• প্রীতি ম্যাচ
  • " />

     

    আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ব্রাজিল স্কোয়াডে নেই নেইমার, ডাক পেলেন রদ্রিগো

    রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে অভিষেকের ৯৩ সেকেন্ডেই পেয়েছিলেন গোল, গত সপ্তাহে গ্যালাতাসারের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগেও অভিষেক হয়েছিল রদ্রিগো গোজের। ক্লাব ফুটবলে দুর্দান্ত মৌসুম কাটানো রদ্রিগো এবার খুব সম্ভবত পেলেন ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় সুসংবাদ। সৌদি আরবে ১৫ নভেম্বর আর্জেন্টিনা এবং ১৯ নভেম্বর দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে ব্রাজিল, ঐ দুই ম্যাচের জন্য স্কোয়াড ঘোষণা করেছেন কোচ তিতে। প্রথমবারের মত সিনিয়র দলে ডাক পেয়েছেন রদ্রিগো। তার মত অভিষেক হতে যাচ্ছে আরও তিনজনের। অ্যাস্টন ভিলার ডগলাস লুইজ, রিয়াল বেটিসের এমারসন এবং রোমার দানিয়েল ফুহাতোও ডাক পেয়েছেন প্রথমবারের মত।

    রদ্রিগোর মত রিয়াল থেকে ব্রাজিলের স্কোয়াডে ডাক পেয়েছেন এডার মিলিতাও এবং কাসেমিরোও; কিন্তু জায়গা হয়নি মার্সেলো এবং ভিনিসিয়াস জুনিয়রের। এই মাসেই ব্রাজিলের শেষ প্রীতি ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ১২ মিনিটেই হ্যামস্ট্রিংয়ের ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছেড়েছিলেন নেইমার। তিতে ইনজুরি আশঙ্কা উড়িয়ে দিলেও ব্রাজিলের চিকিৎসকেরা নিশ্চিত করেছিলেন, এক মাসের জন্য মাঠেড় বাইরে থাকতে হচ্ছে তাকে। তাই আর্জেন্টিনা এবং দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে থাকছেন না তিনি।

     

     

    চাকরি পাওয়ার পর থেকে এবারই প্রথমবারের মত ব্রাজিলের ঘরোয়া লিগ থেকে কাউকেই স্কোয়াডে নেননি তিতে। ফ্লামেঙ্গো কোপা লিবার্তোদোরেসের ফাইনালে কোয়ালিফাই করায় গ্যাব্রিয়েল বার্বোসাদের ডাকেননি তিতে। ঘরোয়া লিগ থেকে পারফরম্যান্স গড়পড়তা হলেও ফুটবলারদের জাতীয় দলের স্কোয়াডে নেওয়ায় বেশ সমালোচনা সইতে হয়েছিল তিতেকে। এবার ফর্মের ভিত্তিতে স্কোয়াড ঘোষণা করায় ব্রাজিলিয়ান মিডিয়াগুলো থেকে বেশ প্রশংসাই পেয়েছেন তিনি, জানিয়েছে গ্লোবো এস্পোর্তে।

     

    ব্রাজিল স্কোয়াড

    গোলরক্ষক: অ্যালিসন বেকার (লিভারপুল), এডারসন মোরায়েস (ম্যানচেস্টার সিটি), দানিয়েল ফুহাতো (এএস রোমা)

    ডিফেন্ডার: থিয়াগো সিলভা (প্যারিস সেইন্ট জার্মেই), মার্কিনিয়োস (প্যারিস সেইন্ট জার্মেই), দানিলো (জুভেন্টাস), অ্যালেক্স সান্দ্রো (জুভেন্টাস), রেনান লোদি (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ), ফেলিপে (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ), এডার মিলিতাও (রিয়াল মাদ্রিদ), এমারসন (রিয়াল বেটিস)

    মিডফিল্ডার: আর্থার মেলো (বার্সেলোনা), ফাবিনহো (লিভারপুল), কাসেমিরো (রিয়াল মাদ্রিদ), লুকাস পাকেতা (এসি মিলান), ডগলাস লুইজ (অ্যাস্টন ভিলা), ফিলিপে কুতিনিয়ো (বায়ার্ন মিউনিখ)

    ফরোয়ার্ড: রবার্তো ফিরমিনো (লিভারপুল), গ্যাব্রিয়েল হেসুস (ম্যানচেস্টার সিটি), রিচার্লিসন (এভারটন), রদ্রিগো (রিয়াল মাদ্রিদ), উইলিয়ান (চেলসি), ডেভিড নেরেস (আয়াক্স)।