• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    বিগ স্যামে আটকে গেল লিভারপুল, ড্র করে খেলোয়াড়দের দুষলেন মরিনহো

    বিগ স্যামে আটকে গেল লিভারপুল, ড্র করে খেলোয়াড়দের দুষলেন মরিনহো    

    এই মৌসুমে অ্যানফিল্ডে কালকের আগ পর্যন্ত কোনো পয়েন্ট খোয়ায়নি লিভারপুল। অবনমনের শংকায় থাকা ওয়েস্ট ব্রমের বিপক্ষে জয় না পাওয়াটাই হতো বিশাল এক অঘটন। সেটাই হয়েছে, অ্যানফিল্ডে এসে মৌসুমের প্রথম দল হিসেবে পয়েন্ট নিয়ে গেছেন কদিন আগে যোগ দেওয়া স্যাম অ্যালারডাইস। উলভসের বিপক্ষে শেষ মুহূর্তে গোল খেয়ে শীর্ষ চারে আসার সুযোগ হারিয়েছে টটেনহাম, এরপর হোসে মরিনহো দুষেছেন খেলোয়াড়দের।

    অ্যানফিল্ডে লিভারপুল কাল নেমেছিল পুর্ণশক্তির দল নিয়েই। শুরু থেকেই রক্ষণাত্মক কৌশলে ঢুকে গিয়েছিল ওয়েস্ট ব্রম, লিভারপুল তাই গোলের খুব বেশি পরিষ্কার সুযোগ পাচ্ছিল না। তবে প্রথম গোলের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি। ১২ মিনিটে জোয়েল মাতিপের লব থেকে দারুণভাবে বল কন্ট্রোল করে জালে জড়িয়ে দেন সাদিও মানে।

    এরপর লিভারপুলের পায়েই বল ছিল, ওয়েস্ট ব্রম শুধু রক্ষণের চেষ্টা করে গেছে। কিন্তু পালটা আক্রমণে ভয় ছড়াচ্ছিল। এর মধ্যে মাতিপও নেমে যান চোট পেয়ে, লিভারপুলের রক্ষণের সমস্যা বাড়ে আরও। শেষ পর্যন্ত ৮২ মিনিটে কর্নার থেকে হেড করে গোল করেন আজায়ি, সমতা ফেরান দলের হয়ে। দায়িত্ব নেওয়ার পর মাত্র দ্বিতীয় ম্যাচেই লিভারপুলকে ঠেকিয়ে দিলেন অ্যালারডাইস, যদিও এখনো তারা রেলিগেশন জোনেই আছে। ক্লপ কাল রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করে হলুদ কার্ডও দেখছেন, দিনটা সব মিলেই খারাপ গেছে। তবে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে এখনো সবার ওপরেই আছে লিভারপুল, তিন পয়েন্ট পেছনে থেকে দুইয়ে এভারটন।

    আরেক ম্যাচে টটেনহামও উলভসের বিপক্ষে জয় দেখছিল। ম্যাচের প্রথম মিনিটেই বেন ডেভিসের পাস থেকে টাঙ্গুই এনদম্বেলের গোল এগিয়ে দেয় স্পার্সকে। কিন্তু এরপর আস্তে আস্তে খোলসে ঢুকে যায় তারা। সন আর কেইন তেমন সুযোগ পাননি, উলভসও পালটা আক্রমণে চেষ্টা করতে থাকে, যখন মনে হচ্ছিল, ম্যাচটা স্পার্স জিতেই যাবে তখনই পেদ্রো নেতোর কর্নার থেকে হেড করে গোল করেন মরক্কান ডিফেন্ডার রোমান সাইস।

    এক গোলের লিড পেয়ে স্পার্স একটু বেশি রক্ষণাত্মক হয়ে পড়েছিল কি না এমন প্রশ্নের জবাবে মরিনহো খেলোয়াড়দের দুষলেন, ‘ডিপ ডিফেন্ডিং করা তো আমাদের উদ্দেশ্য ছিল না। আমি হাফটাইমের সময় বলেছিলাম আমি কী চাই। সেটা ওরা করতে পারেনি, যেটার মানে এটা তারা করতে পারেনি। আমি হতাশ, কারণ ৮৯ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে গিয়েও আমরা গোল ধরে রাখতে পারিনি। আমি হতাশ, কারণ আমরা যথেষ্ট আক্রমণাত্মক ও উচ্চাকাঙ্খী ছিলাম না, এটাই আমার কাছে সমস্যা।’

    এই ড্রয়ের পর অবশ্য ১৫ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে উঠে এসেছে টটেনহাম। তাদের সামনে ম্যান ইউনাইটেড, লেস্টার ও এভারটন।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন