই আছে। লিগ জিতলে আপনি এরকম উদযাপন করবেন, এটাই স্বাভাবিক। লিভারপুলে ফেয়ার প্লে দিতেই হবে। তবে একই সঙ্গে আমি বলব ওরা যেন বেশি উদ্ধত না হয়ে যায়। আমার দিক থেকে আমি বলব, আমিও একটু বেশি আবেগী হয়ে পড়েছিলাম।’

    আট গোলের ম্যাচে কাল চেলসিকে ৫-৩ গোলে হারিয়েছে লিভারপুল। ম্যান ইউনাইটেডের সঙ্গে সমান ৬৩ পয়েন্ট চেলসির, শেষ ম্যাচে উলভসের সঙ্গে ড্র করলেই নিশ্চিত হবে ল্যাম্পার্ডের দলের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন