• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    কোথায় যাচ্ছেন আগুয়েরো? সিটিতে তার বদলি কে হতে পারেন?

    কোথায় যাচ্ছেন আগুয়েরো? সিটিতে তার বদলি কে হতে পারেন?    

    এই মৌসুম শেষেই ম্যান সিটি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নিচ্ছেন সার্জিও আগুয়েরো,। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে আগুয়েরোর নতুন ঠিকানা কোথায় হচ্ছে? ম্যান সিটিই বা তার বদলে কাকে আনবে? 

    শোনা যাচ্ছিল ইংল্যান্ড অভিযান শেষে আগুয়েরো নিজের পুরনো ক্লাব আর্জেন্টিনার ইনদেপেন্দিয়েন্তেতে ফিরতে পারেন। কিন্তু সেরকম সম্ভাবনা নাকি নাকচ করে দিয়েছেন ৩২ বছর বয়সী আগুয়েরো। তার হিসেবে, শীর্ষ পর্যায়ের ফুটবলে আরও দুই বছর অনায়াসেই খেলতে পারবেন। কিন্তু নতুন ঠিকানা কোথায় হবে তার? 

    শোনা যাচ্ছে বার্সেলোনা, পিএসজি ও জুভেন্টাস- এই তিনটি ক্লাবের কথা। এর মধ্যে বার্সা একজন স্ট্রাইকার খুঁজছে ভালোমতোই। লিওনেল মেসিও চান আগুয়েরো তার সঙ্গে জুটি বাঁধুক, বন্ধুতে তিনি বার্সায় চাইছেন এমনও শোনা যাচ্ছে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, মেসি নিজেই এই মৌসুম শেষে বার্সায় নাও থাকতে পারেন। সেদিক দিয়ে বার্সা বরং আগুয়েরোকে তার বিকল্প হিসেবে চাইতে পারে। ওদিকে রোণাল্ড কোমান নাকি আগুয়েরোর চেয়ে মেম্ফিস ডিপাইকেই বেশি চাইছেন, এমন ধারণা দিচ্ছে বার্সাভিত্তিক ওয়েবসাইটগুলো। 

    এর বাইরে বাকি থাকে জুভেন্টাস ও পিএসজি। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাস ছাড়ার একটা গুঞ্জন উঠেছে। যদি সেরকম কিছু সত্যি হয়, তাহলে আগুয়েরো হতে পারে তাদের ভালো বিকল্প। পিএসজির যদিও নেইমার, এমবাপে, ইকার্দির মতো স্ট্রাইকার আছে, তারপরও আগুয়েরোকে তারা চায় বলে গুঞ্জন আছে। ফ্রি এজেন্ট আগুয়েরো নাকি চাইছেন, ইংল্যান্ড ছেড়ে অন্য ক্লাবে পাড়ি জমাতে। সেক্ষেত্রে এই তিন ক্লাবের মধ্যে একটি হতে পারে তার পছন্দ। 

    কিন্তু আগুয়েরোর বদলে ম্যান সিটি কাকে আনবে? এই মৌসুমে অনেক ম্যাচেই স্বীকৃত স্ট্রাইকার নিয়ে খেলেছে সিটি। আগুয়েরো এবার মাত্র একটি লিগ ম্যাচে মাঠে নেমেছেন, তার অভাবটা বুঝতে দিচ্ছেন না বাকিরা। তবে গার্দিওলা একজন স্ট্রাইকার চাইবেনই। শোনা যাচ্ছে, সাউদাম্পটনের ্ড্যানি ইংস বা টটেনহামের হ্যারি কেন হতে পারে তার পছন্দ। এর বাইরে লতারো মার্তিনেজ, রোমেলু লুকাকু, এমনকি এই সময়ের সেনসেশন এরলিং হালান্ডের নামও শোনা যাচ্ছে। শেষ পর্যন্ত কোথায় যাবেন সেটা বলে দেবে সময়।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন