• জাতীয় ক্রিকেট লিগ
  • " />

     

    পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন শাহাদাত

    সতীর্থের গায়ে হাত তোলার জন্য পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন জাতীয় দলে খেলা পেসার শাহাদাত হোসেন। এর মধ্যে দুই বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞাদেশ আছে, যার মানে আপাতত তিন বছরের জন্য মাঠের বাইরে থাকছেন শাহাদাত। সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। মাঠে অভব্য আচরণের জন্য এত বড় শাস্তি এই প্রথম দিল বিসিবি।

    আজ দুপুরে মিরপুরে বিসিবির টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান মিনহাজুল আবেদীন নিশ্চিত করেছেন, শাহাদাতের সর্বোচ্চ শাস্তিই হচ্ছে। গত পরশু জাতীয় লিগের ম্যাচে চলছিল ঢাকা-খুলনার ম্যাচ। সে সময় ঢাকার পেসার শাহাদাত একই দলের আরাফাত সানি জুনিয়রকে বল ঘষতে বলেছিলেন। কিন্তু সানি কথা না শোনায় রেগে গিয়ে শাহাদাত তার গায়ে হাত তোলেন। আম্পায়াররা এসেও নিরতস্ত করতে না পারায় পরে মাঠের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয় শাহাদাতকে। ম্যাচ রেফারি আকতার আহমেদ সেই ম্যাচ থেকে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করেছিলেন তাকে।

    লেভেল ৪ ধারার অপরাধ ভনবগ করার জন্য শাহাদাতকে দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন ম্যাচ রেফারি। সেই ধারায় সর্বোচ্চ শাস্তি হতে পারত এক বছর থেকে পাঁচ বছরের শাস্তি। বিসিবি নিশ্চিত করেছে সর্বোচ্চ শাস্তিটাই। মিনহাজুলও বলেছেন, তারা চেয়েছিলেন বাকিদের জন্য এই শাস্তিটা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকুক, ‘ও যেটা করেছে এটা আসলে খুবই খারাপ। বার বার একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি করেছে সে। আমরা চেয়েছি ওর শাস্তিটা বাকিদের জন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকুক। সামনে যেন কেউ এই ধরনের কাজ না করার সাহস না পায়।’

    এর আগে গৃহকর্মীকে পিটিয়ে জেলে গিয়েছিলেন শাহাদাত। সে সময় বিসিবি তাকে আজীবন নিষিদ্ধ করলেও পরে রুটি রুজির খাতিরে মাঠে ফেরার সুযোগ দেয়। তবে এবার বিসিবি কঠোর পদক্ষেপই নিয়েছে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন