• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    হেসুস-সিলভায় প্যালেসকে হারাল সিটি

    আন্তর্জাতিক বিরতির আগে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সের কাছে হেরে ২০১৯-২০ প্রিমিয়ার লিগে মাত্র ৮ ম্যাচ শেষে লিভারপুলের চেয়ে ৮ পয়েন্টে পিছিয়ে পড়েছিল ম্যানচেস্টার সিটি। ২০ অক্টোবর লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে খেলতে নামার আগে ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে জয় পাওয়াটা আবশ্যকই হয়ে পড়েছিল পেপ গার্দিওলার দলের জন্য। একাধিক পরিবর্তনের পরও হতাশ করেনি সিটি, প্যালেসকে তাদেরই মাঠে ২-০ গোলে হারিয়েছে গার্দিওলার দল। লিভারপুলের চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে পয়েন্টের ব্যবধান ৫- নামিয়ে আনল সিটি।

    রয় হজসনের প্যালেসের বিপক্ষে নিজেদের একাদশে বেশকিছু চমক রেখেছিলেন গার্দিওলা। উলভসের বিপক্ষে বাজে পারফরম্যান্সে কারণে বাদ পড়েছিলেন নিকোলাস অটামেন্ডি, রক্ষণে জন স্টোনস অনুশীলনে ফিরলেও ফার্নান্দিনহো এবং রদ্রিকে নামিয়েছিলেন গার্দিওলা। সেন্টারব্যাকে দুজন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার খেলানোর বাজিটা কাজে দিয়েছে তার, পুরো ম্যাচে জাহা-বেন্টেকেদের পকেটবন্দি করে রেখেছিলেন তারা। লম্বা পাসে প্রতি-আক্রমণে রহিম স্টার্লিংদের পাসও যোগাচ্ছিলেন ফার্নান্দিনহোরা। প্রথমার্ধে গোলের সুযোগ বেশি পেয়েছে সিটিই, কিন্তু প্যালেস গোলরক্ষক ওয়েইন হেনেসি ছিলেন দুর্দান্ত ফর্মে।

     

    লিড নেওয়ার পর সিটির উদযাপন

     

    প্রথমার্ধে সিটির অন্তত চারটি নিশ্চিত গোল ফিরিয়ে দিয়েছেন ওয়েলশ গোলরক্ষক। ২৩ মিনিটে তাকে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি সার্জিও আগুয়েরোর বদলে নামা গ্যাব্রিয়েল হেসুস। তবে প্রথমার্ধের শেষদিকে 'কুন'-এর বদলে তার ওপর রাখা গার্দিওলার আস্থার প্রতিদান দিয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার। ৩৯ মিনিটে বের্নার্দো সিলভার ক্রসে হেড করে হেনেসিকে পরাস্ত করেন হেসুস। সিটির জার্সিতে গোলের 'হাফসেঞ্চুরি' পূরণ করলেন তিনি। লিড নিয়েই ক্ষান্ত দেয়নি সিটি, মিনিট দুয়েক পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ডেভিড সিলভা। ৪১ মিনিটে স্টার্লিংয়ের ক্রস থেকে গোল করেন সিটি অধিনায়ক। 

     

    ব্যবধান দ্বিগুণের পর ডেভিড সিলভার উল্লাস

     

    প্রথমার্ধের মত দ্বিতীয়ার্ধেও গোলের একাধিক সুযোগ তৈরি করেছিল সিটি। দুই গোল হজম করলেও খুব সম্ভবত ম্যাচে প্যালেসের সেরা ফুটবলার ছিলেন হেনেসি, দ্বিতীয়ার্ধে তার কারণেই আর গোল হজম করতে হয়নি 'ঈগল'দের। ৪৮ এবং ৫৩ মিনিটে স্টার্লিংয়ের দুটি প্রচেষ্টা অসামান্য দক্ষতায় ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি। ৬৮ মিনিটে আবারও 'ওয়ান অন ওয়ান'-এ হেসুসকে ফিরিয়ে দিয়েছেন হেনেসি। সিটির গোল মিসের মহড়ায় আরেকটু হলেই ম্যাচে ফেরার আশা জাগাতে পারত প্যালেস, কিন্তু হেনেসির মতই অন্যপ্রান্তে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন সিটি গোলরক্ষক এডারসন মোরায়েস।

    ৭৩ মিনিটে ডিবক্সের বাইরে থেকে প্যালেস লেফটব্যাক প্যাট্রিক ফন আনহল্টের জোরাল শট দারুণভাবে ফিরিয়ে দেন তিনি। তবে মিনিট দুয়েক পর ক্রিশ্চিয়ান বেন্টেকের হেড 'পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ' থেকে অবিশ্বাস্য সেভে প্যালেসকে গোলবঞ্চিত করেন এডারসন। শেষদিক প্রতি-আক্রমণে প্যালেসের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন কেভিন ডি ব্রুইন, কিন্তু ৮৮ মিনিটে ইলকে গুন্ডোয়ানের পাস থেকে তার শট হেনেসিকে পরাস্ত করলেও প্রতিহত হয় ক্রসবারে। শেষ পর্যন্ত দুই গোলের জয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে সিটিকে।