• লা লিগা
  • " />

     

    অশ্লীল ভিডিওর কারণে ম্যানেজারকে বরখাস্ত করল স্প্যানিশ ক্লাব

    অশ্লীল ভিডিওর কারণে ম্যানেজারকে বরখাস্ত করল স্প্যানিশ ক্লাব    

    সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অশ্লীল ভিডিও ছড়িয়ে পড়ায় ম্যানেজার ভিক্টর সানচেজ দেল আমোকে বরখাস্ত করেছে স্প্যানিশ দ্বিতীয় বিভাগের ক্লাব মালাগা। মঙ্গলবার, ৭ জানুয়ারি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিক্টরের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরপরই তাকে চাকরিচ্যুত করে স্প্যানিশ ক্লাবটি। ম্যানেজারের ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে মালাগার সাইবার অপরাধ ইউনিট।

     

     

    ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর টুইটারে ভিক্টর লিখেছেন, 'আমি হয়রানির শিকার হয়েছি। আমাকে ব্ল্যাকমেইল করা হয়েছে এবং আমার অনুমতি ছাড়া আমার ভিডিওটি ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মালাগার পুলিশ ব্যাপারটি খতিয়ে দেখছে। আমি তাদের সর্বাত্মক সহযোগীতাই করব।' স্পেনের পেনাল কোড ১৯৭ অনুযায়ী, কারো অনুমতি ছাড়া তার তথ্য বা ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্য কারো কাছে ছড়িয়ে দেওয়া গুরুতর অপরাধ। এবং এজন্য দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ ৫ বছরের কারাদন্ড হবে।

    ভিক্টোরের মত আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়েছে মালাগাও, 'সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর কারণে আমরা ভিক্টোরকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তার বিরুদ্ধে কোনো অপরাধই এখনও প্রমাণিত হয়নি, পূর্ণ তদন্ত শেষেই আমরা আমাদের পরবর্তী বক্তব্য জানাব।' মালাগার প্রেসিডেন্ট শেখ আল-থানির সাথে দীর্ঘদিন ধরেই দা-কুমড়ো সম্পর্ক ভিক্টোরের। ম্যানেজারকে বরখাস্ত করার তার বিরুদ্ধেই কথা বলেছেন আল-থানি। ভিক্টোরকে নিজের ভুল মেনে নেওয়ার আহবান জানিয়েছেন তিনি। বছর সাতেক আগেও চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলা মালাগা এখন ধুঁকছে দ্বিতীয় বিভাগেও। ২২ ম্যাচ শেষে টেবিলের ১৬তম স্থানে আছে তারা।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন