• প্রীতি ম্যাচ
  • " />

     

    • প্রীতি ম্যাচ

    ছেলের গোলেই প্লে-অফে জায়গা হারালো বাবার দল

    ম্যাচের তখন ৯৩ মিনিট। জিয়ানকার্লো মালদোনাডোর গোলে ম্যাচে সমতা আনল দেপোর্তিভো তাকিরা। মালদোনাডোর তো তখন উদযাপন করার কথা। সেটা না করে উল্টো কান্নায় ভেঙ্গে পড়লেন তিনি! কিন্তু গোল করে দলের হার এড়িয়ে তো কান্না করার কথা ছিল না তাঁর। আসলে মালদোনাডো গোলটা করেছেন যে পুয়ের্তো ক্যাবেলোর বিপক্ষে, সেই দলের কোচ হচ্ছেন তাঁর বাবা কার্লোস মালদোনাডো। নিজের ছেলের গোলেই শেষ মুহূর্তে প্লে-অফ খেলার সুযোগ হারাতে হয়েছে কার্লোসের দলকে।

    প্লে-অফ থেকে মালদোনাডোর বাবার দল ছিল কয়েক মিনিটের দূরত্বে। ভেনেজুয়েলার প্রিমিয়ার লিগের শেষ দিনের ম্যাচে জিতলেই প্লে-অফ নিশ্চিত হতো পুয়ের্তো ক্যাবেলোর। এই ম্যাচ জিতে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ আটে থেকে মৌসুম শেষ করার দ্বারপ্রান্তে ছিলেন তাঁরা। ৯৩ মিনিট পর্যন্ত ২-১ গোলে এগিয়ে থেকে সেই লক্ষ্যে ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিলেন কার্লোস মালদোনাডোরা।

     

     

    ঠিক সেই মুহূর্তেই পুয়ের্তো ক্যাবেলোর আনন্দে পানি ঢেলে দেন তাদের কোচের ছেলে জিয়ানকার্লো। বক্সের একটু বাইরে বল পেয়ে দারুণ এক গোলে ম্যাচে ২-২ এ সমতা ফেরালেন তিনি। গোলের পর বাবার দিকে তাকিয়ে দেখতে পান, শূন্য দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছেন তিনি। দলের প্লে-অফ খেলা যে আর হলো না!

    বাবার এমন মুখ দেখে গোল উদযাপনের বদলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন জিয়ানকার্লো। জার্সি দিয়ে বারবার মুখও ঢাকছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ম্যাচ ড্র হয়, প্লে-অফ থেকেও ছিটকে যায় পুয়ের্তো ক্যাবেলো। প্লে-অফে অবশ্য জায়গা হয়নি জিয়ানকার্লোর দলেরও।