• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    'পরিকল্পনা মতো এগোয়নি ম্যান ইউনাইটেডের দলবদলের কার্যক্রম'

    দলবদলের বাজারে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কর্মকাণ্ড নিয়ে হতাশ সমর্থকরা। সেই জুলাইতে শুরু হয়েছে দলবদলের মৌসুম। অথচ এতদিনে মাত্র একজন নতুন খেলোয়াড় এসেছেন ওল্ড ট্রাফোর্ডে। আয়াক্স থেকে ৪০ মিলিয়ন ইউরো ব্যয়ে ডনি ভ্যান ডি বিককে দলে টেনেছে তারা। দীর্ঘ প্রচেষ্টার পরও এক নম্বর টার্গেট জেডন সানচোকে দলে ভেড়াতে পারেনি তারা। আর তাই প্রিমিয়ার লিগে নতুন মৌসুমে মাঠে নামার আগে দলটির কোচ ওলে গানার সোলশারও স্বীকার করে নিলেন, পরিকল্পনা মতো এগোয়নি ম্যান ইউনাইটেডের দলবদলের কার্যক্রম।


    গত মৌসুমে ইউরোপা লিগের সেমিফাইনালে খেলায় ম্যান ইউনাইটেড অন্যদের চেয়ে একটু দেরিতে নতুন মৌসুম শুরু করছে। শনিবার রাতে ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে প্রিমিয়ার লিগ মিশন শুরু করবে তারা। তার আগে সংবাদ সম্মেলনে দলবদল নিয়ে নিজের হতাশা ব্যক্ত করেছেন সোলশার, “কখনো কখনো পরিকল্পনা মতো সবকিছু হয় না। এখানে জীবন একদম সোজা রেখার মতো নয়। কখনো কখনো কিছু ঘটনা ঘটে। দলবদলের কাজ করার জন্য এখনো আরও কয়েক সপ্তাহ সময় রয়েছে।”

    “আমরা কিছু খেলোয়াড়কে দলে টানতে পারি। আমি এমন একটি ক্লাবের সঙ্গে কাজ করি, যারা জানে আমি দল এবং স্কোয়াডের কোন কোন জায়গায় উন্নতি চাই। দেখি আমাদের যা আছে তার সঙ্গে নতুন কিছু যোগ করা যায় কিনা।”

    এছাড়া করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে ফুটবলে দলবদলের কার্যক্রমে প্রভাব পড়েছে বলে মত সোলশারের, “আমি করোনাভাইরাসের প্রভাবকে অস্বীকার করতে পারবেন না। দলবদলের বাজারকে অনেকটাই বদলে দিয়েছে করোনাভাইরাস।”

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন