• " />

     

    পরিবর্তন আসছে 'ডিআরএস'-এ

    কম বিতর্ক হয়নি এটা নিয়ে। ডিআরএস পদ্ধতির সবচেয়ে বড় ‘ধোঁয়াশা’ যেন ছিল আম্পায়ারস কলই। অবশেষে পরিবর্তন আসছে এ পদ্ধতিতে। এডিনবরায় আইসিসির বার্ষিক সভায় ডিআরএসের নিয়মে পরিবর্তনকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

    নতুন নিয়মানুযায়ী, অন-ফিল্ড আম্পায়ারের দেয়া এলবিডাব্লিউয়ের সিদ্ধান্ত বদলে যাবে, যদি বলের অর্ধেক অংশ অফস্ট্যাম্প ও লেগস্ট্যাম্পের সীমানার ভেতরে লাগে। আগে এই অঞ্চলটা স্ট্যাম্পের মধ্যরেখা থেকে ভেতরের অংশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল।তবে আগের মতোই এই অঞ্চল বেলের নীচের অংশ থেকেই কার্যকর হবে।

    নীচের ছবিটা থেকে আরেকটু পরিষ্কার হবে ব্যাপারটা। সিদ্ধান্তটা আদতে ছিল আম্পায়ারস কল, ফলে আম্পায়ারের দেয়া নট-আউটই কার্যকরো হতো। কিন্তু নতুন নিয়মে ফিল্ডিং দল রিভিউ নিলে এটি হয়ে যাবে আউট।  

    নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এলবিডাব্লিউতে বোলাররাই পাবেন বেশী সুবিধা। অক্টোবরের ১ তারিখ থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হওয়ার কথা। তবে কোনো সিরিজ যদি এর আগেই শুরু হয়ে ওই তারিখ পর্যন্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, তবে সে সিরিজেই দেখা যাবে এমন নিয়ম।

    এর আগে আইসিসির ক্রিকেট কমিটিতে থাকা মাহেলা জয়াবর্ধনে জানিয়েছিলেন, তাঁরা সুপারিশ করেছিলেন, আম্পায়ারস কলের ক্ষেত্রে বলের পরিমাণটা যাতে ৫০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশে আনা হয়। ৫০ শতাংশের নিয়মটা একই থাকছে, তবে স্ট্যাম্পের ‘কার্যকরী’ অঞ্চলটা বাড়ছে।

    টেলিভিশন আম্পায়ারের নো-বল করা নিয়েও একটা পরীক্ষা করতে চায় আইসিসি। টেলিভিশন রিপ্লে দেখে যেখানে কয়েক সেকেন্ডের মাঝেই নিজের সিদ্ধান্তের কথা অন-ফিল্ড আম্পায়ারকে জানাবে তিনি।

    ২০২২ সালের ডারবান কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেটের অন্তর্ভুক্তি নিয়েও কথা হয়েছে এ সভায়। আপাতত মহিলা ক্রিকেট অন্তর্ভুক্তি নিয়ে কথা বলতে চায় আইসিসি।  

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন