• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    প্রিমিয়ার লিগ : হার দিয়ে শুরু ম্যান ইউনাইটেডের, ব্যাক-টু-ব্যাক জয়ে উড়ছে এভারটন-আর্সেনাল

    শনিবার প্রিমিয়ার লিগে চারটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নতুন মৌসুমে প্রথমবারের মতো মাঠে নেমেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। মৌসুমের প্রথম দিনে সাত গোলের থ্রিলারে লিভারপুলের কাছে একটুর জন্য হেরে যাওয়া লিডস ইউনাইটেডও এদিন মাঠে নেমেছিল। আর কার্লো আনচেলত্তির এভারটন এবং মিকেল আরতেতার আর্সেনাল মাঠে নেমেছিল টানা দ্বিতীয় জয়ের খোঁজে।

    ক্রিস্টাল প্যালেসের কাছে হেরে মৌসুম শুরু করেছে ম্যান ইউনাইটেড

    দলবদলের বাজারে ম্যান ইউনাইটেডের নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে ভক্তদের বিরক্তি তুঙ্গে। এমন অবস্থায় ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে জয় দিয়ে নতুন মৌসুম শুরু করলে কিছুটা স্বস্তি পেত ইউনাইটেড। কিন্তু হয়েছে উল্টোটা। ওল্ড ট্রাফোর্ডে ক্রিস্টাল প্যালেসের কাছে ৩-১ গোলে হেরে গেছে ওলে গানার সোলশারের ইউনাইটেড।


    ম্যাচের মাত্র সপ্তম মিনিটেই প্যালেসের টাউনসেন্ডের গোলে পিছিয়ে পড়ে ম্যান ইউনাইটেড। এরপর ৭৪ এবং ৮৫ মিনিটে জোড়া গোল করে ম্যান ইউনাইটেডের নতুন মৌসুমের প্রথম দিনটাকে বিষিয়ে দেন দলটির সাবেক খেলোয়াড় উইলফ্রেড জাহা। দুই গোলে পিছিয়ে থাকা অবস্থায় অবশ্য ৮০ মিনিটে নতুন মুখ ডনি ভ্যান ডি বিকের গোলের মাধ্যমে একটা লাইফলাইন খুঁজে পেয়েছিল ইউনাইটেড। তবে সেটা আর কাজে লাগাতে পারেননি তারা।

    ব্যাক-টু-ব্যাক জয় পেয়েছে এভারটন-আর্সেনাল

    প্রথম ম্যাচে জোসে মরিনহোর টটেনহামকে তাদের ঘরের মাঠে গিয়ে হারিয়ে এসেছিল কার্লো আনচেলত্তির ‘নতুন এভারটন।’ শনিবার শক্তিমত্তায় পিছিয়ে থাকা ওয়েস্ট ব্রমকে পেয়ে যেন আরও ধার বেড়ে গেল এভারটনের। যদিও ম্যাচে দশম মিনিটে প্রথম গোল হজম করে বসেছিল তারা। তবে ‘নতুন এভারটন’ নব উদ্যমে ফিরে এসেছে ম্যাচে। ৩১ মিনিটে ডমিনিক ক্যালভার্ট-লুইনের গোলে সমতায় আসে তারা। এরপর দারুণ ফর্মে মৌসুম শুরু করা হামেস রদ্রিগেজের প্রথম প্রিমিয়ার লিগ গোলে চড়ে ম্যাচ এগিয়ে যায় তারা। 

    ৫৪ মিনিটে ডিফেন্ডার মাইকেল কিনের গোল ব্যবধান বাড়ায় এভারটন। ক্যালভার্ট-লুইন এরপর ৬২ থেকে ৬৬ মিনিটের মাঝে দুইবার প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠিয়ে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন, সঙ্গে দলের বড় জয়ও নিশ্চিত করেন।


    প্রিমিয়ার লিগে নতুন উঠে আসা ওয়েস্ট ব্রমের দিনটা একেবারেই ভালো যায়নি। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ডিফেন্ডার কিয়েরান গিবস লাল কার্ড দেখে মাঠে ছাড়েন। আর বিরতির পর সেই লাল কার্ড নিয়ে রেফারি মাইক ডিনের কাছে প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে ওয়েস্ট ব্রম কোচ স্লাভেন বিলিচ নিজেও লাল কার্ড দেখেন।

    এদিকে এডি এনকেতিয়ার শেষ মুহূর্তের গোলে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে পেরেছে আর্সেনাল। ম্যাচের ২৫ মিনিটে পিয়ের-এমেরিক অবামেয়াংয়ের সঙ্গে সংযোগ থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন অ্যালেক্সান্ডার লাকাজেত। এর মিনিট বিশেক পর ওয়েস্ট হ্যামের মিখাইল আন্টোনিও দলকে সমতায় আনেন। এরপর অনেক চেষ্টা করেও আর গোলের দেখা পাচ্ছিল না আর্সেনাল। ড্র-কেই যখন ম্যাচের একমাত্র নিয়তি বলে মনে হচ্ছিল, তখনই বদলি হিসেবে মাঠে নামা এনকেতিয়া ম্যাচের পাঁচ মিনিট বাকি থাকতেই দানি সেবায়োসের অ্যাসিস্টে গোল করে আর্সেনালের জয় নিশ্চিত করেন। মৌসুমের প্রথম ম্যাচের আগে সেবায়োস এবং এনকেতিয়ার মাঝে বিবাদের খবর প্রকাশিত হয়েছিল। সেটির রেশও শনিবারের ম্যাচের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন এনকেতিয়া।

    আবার সাত গোলের থ্রিলার, তবে এবার হাসিমুখে ম্যাচ শেষ করেছে বিয়েলসার লিডস

    ১৬ বছর পর প্রিমিয়ার লিগে উঠে এসে প্রথম দিনেই ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল মার্সেলো বিয়েলসার লিডস ইউনাইটেড। সাত গোলের থ্রিলারে একটুর জন্য জয় হাতছাড়া হয়েছিল সেদিন। লিডসের দ্বিতীয় ম্যাচেও সাত গোল হয়েছে, তবে এদিন স্নায়ু নিয়ন্ত্রণে রেখে ৪-৩ গোলে জয় পেয়েছে তারা। 

    হেল্ডার কস্তার গোলে ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই এগিয়ে গিয়েছিল লিডস। ৩৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল দলকে সমতায় নিয়ে আসেন অ্যালেক্সান্ডার মিত্রোভিচ। এরপর ৪১, ৫০ এবং ৫৭ মিনিটে যথাক্রমে মাতেউস ক্লিখ, প্যাট্রিক বামফোর্ড এবং কস্তার গোলে ম্যাচ অনেকটা ফুলহামের নাগালের বাইরে নিয়ে যেতে চেয়েছিল লিডস। তবে ৬২ এবং ৬৭ মিনিটে ববি রাইড এবং মিত্রোভিচের গোলে ম্যাচে নিজেদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেছিল স্কট পার্কারের ফুলহাম। তবে শেষ পর্যন্ত সমতাসূচক গোলটি আর খুঁজে পায়নি তারা।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন