• বিশ্বকাপ বাছাই
  • " />

     

    মেসির সঙ্গে বাক্য বিনিময়ের পর হুমকির শিকার বলিভিয়ার ফিজিও

    মেসির সঙ্গে বাকবিতণ্ডার পর হুমকির সম্মুখীন হয়েছেন বলিভিয়ার ফিজিও লুকাস নাভা। বলিভিয়ার বিপক্ষে লা পাজে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে কয়েকদিন আগে ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা। আর সেই ম্যাচের শেষ বাঁশির পর বলিভিয়ার অধিনায়ক মার্সেলো মার্টিনস মোরেনোর সঙ্গে বাক্য বিনিময় হয় মেসির। দুজন খেলোয়াড়কেই তখন হলুদ কার্ড দেখান রেফারি। তখনই মেসির সঙ্গে বলিভিয়ার আর্জেন্টাইন ফিজিও নাভার মাঝেও বাক্য বিনিময় হয়।

    সেই ঘটনার পর আর্জেন্টিনা সমর্থকদের কাছ থেকে তাকে অনেক কটু কথা শুনতে হচ্ছে বলে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন বলিভিয়ার ফিজিও নাভা, “ওখানে হয়ত ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিল। সত্যি বলতে সেখানে কিছুই হয়নি, আমাদের কেন্দ্র করে যা তৈরি করা হয়েছে সেটা হচ্ছে মূল সমস্যা।”

    “আর্জেন্টাইনরা ঝগড়ার সময় যেসব শব্দ ব্যবহার করে সেগুলোই সেখানে ব্যবহৃত হয়েছিল। কোনো খারাপ উদ্দেশ্য ছিল না। আমি ম্যাচ শেষে দেখলাম যে দুই দলের খেলোয়াড়দের মাঝে বেধে যাচ্ছে, আর সেজন্য আমি তাদের আলাদা করতে চেয়েছিলাম ,যাতে কেউ লাল কার্ড না দেখে। আপনি একটি দলের প্রতিনিধিত্ব করলে তাদের সাথে দাঁড়াতে হবে। আমাকে বিভিন্ন জায়গা থেকে ফোন করা হয়েছে, এমনকি স্পেন থেকেও ফোন এসেছে। অনেক অপমানজনক কথাবার্তা শুনতে হয়েছে আর হুমকিও পেয়েছি।”

    এদিকে শুধু আর্জেন্টাইন সমর্থকরাই নন, দলটির ফরোয়ার্ড সার্জিও আগুয়েরোও সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যমে নাভার ওপর রাগ ঝেড়েছেন। ইনস্টাগ্রামে আগুয়েরো লিখেছেন যে, ‘ওই ব্যক্তির (লুকাস নাভা) টেকো মাথায় মেসির চড় দেওয়া উচিৎ ছিল।’

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন