• দক্ষিণ আফ্রিকা-পাকিস্তান সিরিজ
  • " />

     

    • দক্ষিণ আফ্রিকা-পাকিস্তান সিরিজ

    শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানে না আসার সিদ্ধান্ত অস্ট্রেলিয়ার

    সেই ১৯৯৮ সালে পাকিস্তান সফরে এসেছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপর পেরিয়ে গেছে দীর্ঘ ২০ বছর। মাঝে সন্ত্রাসী হামলায় দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নির্বাসিত ছিল পাকিস্তান। তবে ধীরে ধীরে বদলাচ্ছে পরিস্থিতি, গত কয়েক বছরে পাকিস্তানের মাটিতে খেলতে গেছে অনেকেই। পিসিবির আশা ছিল, এবার একটি ওয়ানডে হলেও পাকিস্তানে খেলতে আসবে অস্ট্রেলিয়া। তবে শেষ পর্যন্ত সেটা হচ্ছে না, অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান সিরিজের সব ম্যাচ হবে আরব আমিরাতেই।

    পিসিবি ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার মাঝে বেশ কয়েকমাস ধরেই চলছিল আলোচনা। পাকিস্তান এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য পুরোপুরি নিরাপদ, পাকিস্তানের পক্ষ থেকে বারবারই এটা বোঝানো হয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে। পুরো সিরিজ না হোক, অন্তত দুই-একটি ম্যাচ যেন পাকিস্তানের মাটিতে হয়, এই ব্যাপারে অস্ট্রেলিয়াকে অনুরোধ জানিয়েছিল পিসিবি। তবে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে কোনো সবুজ সংকেত পায়নি পাকিস্তান। শেষ পর্যন্ত আসন্ন ওয়ানডে সিরিজের সূচি প্রকাশ করেছে তাঁরা, সেখানে সব ম্যাচই হবে আরব আমিরাতে।

    অস্ট্রেলিয়াকে পাকিস্তানে আনতে না পেরে হতাশ পিসিবি পরিচালক জাকির খান, ‘আরা আশা করেছিলাম ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে বুঝিয়ে অস্ট্রেলিয়া দলকে পাকিস্তানে আনতে পারব। শেষ পর্যন্ত সেটা আর সম্ভব হচ্ছে না। পাকিস্তানের ক্রিকেট অনুরাগী ও আমাদের সবাই এতে হতাশ। সেই ১৯৯৮ সাল থেকে মাঠে বসে অস্ট্রেলিয়ার সাথে পাকিস্তানের খেলা দেখেনি পাকিস্তানের মানুষ।’

    সামনেই শুরু পিএসএল। গত দুই মৌসুমের মতো এবারও পাকিস্তানে হবে পিএসএলের কিছু ম্যাচ। জাকির জানালেন, পিএসএল চলার সময় পাকিস্তানে আসবেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নিরাপত্তা পর্যবেক্ষকরা, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এটা নিশ্চিত করেছে, পিএসএলের পাকিস্তান পর্বের ম্যাচের সময় তাদের পর্যবেক্ষক আসবেন। তাঁরা এখানকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখে আইসিসিকেও জানাবেন। আশা করি নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সন্তুষ্ট হয়ে নিকট ভবিষ্যতে অস্ট্রেলিয়া এখানে আসবে।’

    ২২ মার্চ শারজাহতে শুরু পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। প্রথম দুই ম্যাচে হবে শারজাহতে, তৃতীয় ম্যাচ হবে আবু ধাবিতে, শেষ দুই ম্যাচ হবে দুবাইতে। এদিকে ২৯ ম্যাচ চতুর্থ ওয়ানডের কয়েক ঘণ্টা আগেই উঠছে স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারের নিষেধাজ্ঞা। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, ফিট থাকলে চতুর্থ ম্যাচ থেকেই খেলতে পারবেন তাঁরা। তবে ইনজুরির কারণে হয়ত এই সিরিজে খেলতে পারবেন না দুইজনের কেউই।