• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    ৬৮ ম্যাচ পর অ্যানফিল্ডে হেরে গেল লিভারপুল

    সেই ২০১৭ সালের এপ্রিলে ক্রিস্টাল প্যালেস এসে হারিয়ে গিয়েছিল এখানে। প্রায় চার বছর এবং ৬৮ মাচ কেটে গেছে এরপর, অ্যানফিল্ডে আর কেউ হারাতে পারেনি লিভারপুলকে। হারানো তো দূরে থাক, এই সময় এখান থেকে পয়েন্ট নিয়েই ফিরেছে হাতেগোণা কয়েকটি দল। সেই দুর্গ এবার ভেঙে দিল বার্নলি, অ্যানফিল্ডে এসে লিভারপুলকে হারিয়ে গেল ১-০ গোলে। টানা পাঁচ ম্যাচে জয়হীন লিভারপুল এবার সত্যিকার অর্থেই বিপদে, শীর্ষে থাকা ম্যান ইউনাইটেডের চেয়ে পিছিয়ে পড়েছে ৬ পয়েন্টে। চলে গেছে পয়েন্ট তালিকার চারে। 

    প্রিমিয়ার লিগে ঘরের মাঠে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ডটা তাই চেলসিরই থাকল। ২০০৪ থেকে ২০০৮ সালে টানা ৮৬ ম্যাচ অপরাজিত ছিল তারা স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে। 

    মো সালাহকে বিশ্রাম দিয়ে কাল দিভক অরিগিকে একাদশে নামিয়েছিলেন ক্লপ। প্রথমার্ধ ও ম্যাচের সেরা সুযোগটাও পেয়েছিলেন অরিগি। বার্নলি রক্ষণের ভুলে একদম ওয়ান-টু-ওয়ান পেয়েছিলেন গোলরক্ষক নিক পোপকে। কিন্তু তার শট গিয়ে লাগে পোস্টে, গোলটা আর পাওয়া হয়নি লিভারপুলের। 

    দ্বিতীয়ার্ধে গোলের জন্য মরিয়া ক্লপ নামিয়েছিলেন সালাহকে, তার শট অবিশ্বাস্যভাবে পোপ ফিরিয়ে না দিলে গোল পেতে পারত লিভারপুল। তবে ৮৩ মিনিতে লিভারপুলকে হতভম্ব করে উলটো এগিয়ে যায় বার্নলি। পেনাল্টি বক্সের ভেতর বার্নসকে লিভারপুল গোলরক্ষক অ্যালিসন ফেলে দিলে পেনাল্টি পায় বার্নলি, সেখান থেকে গোল করেন বার্নস নিজেই। শেষ দিকে ফিরমিনোরা চেষ্টা করেও শোধ করতে পারেননি গোল। ম্যাচে নিয়ন্ত্রণ লিভারপুলেরই ছিল, কিন্তু বার্নলি রক্ষণে ভেস্তে গেছে তাদের সব প্রচেষ্টা। 

    কালও গোল করতে ব্যর্থ হলো লিভারপুল, ২০০০ সালের পর প্রিমিয়ার লিগে এই প্রথম টানা চার ম্যাচে গোল পেল না তারা। ক্লপের জন্যও এই অভিজ্ঞতা ২০০৬ সালের পর প্রথমবার। সর্বশেষ লিভারপুলের হয়ে প্রিমিয়ার লিগে গোল করেছিলেন সাদিও মানে, ওয়েস্ট ব্রমের বিপক্ষে সেই গোল গত বছরে। ক্লপের দুশ্চিন্তার এখন কারণ আছেই।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন