• লা লিগা
  • " />

     

    রামোসের 'পাগলামির' পর কারভাহালের গোলে শীর্ষে উঠল রিয়াল

    ফুলটাইম 
    আলাভেজ ১-২ রিয়াল মাদ্রিদ


    আলাভেজের মাঠে এগিয়ে যেতে রিয়াল মাদ্রিদকে অপেক্ষা করতে হয়েছিল ৫২ মিনিট পর্যন্ত। সার্জিও রামোসই গোল করে এগিয়ে নিয়েছিলেন দলকে। সেই রামোসই আবার কিছুক্ষণ পর কনুই মেরে আলাভেজকে পেনাল্টি উপহার দিয়ে ম্যাচে ফেরার সুযোগ করে দিয়েছিলেন। রামোসের সেই 'পাগমালি' অবশ্য রিয়ালকে আর শেষ পর্যন্ত ভোগায়নি। দানি কারভাহাল গোল করে রিয়ালকে জয় এনে দিয়েছেন। লা লিগায় টানা তিন জয়ে রিয়াল উঠে গেছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। 

    দুইয়ে নেমে যাওয়া বার্সেলোনার চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে রিয়ালের পয়েন্ট ৩১। বার্সেলোনার পরের ম্যাচ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে। রিয়ালের শীর্ষে থাকার স্থায়িত্ব নির্ভর করছে ওই ম্যাচের ফলের ওপর।


    ম্যাচের সবগুলো গোলই হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। প্রথমার্ধে এগিয়ে যেতে না পারার হতাশা ভুলতে রিয়াল সময় নেয়নি খুব বেশিক্ষণ। টনি ক্রুসের ফ্রি-কিক থেকে হেডে গোল করে রামোস আরও একবার এগিয়ে দেন রিয়ালকে। লা লিগায় শুরুর কিছুদিন আলাভেজ শীর্ষস্থানে থাকলেও, তাদের মধুচন্দ্রিমা ফুরিয়েছিল আগেই। পয়েন্ট টেবিলের ১৩ নম্বরে থেকে রিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচ শুরু করেছিল আলাভেজ। এমনিতেও খুব একটা আক্রমণ করতে পারছিল না তারা, পিছিয়ে যাওয়ার পরও রিয়ালকে ভয় দেখানোর কথা ছিল না তাদের। 

    ৬৩ মিনিটে রামোসই সেই সুযোগটা করে দিয়েছিলেন আলাভেজকে। বক্সের ভেতর খুব একটা চাপে ছিলেন না। হোসেলুও বল দখল করতে পারতেন না। কিন্তু হোসেলুকে পেছন দিকে কনুই মেরে রামোসই পেনাল্টি পাইয়ে দেন আলাভেজকে। হলুদ কার্ড দেখাটাও অনুমিত ছিল তার। স্পটকিক থেকে রিয়ালের দ্বিতীয় পছন্দের গোলরক্ষক আলফোন্সো আরিওলাকে কোনো সুযোগ না দিয়ে লুকাস পেরেজ গোল করে এগিয়ে নেন দলকে। 

    তবে রামোস অস্বস্তি বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে দেননি কারভাহাল। গোল হজমের পরই গ্যারেথ বেলকে উঠিয়ে রদ্রিগোকে নামিয়েছিলেন জিনেদিন জিদান। মদ্রিচকে বক্সের ঠিক পাশ থেকে ডানদিকে পাস বাড়িয়ে নিখুঁত ক্রস করতে মদ্রিচকে সাহায্য করেন রদ্রিগো। দূরের পোস্টে ইস্কোর হেড আলাভেজ গোলরক্ষক ঠেকালেও সাইডপোস্টে লেগে এর পর বল পেয়ে যান কারভাহাল। ফাঁকা বারে বল জড়িয়ে ৬৯ মিনিটে আবার তিনি এগিয়ে দেন রিয়ালকে। 

    এর পর আর গোল করা হয়নি রিয়ালের। শেষদিকে আলাভেজ অবশ্য ভালোই চোখ রাঙাচ্ছিল। এর ভেতর দুইবার আলাভেজের দুইটি ভালো আক্রমণ থেকে মার্সেলো একবার ব্লক করেছেন, আরেকবার আরিওলা ঠেকিয়ে দিয়েছেন। যোগ করা সময়ের ৮ মিনিট শেষ হওয়ার আগেই রিয়ালও জয় নিশ্চিত করার সুযোগ পেয়েছিল। বদলি ফেদেরিকো ভালভার্দে তখন সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি। তাই একেবারে শেষ পর্যন্ত টিকে ছিল আলাভেজের ম্যাচে ফেরার সুযোগ।

    সবকিছুর আগে মেন্দিজোরোজার বৃষ্টিস্নাত বিকেলে পিএসজির বিপক্ষে নামানো একাদশ থেকে তিনটি পরিবর্তন এনে দল নামিয়েছিলেন জিদান। এডার মিলিতাও ছিলেন রাফায়েল ভারানের জায়গায়, মিডফিল্ডে পুরনো জুটি ক্রুস-মদ্রিচ আর কাসেমিরো ছিলেন। আক্রমণে ইনজুরির কারণে ছিটকে যাওয়া এডেন হ্যাজার্ডের জায়গায় নেমেছিলেন গ্যারেথ বেল। প্রথমার্ধে রিয়াল নিশ্চিত গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তেমন। ১০ মিনিটে একটি আত্মঘাতী গোল থেকে এগিয়ে যেতে পারত রিয়াল, অবশ্য অল্পের জন্য তখন বেঁচে যায় আলাভেজ। এর পর ইস্কো ভালো জায়গায় বল পেয়েও মেরেছিলেন বাইরে দিয়ে।  

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন