• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    বাকিদের চোখে ভালো মানুষ হয়ে থাকতে চান, শেষ ম্যাচের আগে সিলভার চাওয়া একটাই

    ডেভিড সিলভা বলেছেন, ১০ বছর আগে ফিরে যেতে পারলে কোনোকিছুই বদলাতে চাইতেন না তিনি। ম্যানচেস্টার সিটি অধিনায়ক সিলভা প্রিমিয়ার লিগে শেষবারের মতো মাঠে নামবেন আগামীকাল নরউইচ সিটির বিপক্ষে। এর আগে ইংল্যান্ডে শেষ সংবাদসম্মেলনে সিটির স্প্যানিশ মিডফিল্ডার আদতে নিজের তৃপ্তির কথাই জানিয়েছেন।

    ৩৪ বছর বয়সী সিলভা মৌসুমের শুরুতেই জানিয়েছিল মৌসুম শেষে আর সিটিতে থাকবেন না তিনি। ২০১২ সালে প্রিমিয়ার লিগ জেতা ইয়াইয়া তোরে, পাবলো জাবালেতা, ভিনসেন্ট কোম্পানি, জো হার্টরা আগেই বিদায় নিয়েছেন। সিলভা বিদায় নেওয়ার পর ওই দলের একমাত্র সার্জিও আগুয়েরো থাকবেন সিটিতে।


    ২০১০ সালে সিটিতে যোগ দেওয়া সিলভা লিগে সিটির হয়ে ৩০৯তম ম্যাচে মাঠে নামবেন নরউইচের বিপক্ষে। এই ১০ বছরে ৪ বার প্রিমিয়ার লিগ, ২ এফএ কাপ ও ৫ লিগ কাপ শিরোপা জিতেছেন সিলভা।  লিসবনে চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা উঁচিয়ে ধরে এখনও রাজসিক বিদায় নেওয়ার সুযোগ আছে সিলভার সামনে।

    "আপনি যখন তরুণ তখন পেশাদার ফুটবলার হয়ে ওঠার স্বপ্নটাই আপনার একমাত্র স্বপ্ন। কী জিতেছেন, কী জিতবেন এসব তখন কেউ ভাবেনা। ১০ বছর আগে ফিরে গেলেও আমি কিছুই বদলাতাম না। যা যা করেছি, তাই আবার করতে বলতাম।" - প্রিমিয়ার লিগের শেষ সংবাদ সম্মেলনে সিলভা।

    ক্লাবের পাশাপাশি স্পেনের হয়েও মোট ১২৫ বার মাঠে নেমেছেন সিলভা। স্পেনকে দুই ইউরো ও এক বিশ্বকাপ জেতাতেও সাহায্য করেছেন। এমন বর্ণিল ক্যারিয়ারের পরও ইংল্যান্ডে কখনও বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হননি সিলভা। দুইবার মনোনয়ন পেয়েছিলেন, এই যা। তবে সিলভা এসব নিয়ে মোটেই মাথা ঘামান না। তিনি চান লোকে তাকে ভালো মানুষ হিসেবে মনে রাখুক।

    "মানুষ হিসেবে ভালো আর ফুটবল খেলতে ভালোবাসতাম- আমি চাই লোকে আমাকে এভাবেই মনে রাখুক। আশা করি, তারাও আমার ফুটবল উপভোগ করেছেন।"

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন