• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    ওল্ড ট্রাফোর্ডে পয়েন্ট ভাগাভাগি করল ম্যান ইউনাইটেড এবং চেলসি

    ফুলটাইম

    ম্যান ইউনাইটেড ০ - ০ চেলসি


    ওল্ড ট্রাফোর্ডের এই ড্রয়ের পর দুই দলের কারই তেমন একটা আক্ষেপ থাকার কথা নয়। নির্ধারিত ৯০ মিনিট এবং অতিরিক্ত আরও চার মিনিট খেলায়ও দুই ইংলিশ জায়ান্টের কেউই খুব বেশি আক্রমণ সাজাতে পারেনি । প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমের তর্কসাপেক্ষে সবচেয়ে ‘বিরক্তিকর’ ম্যাচটিই বোধহয় খেলল দুই দল। প্রাণহীন, সমন্বয়হীন আক্রমণগুলো সব প্রতিপক্ষের বক্সে গিয়ে মুখ থুবড়ে পড়ছিল, যার ফলশ্রুতিতে গোলশূন্য অবস্থাতেই শেষ হয়েছে এই দ্বৈরথ।

    পুরো ম্যাচে অবশ্য একটি ঘটনা উত্তাপ ছড়িয়েছে। হ্যারি ম্যাগুয়ের বক্সের ভেতর আজিপিলিকুয়েতাকে জাপটে ধরেছিলেন। কিন্তু রেফারি বা ভিএআর কেউই সেদিকে নজর দেয়নি, চেলসির পেনাল্টি আবেদন তাই গেছে বিফলে। 

    ঘরের মাঠে প্রিমিয়ার লিগে শেষ ম্যাচে টটেনহামের বিপক্ষে ছয় গোল হজম করেছিল। অন্যদিকে গত মৌসুমের শুরু থেকে প্রতিপক্ষের মাঠে গিয়ে চেলসি ৪২ গোল হজম করেছে। দুই দলের সামনেই তাই আজ চ্যালেঞ্জ রক্ষণ ঠিক রেখে তবেই আক্রমণে যাওয়া। আর সেটি করতে গিয়ে দুই দলই খোলসবন্দী হয়ে রইল। পুরো ম্যাচে দুই দল মিলে মাত্র ৫ টি শট লক্ষ্যে রাখতে পেরেছে, যার মাঝে চারটি স্বাগতিক ম্যান ইউনাইটেড আর একটি চেলসি।

    ম্যাচে গোলের যে কয়েকটি ভালো সুযোগ এসেছিল তার প্রায় সবকটিই পেয়েছিল ম্যান ইউনাইটেড। প্রথমার্ধের ৩৫ মিনিটে অনেকটা ওয়ান-অন-ওয়ান অবস্থা থেকে বল জালে পাঠাতে পারেননি মার্কাস রাশফোর্ড। পা বিস্তৃত করে সে যাত্রায় চেলসির গোলকে অক্ষত রাখেন এদুয়ার্দো মেন্ডি। প্রথমার্ধের শেষ দিকে হুয়ান মাতার একটি শটও ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন এই সেনেগালিজ গোলরক্ষক।

    ম্যাচের শেষ দিকে যোগ করা সময়েও আরও একবার রাশফোর্ডকে হতাশ করেছেন মেন্ডি। বক্সের সামনে থেকে পোস্টের বাম দিকে নিচু এবং বাঁকানো এক শট করেছিলেন ইংলিশ ফরোয়ার্ড, তবে দুর্দান্তভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ে বল পোস্ট থেকে দূরে ঠেলে দলকে হার থেকে বাঁচান তিনি।

    তবে এই কয়েকটি বিচ্ছিন্ন আক্রমণ বাদে বাকি পুরো ম্যাচই বল মধ্যমাঠে ঘোরাফেরা করেছে। দুই দলের খেলোয়াড়রাই অনেক কারিকুরি দেখিয়ে বল প্রতিপক্ষের বক্স পর্যন্ত নিয়ে গেছেন, তবে সেখানে গিয়ে দৃষ্টিকটু ফরোয়ার্ড বা চিকি পাস খেলে হেলায় বল হারিয়েছেন। ম্যাচের সিংহভাগ এই থিমেই এগিয়েছে। 

    দ্বিতীয়ার্ধে ম্যান ইউনাইটেড ম্যাচে প্রাণ ফেরানোর চেষ্টা করেছে। মাতা এবং জেমসকে উঠিয়ে পগবা এবং এডিনসন কাভানিকে নামিয়ে খেলায় গতি এবং ধার আনার চেষ্টা করেছিলেন সোলশার। অভিষেকে কাভানি খুব বেশি কিছু করতে পারেননি। তবে একবার সেটপিস থেকে বল মেরেছেন সাইডনেটে। চেলসি শেষদিকে রক্ষণের কাঠামো ধরে রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছে। আসল কাজটা চেলসি গোলরক্ষক মেন্ডিই করেছেন। শেষদিকে র‍্যাশফোর্ডের বক্সের বাইরে থেকে করা গোলমুখী বাঁকানো শট দুর্দান্ত এক সেভে ফিরিয়ে দিয়েছেন। আর তার সুবাদেই ওল্ড ট্রাফোর্ড থেকে এক পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পেরেছে ল্যাম্পার্ডের দল।

    আর এই ড্রয়ের ফলে ১৯৭২-৭৩ এর পর প্রিমিয়ার লিগে এই প্রথম ওল্ড ট্রাফোর্ডে মৌসুমের শুরুর তিন ম্যাচে জয় বঞ্চিত থাকল ম্যান ইউনাইটেড। 

    ম্যান ইউনাইটেড একাদশ

    ডি গিয়া, ওয়ান-বিসাকা, লিন্ডেলফ, মাগুয়ের, শ, ম্যাকটমিনে, ফ্রেড, মাতা, ফার্নান্দেজ, জেমস, রাশফোর্ড

    চেলসি একাদশ

    মেন্ডি, জুমা, সিলভা, আজপিলিকুয়েতা, চিলওয়েল, কান্তে, জর্জিনহো, জেমস, পুলিসিচ, হাভার্টজ, ভার্নার

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন