• প্রীতি ম্যাচ
  • " />

     

    • প্রীতি ম্যাচ

    পাঁচ বছর পর লিগ জিতে আয়াক্সের 'ডাবল'

    ট্রেবল জয়ের স্বপ্নটা ভেঙে গেছে টটেনহামের কাছে অবিশ্বাস্যভাবে হেরেই। আয়াক্সের সামনে তবুও ছিল ডাবল জয়ের হাতছানি। ডাচ লিগের শেষ ম্যাচে ডি গ্রাফসচ্যাপকে সহজেই হারালো ডি লিটের দল। দুসান তাদিচের জোড়া গোলে ৪-১ ব্যবধানের জয়েই পাঁচ বছর পর লিগ শিরোপা জিতল আয়াক্স, জিতল ডাবলও। এই জয়ে নিজেদের ইতিহাসের ৩৪ তম লিগ শিরোপা ঘরে তুলল ক্লাবটি।

    শিরোপা জেতার জন্য শেষ ম্যাচে ড্র করলেই যথেষ্ট ছিল। আয়াক্স অবশ্য ম্যাচের শুরু থেকে খেলল জয়ের জন্যই। ৬ মিনিটের মাথায়ই এগিয়ে যেতে পারত আয়াক্স, তাদিচের শট ঠেকিয়ে দেন বেরট্রামস। ১২ মিনিটে নুসাইর মাজরাউইকেও হতাশ করেন তিনি। ২১ মিনিটে ড্যালে ব্লিডও বেরট্রামস বাধা পেরোতে পারেননি।

    ৩৭ মিনিটে অবশেষে পরাস্ত হন বেরট্রামস। ফ্রি কিক থেকে আয়াক্সকে এগিয়ে দেন লাস স্কোনে। তিন মিনিট পরেই অবশ্য গ্রাফসচ্যাপকে ম্যাচে ফেরান ইউসেফ এল জেবলি। নাবিল বাহুয়ের বাড়ানো বলে ডান পায়ের শটে আয়াক্স কিপারকে পরাস্ত করেন জেবলি। বিরতির ঠিক আগে আবার লিড ফিরে পায় আয়াক্স। নিকোলাস টালিয়াফিকোর বাঁ পায়ের দারুণ এক শটে ২-১ এ এগিয়ে যায় এরিক টেন হাগের দল।

    দ্বিতীয়ার্ধের ৬৬ মিনিটে পেনাল্টি পায় আয়াক্স। পেনাল্টি থেকে ব্যবধান আরও বাড়ান তাদিচ। এই নিয়ে টানা ১১ লিগ ম্যাচে গোল পেলেন তাদিচ। ৭৫ মিনিটে হাকিম জিয়েচও গোল পেতে পারতেন, তাঁর শট বাঁচিয়ে দেন বেরট্রামস। শেষ বাঁশি বাজার তিন মিনিট আগে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোল করে তাদিচ।

     

     

    ৪-১ গোলের জয় নিয়েই লিগ শিরোপা নিশ্চিত করে আয়াক্স। ৩৪ ম্যাচ শেষে আয়াক্সের পয়েন্ট ৮৬, এই মৌসুমে লিগে তাঁরা গোল করেছে ১১৯টি। শেষবার ২০১৪ সালে লিগ জিতেছিল তাঁরা। তাঁরা এই জয়টা উৎসর্গ করেছেন সাবেক আয়াক্স ফুটবলার আপ্পে নুরিকে। দুই বছর আগে নুরি ব্রেমেনের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচের সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মাঠ ছাড়েন। পরবর্তীতে মস্তিষ্কের স্থায়ী ক্ষতের জন্য ফুটবল ছাড়তে হয় তাকে। আয়াক্সে খেলার সময় তাঁর জার্সি নম্বর ছিল ৩৪, ৩৪তম শিরোপা জেতায় তাই জয়টা তাঁকেই উৎসর্গ করেছে দলের সবাই।