• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    রোনালদোকে ছুঁলেন সালাহ, কেইনের ২৫০


     

    ইংলিশ লিগের মিউজিক্যাল খেলা চলছেই। এই শনিবার চেলসি উঠে গিয়েছিল শীর্ষে। কালই আবার আর্সেনালকে ২-০ হারিয়ে সবার ওপরে উঠে গেছে টটেনহাম। পরে উলভসকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে টটেনহামকে ছুঁয়ে ফেলেছে লিভারপুলও। খুব বেশি পিছিয়ে নেই চেলসি, লেস্টার, ম্যান ইউনাইটেড ও ম্যান সিটিও। এর মধ্যে দারুণ দুইটি মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলেছেন হ্যারি কেইন ও মোহামেদ সালাহও।

    নর্থ লন্ডন ডার্বিতে হ্যারি কেনের রেকর্ড বরাবরই দারুণ। আর হোসে মরিনহো আর্সেনালের বিপক্ষে বরাবরই স্পেশাল। কালকের প্রথম গোলটা অবশ্য হিউয়েন মিন সনের দুর্দান্ত একটা চেষ্টার ফসল। হ্যারি কেনের পাস থেকে বল পেয়ে ১৩ মিনিটে দুর্দান্ত এক বাঁক খাওয়ানো শটে বক্সের বাইরে থেকে বল জালে জড়িয়ে দেন সন। কেনের এই অ্যাসিস্ট প্রথমার্ধের শেষের দিকেই আবার তাকে ফিরিয়ে দিয়েছেন সন। এবার দারুন একটা প্রতিআক্রমণ থেকে বল পেয়েছিলেন লে সলসো, তার পাসটা পান সন। সেখান থেকে কেনকে দিয়েছেন, বক্সে ঢুকে টটেনহাম অধিনায়কের বাঁ পায়ের শট জড়িয়ে গেছে জালে। ক্লাব ও দেশের হয়ে এটি কেইনের ২৫০তম গোল, ডার্বিতে বলে সেটা আরও স্পেশাল। আর নর্থ লন্ডফন ডার্বিতে সর্বোচ্চ ১১ গোলও তার।

    আর্সেনাল এরপর সেভাবে আর ম্যাচে ফিরতেই পারেনি। বরং প্রথমার্ধের শেষে চোট পেয়ে মাঠ ছেড়ে আর্সেনাল কোচ মিকেল আরতেতার দুশ্চিন্তা বাড়িয়েছেন টমাস পার্টে।

    উলভসের বিপক্ষে লিভারপুলের প্রথম গোল পেতে অপেক্ষা করতে হয়েছে ২৪ মিনিট। মো সালাহর এই গোল প্রিমিয়ার লিগে তার ৮৪তম, ছুঁয়ে ফেলেছেন ম্যান ইউনাইটেডের হয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ৮৪ গোলকে। যদিও মাত্র ১৩১ ম্যাচেই সেটি সালাহ করেছেন, রোনালদোর চেয়ে ৬৫ ম্যাচ কম খেলে।

    এরপর একটা পেনাল্টি পেয়েছিল উলভস, কিন্তু ভিএআরের জন্য বাতিল হয়ে গেছে তা। ৫৮ মিনিটে জিনি ভিনালদামের দুর্দান্ত গোলে ব্যবধান বাড়িয়েছে। ৬৭ মিনিটে সালাহর ক্রস থেকে হেড করে গোল করে ব্যবধান তিন গুণ করেছেন জোয়েল মাতিপ। আর ৭৮ মিনিটে উলভসের নেলসন নেমেদোর আত্মঘাতী গোলে ব্যবধান ৪-০ করেছে লিভারপুল।

    এই ম্যাচেই অ্যানফিল্ডে মাঠে ফিরেছে দর্শক, ম্যাচ শেষে দুই হাত ছুঁড়ে তাদের সঙ্গে জয়টা উদযাপন করেছেন ক্লপ। করোনা ভাইরাসের পর দীর্ঘ বিরতি শেষে এই সপ্তাহেই মাঠে ফিরতে শুরু করেছে ইংল্যান্ডের দর্শক, এখনও অবশ্য অনুমতি দেওয়া হচ্ছে সীমিত আকারে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন