• প্রীতি ম্যাচ
  • " />

     

    • প্রীতি ম্যাচ

    ইকার্দি-দিবালার 'প্রথমে' আর্জেন্টিনার জয়

     

    ৫ বছর আগে জাতীয় দলে অভিষেক হয়েছিল তাঁর। ইন্টার মিলানের হয়ে গত কয়েক মৌসুমে মাউরো ইকার্দি পেয়েছেন বহু গোল। শুধু আর্জেন্টিনার হয়েই সেই কাঙ্ক্ষিত গোলটা পাওয়া হচ্ছিল না। শেষ পর্যন্ত ইকার্দির আফসোস ঘুচল আজ। আফসোস ঘুচেছে পাউলো দিবালারও। মেক্সিকোর বিপক্ষে তাদের দুজনের প্রথম আন্তর্জাতিক গোলের ম্যাচে ২-০ ব্যবধানে জয় পেয়েছে আর্জেন্টিনা।

    ২০১৩ সালে অভিষেক হওয়ার পর প্রায় চার বছর আর্জেন্টিনা দলে ব্রাত্য ছিলেন ইকার্দি। গত বছরের সেপ্টেম্বরে জাতীয় দলে ফিরেছিলেন এই ইন্টার স্ট্রাইকার। আজকের একাদশে নয়টি পরিবর্তন এনেছিলেন কোচ লিওনেল স্কালোনি, দলে তাই ঢুকেছিলেন ইকার্দিও। ম্যাচের মাত্র দুই মিনিটের মাথায় তাঁর গোলেই এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। এরিক লামেলার পাসে বক্সের অনেকটা বাইরে বল পেয়েছিলেন ইকার্দি। এরপর দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে দারুণভাবে নিজের প্রথম গোলটি করেন তিনি।

    শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে আক্রমণের ধার বাড়ায় মেক্সিকো, হেনরি মারটিনসের শট অল্পের জন্য পোষ্টের ওপর দিয়ে যায়। লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়েছে ১৯ মিনিটে নেওয়া লামেলার শটও। প্রথমার্ধে এরপর খুব বেশি গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারেনি দুই দলই।

    বিরতির কিছুক্ষণ আগে ভিক্টর গুজমানের ফ্রি কিক পোষ্টের ওপর দিয়ে চলে যায়। দ্বিতীয়ার্ধের ৬৯ মিনিটে সমতা আনার দারুণ এক সুযোগ এসেছিল মেক্সিকোর সামনে। হেসুস গেলার্দোর হেড দুর্দান্তভাবে ঠেকিয়ে দেন আর্জেন্টিনা কিপার পাউলো গ্যাজানিগা। ৮৫ মিনিটে গুজমানকেও হতাশ করেন তিনি।

    এরপরই ৮৭ মিনিটে এক পাল্টা আক্রমণে ম্যাচের আর্জেন্টিনার হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন পাউলো দিবালা। আর্জেন্টিনার হয়ে নিজের ১৮ তম ম্যাচে এসে গোলের দেখা পেলেন তিনি। জিওভানি সিমিওনের পাসে পাওয়া বল দিবালা জালে জড়াতে ভুল করেননি।