• জাতীয় ক্রিকেট লিগ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    নুরুলের ১৫০*-তে শিরোপার আরও কাছে খুলনা

    তৃতীয় দিনশেষে 
    ১ম স্তর, খুলনা
    ঢাকা ১ম ইনিংস ২৭৯ অল-আউট (তাইবুর ১১০, হালিম ৫/২৭) ও ২য় ইনিংস ১০২/৫* 
    খুলনা ১ম ইনিংস ৩৭৯ অল-আউট (নুরুল ১৫০*, তুষার ৮২, শুভাগত ৫/৪৬)) 
    ঢাকা ৫ উইকেট নিয়ে ২ রানে এগিয়ে


    জাতীয় লিগে বাকি এক দিন, শিরোপা-নিষ্পত্তির জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে শেষদিন পর্যন্ত। অবশ্য এক মৌসুম পর আবার শিরোপার খুব কাছে চলে গেছে খুলনা, শেষদিন ঢাকার কাছে না হারলেই চলবে তাদের। খুলনা আছে জয়ের পথেই, তৃতীয় দিনশেষে ঢাকা এগিয়ে ২ রানে, বাকি ৫ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে ঢাকার ১০ রানে ৪ উইকেট নিয়ে খুলনা এদিনই সম্ভাবনা জাগিয়েছিল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার, রকিবুল হাসান ও শুভাগত হোমের ঢাকা একটু ধাতস্থ হয়েছে আপাতত। 

    ঢাকার এই শুরুর ধস বাদ দিলে এ দিনটি ছিল নুরুল হাসান সোহানের। বাকি থাকা ৭ উইকেট নিয়ে এদিন খুলনা প্রথম ইনিংসে তুলেছে আরও ১২৭ রান, এর মাঝে ৯৪ রানই করেছেন নুরুল। ওপাশে শেষ ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার সময় তিনি অপরাজিত ছিলেন ১৫০ রানে, ২২৭ বল খেলে ১৩টি চারের সঙ্গে মেরেছেন ৭টি ছয়। 

    ২৫২ রান নিয়ে দিন শুরু করেছিল খুলনা। তুষার ইমরান ফিরেছিলেন দ্রুতই, আগেরদিনের সঙ্গে আর ৭ রান যোগ করে তিনি বোল্ড হয়েছেন ৮২ রানে। এরপর নুরুলের সঙ্গে আর ৩২ রান যোগ করে শুভাগতর বলেই বোল্ড হয়ে ফিরেছেন নাহিদুল ইসলামও। 

    নুরুলের দুর্দান্ত ব্যাটিং এরপর যেন পেয়েছে পূর্ণতা। খুলনার শেষ ৫ ব্যাটসম্যানের স্কোর ছিল এমন- ০, ০, ২, ১, ০। কিন্তু এই শেষ ৫ উইকেটে খুলনা তুলেছে ৭৩ রান! লাঞ্চে যাওয়ার সময় নুরুলের রান ছিল ৯২, বিরতি থেকে ফিরে ক্যারিয়ারের ৮ম সেঞ্চুরি তিনি পূর্ণ করেছেন ১৮১ বলে, পরের ৫০ রান করতে তিনি খেলেছেন ৪৬ বল। 

    আগেরদিন ২ উইকেট নেওয়া শুভাগত এদিন নিয়েছেন আরও ৩টি, সতীর্থকে পিটিয়ে নিষিদ্ধ শাহাদাত হোসেনের অনুপস্থিতি পুষিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ক্যারিয়ারের ৭ম পাঁচ পেতে তিনি খরচ করেছেন ৪৬ রান। ঠিক ১০০ রানের লিড নিয়ে ১ম ইনিংস শেষ করেছে খুলনা। 

    দ্বিতীয় দফা ব্যাটিংয়ে নেমে ঢাকা পড়েছিল বিপর্যয়ের মুখে, বিপিএলে দল না পাওয়া জিয়াউর রহমান ঝরিয়েছেন আগুন। ৯ম ওভারে গিয়ে ১০ রানে ৪ উইকেট হারিয়েছিল ঢাকা, আব্দুল মজিদের পর শরিফুল হায়াত ও তাইবুর রহমানকেও ফিরিয়েছেন তিনি। মাঝে উত্তম সরকারকে বোল্ড করেছেন মইনুল ইসলাম। 

    ব্যাটিংয়ের মতো বোলিংয়েও ঢাকাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেছেন এরপর শুভাগত, ৫ম উইকেটে রকিবুল হাসানকে সঙ্গে নিয়ে যোগ করেছেন ৭৬ রান। ৭৯ বলে ৪২ রান করে নাহিদুল ইসলামের বলে এলবিডব্লিউ হয়েছেন তিনি। দিনশেষে ৯ রানে ব্যাটিং করা মোহাম্মদ আরাফাতকে নিয়ে অপরাজিত আছেন রকিবুল, ৩৯ রানে। 

    তবে খুলনাকে আটকাতে ঢাকাকে শেষ দিনে রীতিমতো ঘটাতে হবে মিরাকল, সেটি কি হবে? 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন