• সিরি আ
  • " />

     

    রোনালদোর গোলের পরও জুভেন্টাস-গেরো কাটাল নাপোলি

    ওভারহেড কিকটা একদম নিখুঁতই করেছিলেন গঞ্জালো হিগুয়াইন। ম্যাচের আক্ষরিক অর্থেই শেষ কিক, রেফারি যে কোনো সময় বাজিয়ে দেবেন লম্বা বাঁশি। হিগুয়াইনের গোলটা হয়ে গেলে স্মরণীয় একটা প্রত্যাবর্তন হতো জুভেন্টাসের। কিন্তু নাপোলি গোলরক্ষক একদম জায়গামতো ছিলেন, বলটা ধরতে কোনো সমস্যা হয়নি তাঁর। জুভেন্টাসের গেরো কাটিয়েছে নাপোলি, মাঠ ছাড়তে পেরেছে ২-১ গোলের জয় নিয়ে।

    গেরো বলতে হচ্ছে, কারণ জুভেন্টাসের সাথে রেকর্ডটা একদমই ভালো ছিল না নাপোলির। সিরি আ তে নিজেদের মুখোমখি সর্বশেষ আট ম্যাচের কেবল একটিতে জুভেন্টাসকে হারাতে পেরেছিল নাপোলি। কালকের ম্যাচ নেপলসে হলেও ফর্ম আর ইতিহাস, দুইটিই ছিল জুভেন্টাসের পক্ষে। জুভেন্টাস শীর্ষে থেকেই এসেছিল আর নাপোলি কাটাছে দুঃস্বপ্নের মতো একটা মৌসুম। শীর্ষ দশ নিয়েই টানাটানি তাদের, এই বছর ঘরের মাঠে লিগের তিনটি ম্যাচই হেরেছিল।

    তবে সব সমীকরণ বদলে গেল কাল। জুভেন্টাস কোচ মরিজিও সারির জন্য ম্যাচটা ছিল অন্যরকম। দুই বছর আগে এই নাপোলির হয়েই ডাগআউটে ছিলেন, ক্লাবকে শিরোপা জেতাতে না পারলেও রেকর্ড পয়েন্ট এনে দিয়েছিলেন। এরপরেই পাড়ি জমান চেলসিতে, সেখান থেকে জুভেন্টাসে আসার পর কালই ছিল পুরনো ক্লাবে সারির প্রথম ফেরা। দুয়ো দিয়ে আর ব্যানারে খোঁচা দিয়ে সারির ‘অভ্যর্থনা’ ভালোই হয়েছে।

    গোল না পেলেও প্রথমার্ধটা ছিল নাপোলিরই। ২০ মিনিটে মারিও রুইজ ভালো একটা সুযোগ পেয়েছলেন, কাজে লাগাতে পারেননি। আর ৮ মিনিটে মিলিকের শট একটুর জন্য চলে যায় পোস্টের পাশ দিয়ে। নাপোলি তাও কয়েকটা সুযোগ পেয়েছিল, জুভেন্টাস প্রথমার্ধে গোলে কোনো শটই নিতে পারেনি।

    তবে দ্বিতীয়ার্ধেই জেগে ওঠে খেলা। শুরুতেই অফসাইডের জন্য বাতিল হয়ে যায় রোনালদোর একটি গোল। ৬২ মিনিটে প্রতিআক্রমণ থেকে জুভেন্টাসের বক্সের ডান দিকে বল পেয়ে যান লরেঞ্জো ইনসিনিয়ে। দূর থেকে করা দারুণ শটটা ফিরিয়ে দিয়েছিলেন জুভেন্টাস গোলরক্ষক শেজনি, কিন্তু সেটি সরাসরি এসে পড়ে পিটার জিলেনস্কির পায়ে। অত কাছ থেকে বলটা জালে ঠেলে দিতে ভুল করেননি পোলিশ এই ফরোয়ার্ড।

    এরপর হিগুয়াইন একটি হাফ চান্স পেয়েছিলেন, কিন্তু গোল করতে পারেননি। সারি বদলি হিসেবে নামিয়েছিলেন বের্নাদেস্কি ও ডগলাস কস্তাকে, কিন্তু লাভ হচ্ছিল না। উল্টো ৮৬ মিনিটে দ্বিতীয় গোল পেয়ে যায় নাপোলি। বাঁ প্রান্ত থেকে মিলিকের ক্রসটা বুঝতে পারেননি নাপোলির কেউ, তবে কালেয়ন বাঁচিয়ে রেখেছিলেন বলটা। বক্সে ক্রস ফেললেন, এবার ডান পায়ের ছবির মতো সুন্দর সাইডকিকে বলটা জালে জড়িয়ে দেন ইনসিনিয়ে।

    তবে জুভেন্টাস হাল ছাড়েনি। নির্ধারিত সময়ের শেষে বেন্টাকারের লম্বা বলটা বক্সে ভেতর নাপোলি ডিফেন্ডার ও গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে আলতো টোকায় জালে জড়িয়ে দেন রোনালদো। এ নিয়ে লিগে টানা আট ম্যাচে গোল পেলেন সিআরসেভেন। তবে জুভেন্টাসকে আর জেতাতে পারেননি, দুইয়ে থাকা ইন্টার মিলানের সঙ্গে ব্যবধানও নেমে এসেছে তিন পয়েন্টে।