• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    নতুন মৌসুমের আগে খেলোয়াড়দের বিশ্রাম কম হয়ে গেছে, অভিযোগ ল্যাম্পার্ডের

    ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে প্রিমিয়ার লিগের নতুন মৌসুম। তবে চেলসি ম্যানেজার ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের কাছে প্রিমিয়ার লিগ শুরুর দিনক্ষণকে খুবই তড়িঘড়ি মনে হচ্ছে। এখনও চ্যাম্পিয়নস লিগে টিকে থাকা চেলসির খেলোয়াড়রা আগামী মৌসুম শুরুর আগে বিশ্রামের জন্য পর্যাপ্ত সময় পাবেন না বলেই মত তার। আর এতে করে খেলোয়াড়দের চোটের ঝুঁকি বেড়ে যাবে বলে মনে করেন ল্যাম্পার্ড।


    চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোয় বায়ার্ন মিউনিখের কাছে প্রথম লেগে ৩-০ গোলে হেরেছে চেলসি। দ্বিতীয় লেগে অতিমানবীয় কিছু করতে না পারলে এই পর্ব থেকেই বিদায় নিশ্চিত হয়ে যাবে তাদের। আর এমনটা হলে আগামী মৌসুম শুরুর আগে অন্তত ৩৫ দিনের বিরতি পাবে চেলসি। আগামী মৌসুম শুরুর দিনক্ষণ নির্ধারণের আগে ক্লাবগুলোর সঙ্গে প্রিমিয়ার লিগের আলোচনায় অন্তত ৩০ দিনের বিরতি নিশ্চিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আর চেলসি তাই হিসেবে নির্ধারিত বিরতির চেয়ে বেশিই পাচ্ছে, তবে এরপরও চেলসি ম্যানেজার সন্তুষ্ট হতে পারছেন না, “আমরা বায়ার্নকে হারিয়ে কোয়ার্টারে না যেতে পারলেও ১২ তারিখ আমার কাছে খুবই তড়িঘড়ি মনে হচ্ছে। খেলোয়াড়দের বিরতি প্রয়োজন। পর্যাপ্ত বিরতি না পাওয়ার কারণেই আমাদের দুইজন খেলোয়াড় (সেজার আজপিলিকুয়েতা এবং ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ) হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়েছে। এর খেলোয়াড়রা ম্যাচের আগে ছিটকে গেছে। 

    “আশা করি, প্রিমিয়ার এই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে ভাববে এবং পরবর্তী মৌসুম শুরুর তারিখ যাতে সবার সুবিধামত হয় সেটা বিবেচনা করবে। একটি প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগে যাতে আমরা লড়াই করতে পারি, সেই ব্যবস্থা করতে হবে।”

    তবে গত মাসে সব ক্লাব মিলে একটি সিদ্ধান্তে আসায় ল্যাম্পার্ডের কথা প্রিমিয়ার লিগ কানে তুলবে না বলেই ধারণা সংশ্লিষ্টদের। ৯ আগস্ট বায়ার্নের বিপক্ষে শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে মাঠে নামবে চেলসি।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন