• সিরি আ
  • " />

     

    জুভেন্টাসের জার্সিতে 'গোলমেশিন' রোনালদোর হাফসেঞ্চুরি

    দুই দিন পর ৩৫ ছোঁবে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বয়স। দুই মাস আগেও যদি আপনি ভেবে থাকেন রোনলাদো ফুরিয়ে এসেছেন, তাহলে আপনাকে ভুল প্রমাণ করাই রোনালদোর কাজ। গত দুই মাসে সিরি আতে ৯ টি ম্যাচ খেলেছেন রোনালদো, গোল করেছেন প্রত্যেকটিতে। ফিওরেন্টিনার বিপক্ষে জোড়া গোল করে জুভেন্টাসের জার্সিতে গোলের হাফ সেঞ্চুরিও পূরণ করে ফেলেছেন রোনালদো। অথচ মৌসুম শুরু করেছিলেন ধীর গতিতে। ডিসেম্বরের আগ পর্যন্ত রোনালদোর গোল ছিল ৬টি। ১৯ গোল নিয়ে সিরি আর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা, আর সব প্রতিযোগিতায় এই মৌসুমে ২৭ ম্যাচেই তার হয়ে গেছে ২২ গোল। 

    রবিবার সিরি আতে ফিওরেন্টিনাকে জুভেন্টাস হারিয়েছে ৩-০ গোলে। দুই অর্ধে পেনাল্টি থেকেই দুইবার গোল পেয়েছেন রোনালদো। যোগ করা সময়ে আরেকটি গোল করেছেন ম্যাথিয়াস ডি লিট। তাতে জুভেন্টাস ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে আরও একটি সপ্তাহ শেষে শীর্ষস্থানে উঠেছে।

     



    রোনালদো ম্যাচ শুরু করেছিলেন ৪৮ গোল নিয়ে। সব প্রতিযোগিতায় জুভেন্টাসের জার্সি গোলের হাফসেঞ্চুরি পূরণ করতে রোনালদোর লেগেছে মাত্র ৭০ ম্যাচ। 

    রোনালদো 'গোল মেশিন' মোড শুরু করেছিলেন ডিসেম্বরের ১ তারিখ। এর আগ পর্যন্ত তার গোল ছিল মাত্র ৬টি।  ইতালিয়ান লিগে টানা ৯ ম্যাচে গোল করা মাত্র দ্বিতীয় ফুটবলার বনে গেছেন তাতে রোনালদো। সাসুওলো ও লাৎসিওর বিপক্ষে গোল করেও দলকে জেতাতে না পারলেও এর পর উদিনেসের বিপক্ষে দুই, আর সাম্পদোরিয়ার বিপক্ষে ১ গোল করে আগের বছর শেষ করেছিলেন রোনালদো। এর ভেতর গোল পেয়েছেন চ্যাম্পিয়নস লিগেও।বছর শুরু হ্যাটট্রিকে, এর পর ক্যালিয়ারি, রোমা, পার্মা (দুই), নাপোলির বিপক্ষে গোল করেছিলেন। ফিওরেন্টিনার সঙ্গে গোল করে ইতালিয়ান লিগে টানা ৯ ম্যাচে গোল করা মাত্র দ্বিতীয় ফুটবলার বনে গেছেন রোনালদো। আরেকজন জুভেন্টাসেরই, দাভিদ ত্রেজেগেও একই কীর্তি গড়েছিলেন ২০০৫ সালে।    

    ৪০ মিনিটে ক্যারিয়ারের দেড়শতম পেনাল্টি কিকটি নিয়েছিলেন রোনলাদো। ৮০ মিনিটে নিয়েছেন ১৫১ তমটি। এই ১৫১ টির ভেতর মাত্র ২৫ বার সফল হতে পারেননি রোনালদো।