• সিরি আ
  • " />
    X

     

    রেকর্ড গড়ে ইন্টার মিলানে যোগ দিলেন লুকাকু

    অবশেষে রোমেলু লুকাকুকে দলে ভেড়াতে পারলেন আন্তোনিও কন্তে। দুই বছর আগে চেলসি ম্যানেজার থাকার সময় লুকাকুর ব্যাপারে আগ্রহের কথা জানিয়েছিলেন। ইন্টার মিলানের কোচের দায়িত্ব নিয়েও প্রকাশ্যেই জানিয়েছিলেন লুকাকুকে চান তিনি দলে। অবশেষে তার ইচ্ছে পূরণ হলো। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে লুকাকু যোগ দিয়েছেন ইন্টার মিলানে।  

    লুকাকুর জন্য ৮০ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছেন নেরাজ্জুরিরা। ইন্টারের ইতিহাসে তিনিই এখন সবচেয়ে দামী খেলোয়াড়। চুক্তি হয়েছে পাঁচ বছরের জন্য। এতোদিন ইন্টারের সবচেয়ে দামী খেলোয়াড় হয়ে ছিলেন ক্রিশ্চিয়ান ভিয়েরি। ১৯৯৯ সালে ৪৬ মিলিয়ন ইউরোতে তাকে দলে নিয়েছিল ইন্টার। 


     

    ২০১৭ সালে ৭৫ মিলিয়ন পাউন্ডে এভারটন থেকে ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছিলেন লুকাকু। সেবারও লুকাকুতে পেতে চেষ্টা করেছিলেন কন্তে। ইউনাইটেডে প্রথম মৌসুমে লুকাকু গোল করেছিলেন ২৬টি, কিন্তু পরের মৌসুমে সেটা নেমে এসেছিল ১৫ তে। ইউনাইটেড ম্যানেজার ওলে গানার সোলশার আসার পর থেকেই রেড ডেভিলদের হয়ে অনিয়মিত হয়ে পড়েছিলেন লুকাকু। এরপর দলবদলের মৌসুমের শুরু থেকেই তার দল ছাড়ার গুঞ্জন চলছিল।

    শুরুতে অবশ্য একবার ইন্টারের ৫৪ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব নাকচ করে দেয় ইউনাইটেড। এরপর ২৬ বছর বয়সীর জুভেন্টাসে যাওয়ার কথা শোনা যায়, সেটাও ভেস্তে গেলে দৌড়ে শেষ পর্যন্ত টিকে ছিল ইন্টারের। 

    ইন্টার যোগ দিয়ে লুকাকু শেষ করলেন প্রিমিয়ার লিগ অধ্যায়ও। অ্যান্ডারলেখট থেকে ২০১১ সালে চেলসিতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। এরপর ওয়েস্টব্রম, এভারটন, ইউনাইটেডে কাটালেন মোট ৮ বছর। 
     
    কেন লুকাকুকে পেতে মরিয়া কন্তে?
    আন্তোনিও কন্তে বিখ্যাত তার ৩-৫-২ ফর্মেশনের জন্য। তার ছকে আক্রমণ মূলত হয় উইং দিয়ে। এক্ষেত্রে উইংব্যাকদের আলাদা দায়িত্ব থাকে। আর লং বলেও হোল্ড আপে ভালো এমন একজন স্ট্রাইকারের দরকার পড়ে। সে হিসেবে শারীরিক দিক দিয়েও কিছুটা এগিয়ে থাকতে হয়ে স্ট্রাইকারদের।লুকাকু কন্তের এই সবগুলো প্রয়োজন মেটানোর ক্ষমতাই রাখেন ভালোমতো। আর টেকনিক্যাল দিক দিয়ে কিছুটা দুর্বল হলেও বক্সের ভেতর লুকাকু বিধ্বংসী। প্রিমিয়ার লিগে ২৫২ ম্যাচে ১১৩ গোল ও ৩৫ অ্যাসিস্ট লুকাকুর পক্ষেই যুক্তি দিচ্ছে। আর ইন্টারের দায়িত্ব এবারই নিয়েছেন কন্তে। নতুন করে দল গোছাচ্ছেন তিনি। মাউরো ইকার্দিকে যেহেতু খেলাবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন ইন্টার কোচ, সেক্ষেত্রে লুকাকুর স্ট্রাইকিং পার্টনার হবেন লাউতারো মার্টিনেজ। বেলজিয়ামের হয়ে পরীক্ষিত স্ট্রাইকারদের সঙ্গী হিসেবে পেলেও ক্লাবের হয়ে কখনোই সেভাবে নিজের মানের কাছাকাছি স্ট্রাইকার পাননি লুকাকু। আর ইন্টারে যোগ দিয়ে খেলতে পারবেন চ্যাম্পিয়নস লিগেও। সবমিলিয়ে তাই কন্তের দলে যোগ দিয়ে খুব সম্ভবত সঠিক সিদ্ধান্তই নিলেন বেলজিয়ান স্ট্রাইকার।