• বঙ্গবন্ধু বিপিএল
  • " />
    X

     

    সালাউদ্দিন : বিপিএলে স্থানীয় ক্রিকেটারদের ভূমিকা বেশি গুরুত্বপূর্ণ

    তামিম ইকবাল ও মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গে দুজন বিদেশী- বঙ্গবন্ধু বিপিএলে সবচেয়ে বেশি ৪ জন ‘এ-প্লাস’ ক্যাটাগরির ক্রিকেটার আছেন ঢাকায়। কোচদের ক্ষেত্রে এমন ক্যাটাগরি হলে মোহাম্মদ সালাউদ্দিন থাকবেন শীর্ষ পর্যায়েই। বিপিএলে দুইবার শিরোপা জেতা এই কোচ এবার ঢাকার দায়িত্বে, মাশরাফি-তামিম-শাহিদ আফ্রিদির সঙ্গে মুমিনুল হকও আছেন তার অধীনে। তবে দলের সাফল্যের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারদের সঙ্গে স্থানীয় ক্রিকেটারদের ভূমিকাকেও গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখছেন এই কোচ। 

    ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ ও আফগানিস্তান টেস্টের পর ভারত সফর মিস করা তামিম ফিরেছেন অনুশীলনে। বিপিএলের দলগুলির অফিশিয়াল অনুশীলন অবশ্য শুরু হয়নি এখনও। বেশ কিছুদিন পর নেটে ফেরা তামিমকে দেখে ভালই মনে হচ্ছে সালাহউদ্দিনের, “এখনও এগুলো নিয়ে চিন্তা করিনি। অনেকদিন পর আসছে, আগে ব্যাটে বলে লাগুক। তারপর কী করতে হবে বুঝা যাবে। দেখে মনে হচ্ছে তামিম খুব ভালো অবস্থায় আছে। দুই একদিন গেলে ভালো ছন্দে চলে আসবে।”

    “ঢাকার অনুশীলন শুরু হয়নি। আমরা প্রায়ই ব্যক্তিগত উদ্যোগে এমনটা করে থাকি। এই কাজটাই করছি। সামনে একটা টুর্নামেন্ট আছে। তাদের প্রস্তুতিটা নিতে হবে। তামিম অনেকদিন ধরেই খেলার মধ্যে ছিল না। তাকে আরেকটু বেশি সময় দেওয়া উচিত।”

    অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের দলে থাকা সুবিধা বলেই মনে হচ্ছে তার, “আমি সবসময় গুরুত্ব দেই অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের। আমার মনে হয় টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের মূল্যায়ন করা হয় অন্য ভাবে। মাঠে তো আমি খেলবো না তারাই খেলবে। তারাই সিদ্ধান্ত নেবে কি করতে হবে। যত অভিজ্ঞ ক্রিকেটার বেশি হবে ততই সুবিধা। আমি মনে করি এটা আমাদের জন্য সুবিধা।” 

     


    অনুশীলনে ফিরেছেন তামিম/বিসিবি


    এরপরই মনে করিয়ে দিলেন স্থানীয় ক্রিকেটারদের ভুমিকার কথা, “আপনি যদি পুরো টুর্নামেন্টটা খেয়াল করেন, এখানে একা কোনো ক্রিকেটার প্রাধান্য দেখাতে পারে না। এটা পুরো দলের খেলা। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে স্থানীয় ক্রিকেটাররা কতটুকু ক্রিকেট খেলছে তার ওপর নির্ভর করবে আপনার টুর্নামেন্টের অবস্থা কেমন হবে। আপনি যতই বাইরের ক্রিকেটার নিয়ে আসেন না কেন আপনার স্থানীয় ক্রিকেটার খেলবে ৭ জন। এই ৭ জনের ভূমিকাটা কিন্তু বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

    “তাদেরকে ঠিকমতো ব্যবহার না করতে পারলে আপনার ব্যর্থ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। ওই ৭টা জায়গায় আপনার ভালো করতেই হবে। ওখানে আপনি যদি পিছিয়ে যান তাহলে আর ফিরতে পারবেন না। এখানে প্রতিটা ক্রিকেটারের ভূমিকা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তারা যদি নিজেদের জায়গায় ঠিক মতো পারফরম্যান্স করতে পারে তাহলে ভালো কিছু হবে।”

    ৭ দলই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই খেলবে, সালাহউদ্দিন মনে করছেন এমনই, “টুর্নামেন্টে ৭টা দল খেলবে। এখানে কেউ যদি চিন্তা করে যে আমি চ্যাম্পিয়ন হব না তাহলে আমি বলব এটা তার বোকামি। সাতটা দলের সবাই এক লক্ষ্যে মাঠে নামবে। কেউই শুধু অংশ নিতে যাচ্ছে না।

    একমাত্র স্থানীয় কোচ হিসেবে নিজের দায়িত্বটাও বেশি বলে মনে করেন তিনি, “যদিও বলেন স্থানীয় কোচ (আমি) তাহলে বলব আমার দায়িত্ব একটু বেড়ে গেছে। কারণ অন্যান্য সব দলে বিদেশি কোচ রয়েছে। এখানে যেহেতু আমি একাই স্থানীয় কোচ, তাই আমার জন্য কিছুটা বাড়তি দায়িত্ব। কারণ আমি ভালো করলে আমাদের অন্যান্য স্থানীয় কোচদের ভবিষ্যতে সুযোগ আসবে। এই কারণে আমি মনে করি আমার ভালো করা খুব বেশি জরুরি। চ্যালেঞ্জ বলতে প্রতিটা টুর্নামেন্টেই থাকে। আপনি যে দলেই খেলেন না কেন।”