• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    রোনালদোরাও যা পারেননি, ভার্ডির লেস্টারের কাছ থেকে সেই 'পাঁচের দুঃস্বপ্ন' পেলেন গার্দিওলা

         ফুলটাইম 

    ম্যান সিটি ২: ৫ লেস্টার সিটি


    ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর রিয়াল মাদ্রিদ কখনো পারেনি। লিওনেল মেসি তো বেশির ভাগ সময় একই দলেই ছিলেন, পরে বিপক্ষ দলেও সেই স্বাদ দিতে পারেনি। সেই স্বাদ এবার পেলেন পেপ গার্দিওলা। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো পাঁচ গোল হজম করার অভিজ্ঞতা হলো ম্যান সিটি ম্যানেজারের, আর দেখলেন নিজের মাঠে বিপক্ষ দলের কারও প্রথমবারের মতো হ্যাটট্রিক। লেস্টারের কাছে নিজেদের মাঠে সিটির ৫-২ গোলে হারটা খুব দ্রুত ভুলে যেতে চাইবেন গার্দিওলা, ভুলে যেতে চাইবে সিটিও।

     

    পাঁচ গোল দূরে থাক, ক্যারিয়ারে চার গোল হজম করারই অভিজ্ঞতা গার্দিওলার ছিল মাত্র একবার। সেটি অনেকেরই মনে থাকার কথা, ২০১৪ সালে চ্যাম্পিয়নস লিগে গার্দিওলার বায়ার্ন রিয়ালের কাছে চার গোল হজম করেছিল। এরপর আর সেই অভিজ্ঞতা হয়নি তার। আজও যে সেরকম কিছু হবে, সেটা বোধ হয় ঘোর দুঃস্বপ্নেও ভাবেননি। ম্যাচের ৪ মিনিটেই রিয়াদ মাহরেজের গোলে সিটি যখন এগিয়ে যায়, কেউই ভাবেনি সেরকম। কিন্তু সেটাই আজ হলো ইতিহাদে।

    সেটা আসলে করলেন জেমি ভার্ডি। পিছিয়ে পড়ার পর নিজেই ফাউল থেকে পেনাল্টি আদায় করে সমতা ফেরালেন, ম্যাচের তখন ৩৭ মিনিট। প্রথমার্ধ শেষ হলো ১-১ গোলেই। এরপর খেলা শুরু হলো দ্বিতীয়ার্ধে। ৫৪ মিনিটে লেস্টার রাইটব্যাক কাস্তানিয়ার ক্রস থেকে ভার্ডি পা ছুঁইয়ে এগিয়ে দিলেন দলকে। মিনিট খানেক পর আবার পেনাল্টি আদায় করলেন ভার্ডি, এবারও স্পটকিক থেকে গোল করতে ভুল করলেন না। হ্যাটট্রিক হয়ে গেল তার, সিটির বিপক্ষে যা তার দ্বিতীয়। ২০১৬ সালে সর্বশেষ সিটির বিপক্ষে কোনো হ্যাটট্রিক হয়েছিল, সেটাও করেছিলেন ভার্ডিই। এরপর নাথান আকের গোলে ব্যবধান কমিয়েছিল সিটি। কিন্তু জেমস ম্যাডিসন বক্সের বাইরে থেকে অনেক দিন মনে রাখার মতো এক গোল করে আবারও ব্যবধান বাড়ান। সেই ম্যাডিসনই খানিক পর আবার পেনাল্টি এনে দেন, ম্যাচে যা সিটির তৃতীয়। আর তা থেকে পাঁচ নম্বর গোলটি করেন ইউরি থিয়েলেমান্স। এক ম্যাচে প্রিমিয়ার লিগে তিনটি পেনাল্টি থেকে গোল করার ঘটনা এটাই প্রথম।

    আর সেই সঙ্গে গার্দিওলার হলো ভুলে যাওয়ার অভিজ্ঞতা। পেশাদার ক্যারিয়ারে ৬৮৬ ম্যাচেও যা হয়নি তার। সিটির দ্বিতীয় ম্যাচে এটি প্রথম হার, প্রথম ইংলিশ লিগে প্রথমবারের মতো নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচই জিতল লেস্টার।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন