• অন্যান্য
  • " />

     

    খেলা নিয়ে যে ২৫টি সিনেমা দেখতে পারেন

    করোনাভাইরাস হুট করেই এক অদ্ভুত সময়ের মধ্যে ফেলে দিয়েছে গোটা মানবজাতিকে। সময়টা অস্থির। মনেও স্বস্তি থাকার কারণ নেই তার। জীবন যেখানে থমকে গেছে, খেলাধূলা তো সেখানে ধোপেই টেকে না। অস্থির সময়ে ঘরে-বসে উৎকণ্ঠায় পার না করে খেলা নিয়ে সেরা সিনেমাগুলো দেখে ফেলতে পারেন। এর বেশিরভাগের ভাববস্তু খেলা হলেও এর সঙ্গেও অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িয়ে গেছে জীবন।
    (ক্রমের সঙ্গে সিনেমার রেটিংয়ের কোনো সম্পর্ক নেই)


    অ্যানি গিভেন সানডে
    Any Given Sunday (1999)

    ইএমডিবি - ৬.৯


    পড়তির দিকে থাকা ক্লাব মায়ামি শার্ক। তাদের নতুন তরুণ মালিকেরাও এই পুরনো দল আর পুরনো কোচ টোনির ওপর ভরসা করে উঠতে পারছে না। এমন একটা সময়ে ইনজুরিতে পড়ে যায় তাদের স্টার কোয়ার্টারব্যাক আর তার জায়গায় হুট করে সুযোগ মিলে একদমই নবীন উইলি বিম্যানের। অতীতের খেলা, অতীতের ঐতিহ্যকে ভুলে না গিয়ে নতুনদের সুযোগ করে দেওয়ার গল্প এনি গিভেন সানডে। আল পাচিনো, ক্যামেরন ডিয়াজ, জেমি ফক্স, ডেনিস কুয়েইডের মত অনেক স্টাররা আছেন এখানে। তবে আর কিছু না হলেও এ ছবির শেষে আল পাচিনোর ড্রেসিং রুম স্পিচটার জন্য হলেও মুভিটা দেখতে পারেন।

     

    শাওলিন সকার

    Shaolin Soccer (2001)

    আইএমডিবি - ৭.৩


    সাবেক এক ফুটবল খেলোয়াড় নিজের পাঁচ ভাইকে একত্র করে গড়ে তোলেন অদ্ভুত এক ফুটবল দল, যারা ফুটবলটাকে খেলে শাওলিন কুংফুর ধাঁচে। একাধারে ফুটবল এবং মার্শাল আর্টের এই অভিনব মিশেল উপভোগ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই দেখতে হবে পরিচালক স্টিফেন চৌয়ের এই সিনেমা।

     

    ইনভিকটাস

    Invictus (2009)

    আইএমডিবি - ৭.৩


    সদ্য জেল থেকে মুক্ত হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট হয়েছেন নেলসন ম্যান্ডেলা। কিন্তু অ্যাপার্টাইডের রেশ এখনো রক্ত ঝড়াচ্ছে দেশে। জাতি বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে এক করার জন্য ম্যান্ডেলা ডাকলেন দক্ষিণ আফ্রিকার জাতীয় রাগবি দলের অধিনায়ক ফ্রাঁসোয়া পিনারকে। মিশন? ১৯৯৫ সালের রাগবি বিশ্বকাপ।

     

    দ্য গ্রেটেস্ট গেম এভার প্লেইড
    The Greatest Game Ever Played (2005)

    আইএমডিবি - ৭.৪


    চ্যাম্পিয়ন ইংলিশ গলফার হ্যারি তার ‘নিচু জাতের’ তকমা উপেক্ষা করে, শ্রেণি সংগ্রাম আর নাক উঁচু ব্রিটিশ উচ্চ বংশীয়দের সাথে টেক্কা দিয়েই সেরা গলফারের খেতাবটা পেয়েছেন। এবার ইউ এস ওপেনে তাঁর প্রধান প্রতিপক্ষ আমেরিকান তরুণ ফ্রান্সিস, যে কিনা তাঁরই বিশাল ভক্ত এবং তাঁর মতো একই সংগ্রামগুলো মোকাবেলা করেই উঠে এসেছে গলফ গ্রিনে। এই ছবি ইউস ওপেনে তাদের দক্ষতার যুদ্ধের সাথে সাথে সমাজের সাথে তাদের প্রতিনিয়ত যুদ্ধেরও গল্প।   

     

    সাউথপ
    Southpaw (2015)

    আইএমডিবি - ৭.৪


    নিজের সেরা সময়ে একের পর এক বিপত্তিতে থমকে যায় চ্যাম্পিয়ন বক্সার বিলি হোপের ক্যারিয়ার। হতাশার কড়াল গ্রাসে খোয়াতে থাকেন সব। তবে যখন মেয়ের কাস্টোডিও তার কাছ থেকে চলে যাওয়ার দ্বারপ্রান্তে, তখন আর হতাশচিত্তে বসে থাকতে পারেননি হোপ, আবারও ফিরেছেন বক্সিং রিংয়ে, হারানো সব জিনিসগুলো ফিরে পাওয়ার আশায়।

     

    ফিল্ড অফ ড্রিমস

    Field of Dreams (1989)

    আইএমডিবি - ৭.৫


    কেবল একটা স্বপ্ন দেখে আইওয়ার কৃষক কিনসেলা তার ফসলের মাঠে বানালেন একটা বেসবল মাঠ। তাঁর স্বপ্ন শিকাগো হোয়াইট সক্সের খেলোয়াড়রা সেখানে এসে খেলবেন একটি ম্যাচ। অস্কারে সেরা চলচ্চিত্র, সেরা চিত্রনাট্য এবং সেরা আবহ সঙ্গীতের মনোনয়ন পাওয়া চলচ্চিত্রে একটি স্বপ্নের পেছনে দৌঁড়ানো মানুষের জীবনের কাহিনী দেখুন।

     

    দ্য ড্যামড ইউনাইটেড 
    The Damned United (2009)

    আইএমডিবি - ৭.৫

    =


    ব্রায়ান ক্লাফ যখন ইংল্যান্ডের সেরা ক্লাবগুলির একটা, লিডস ইউনাইটেডের দায়িত্ব পেলেন তখন প্রিমিয়ার লিগের খেলার ধরনেই ছিল মারামারি আর হাতাহাতি। এ ধরনের নোংরা খেলোয়াড়ি মনোভাব থেকে বের হয়ে এসে কীভাবে ইউনাইটেডকে ইতিহাসের পাতায় এবং নিজেকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সর্বকালের সেরা ম্যানেজারদের একজন হিসেবে প্রতিষ্ঠা করলেন ক্লাফ, ড্যামড ইউনাইটেড তারই কাহিনী।

     

    কাই পো চে 

    Kai Po Che (2013)

    আইএমডিবি - ৭.৬


    এই সিনেমার গল্প পাখা মেলেছে তিন বন্ধুকে ঘিরে, যারা একটি ক্রিকেট অ্যাকাডেমী খোলার চেষ্টা করেন যেখান থেকে গড়ে উঠবে ভারতের প্রতিভাবান সব ক্রিকেটার। কিন্তু আশার ফুল বেড়ে ওঠার আগেই উপস্থিত হয় এক বিশাল প্রতিবন্ধকতা। প্রতিকূল সেই পরিস্থিতি টপকে স্বপ্নপূরণ করতে পারবে কি তারা? জানতে হলে অভিষেক কাপুরের সিনেমাটি দেখার কোনও বিকল্প নেই।

     

    মানিবল
    Moneyball (2011)

    আইএমডিবি - ৭.৬


    দামী খেলোয়াড় কেনার মত অর্থনৈতিক সামর্থ্য নেই কিন্তু ওকল্যান্ড এ’র ম্যানেজার বিলি বিনের লক্ষ্য ওয়ার্ল্ড সিরিজ জয়। সংখ্যা আর পরিসংখ্যানের জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে কীভাবে এই বেসবল ম্যানেজার গোটা বেসবল খেলাটার দৃশ্যপটই পরিবর্তন করে দিলেন তার কাহিনী মানিবল। মানিবল দেখলে লেস্টার সিটির লিগ জয় কীভাবে এসেছে সে ব্যাপারেও কিছুটা ধোঁয়াশা কেটে যাবে পাঠকের।

     

    ১৯৮৩  
    1983 (2014)

    আইএমডিবি - ৭.৭


    এই সিনেমার গল্পটা গড়ে উঠেছে এক পাগলা ক্রিকেট ভক্ত রামেশনকে কেন্দ্র করে। নিজে ক্রিকেটে খুব বেশি কিছু করতে না পারলেও ছেলেকে দিয়ে ক্রিকেটে নিজের স্বপ্নপূরণ করার মিশনে নেমেছেন তিনি। ২০১৪ সালে ভারতে মালয়ালম ভাষায় মুক্তি পাওয়া সিনেমাটি সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে বেশ।

     

    এমএস ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি
    M.S Dhoni : The Untold Story (2006)

    আইএমডিবি - ৭.৭


    ভারতের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির জীবনের অজানা বিষয়গুলো উঠে এসেছে নীরাজ পাণ্ডে পরিচালিত এই ছবিতে। রেলওয়ে টিকেট কালেক্টর থেকে কিভাবে ‘ট্রফি কালেক্টর’ হয়ে উঠলেন সেই গল্প জানতে হলে ছবিটি অবশ্যই দেখতে হবে আপনাকে।

     

    রিমেমবার দ্য টাইটানস
    Remember the Titans (2000)

    আইএমডিবি - ৭.৮


    ৭০ এর দশক, যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় বর্ণবাদ তখনো এতটাই সমস্যা যে সাদা আর কালোদের স্কুল আলাদা। এক ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে স্কুল দুটো বন্ধ হয়ে গেলে সাদা ও কালো শিক্ষার্থীদের এক বছর এক সাথে ক্লাস করতে হয়। ঐ সময় স্কুলের ফুটবল কোচের দায়িত্ব নেন হারম্যান বুন, তাঁর ও তাঁর ফুটবল দলের চোখেই দেখা টিসি উইলিয়ামস হাইস্কুলের ঐ এক বছর।

     

    দ্য রেসলার
    The wrestler (2008)

    আইএমডিবি - ৭.৯


    গল্পটা এক মধ্যবয়সী বক্সারের। বয়স, অসুস্থতাসহ নানা কারণে বক্সিং রিংয়ে তার দিন গত হয়েছে। গ্রোসারি শপে দিন-রাত খেঁটে তার জীবন চলে এখন। তবে এর মধ্যেই হঠাৎ একদিন সেরা সময়ের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আয়াতোল্লাহর সঙ্গে বক্সিং রিম্যাচের প্রস্তাব আসে তার কাছে। সেই ম্যাচ দিয়ে আবারও বক্সিয়ের মূল মঞ্চে ফিরে আসার সুযোগ তৈরি হয় তার সামনে। বক্সিং এবং জীবনের দারুণ সমীকরণ সমৃদ্ধ কাহিনীটিকে সিনেমার রুপ দিয়েছেন পরিচালক ড্যারেন অ্যারনফস্কি।

     

    সিন্ডেরেলা ম্যান 
    Cinderella Man (2005)

    আইএমডিবি - ৮.০


    হেভিওয়েট বক্সার জেমস যে ব্র্যাডক বক্সিং ছেড়েই দিয়েছিলেন, পরিবারের জন্য গ্রেট ডিপ্রেশনের সময় নানান কষ্ট করে জীবন চালাতে হয়েছে তাঁকে। কী এক কারণে মৃত ক্যারিয়ার জাগিয়ে তুলতে আবার ফিরে এলেন বক্সিং রিং এ, হয়ে উঠলেন বক্সিংএর এক কিংবদন্তী। তিনটি অস্কারের নমিনেশন পাওয়া এই ছবিটি দেখতে ভুলবেন না।

     

    রাশ
    Rush (2013)

    আইএমডিবি - ৮.১


    ৭০ দশকের ফর্মুলা ওয়ান রেসিং এর নায়ক অস্ট্রিয়ান ড্রাইভার কিংবদন্তী নিকি লাউডা এবং আমেরিকান প্লেবয় জেমস হান্টের রেসিং ট্র্যাক ও ব্যক্তিগত জীবনের প্রতিযোগিতার কাহিনী রাশ। রন হাওয়ার্ডের পরিচালনায় তিনটি গোল্ডেন গ্লোবের মনোনয়ন পাওয়া এ ছবিতে দেখবেন দুইজন কিংবদন্তী রেসারের ফর্মুলা ওয়ান চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড়ের বিখ্যাত গল্প।


    ফোর্ড ভি ফেরারি

    Ford v Ferrari (2019)

    আইএমডিবি - ৮.১


    লে মঁস রেসিং বিশ্বের সবচেয়ে বিখ্যাত রেসিং চ্যাম্পিয়নশিপ। সেখানে ইউরোপিয়ান গাড়ি নির্মাতা, বিশেষ করে ফেরারিরই রাজত্ব। ব্যবসায় ফোর্ড এগিয়ে থাকলেও এই সম্মানটার জন্য হেনরি ফোর্ড দায়িত্ব দিলেন আমেরিকান ইঞ্জিনিয়ার কেন মাইলস এবং গাড়ি ডিজাইনার ক্যারল শেলবিকে। শেলবি আর মাইলস কি পারবেন ফোর্ডের নাম রক্ষা করতে?  

     

    মিলিয়ন ডলার বেবি

    Million Dollar Baby (2004)

    আইএমডিবি - ৮.১
     


    নব্য বক্সার ম্যাগি ফিটজেরাল্ড হতে চান চ্যাম্পিয়ন বক্সার, এজন্য তাঁর প্রয়োজন অভিজ্ঞ ট্রেনার ফ্র্যাঙ্কি ডানের সাহায্য। কিন্তু নিঃসঙ্গ জীবনে অভ্যস্ত ফ্র্যাঙ্কি কাউকে ট্রেইন করাতে চান না, কোন মেয়েকে তো নয়ই। ম্যাগি আর ফ্র্যাঙ্কির ক্যারিয়ারের ছবি আঁকা হয়েছে ৪টি অস্কার জিতে নেওয়া মিলিয়ন ডলার বেবি চলচ্চিত্রটিতে।  


    রকি

    Rocky (1976)

    আইএমডিবি - ৮.১


    আত্মসম্মানের জন্য ছোটখাটো ফাইটে অংশ নেওয়া বক্সার রকিকে লড়তে হয় এক হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়নের সঙ্গে। ১৯৭৬ সালে মুক্তি পাওয়া এই কাল্ট-ক্লাসিক সিনেমাটি বিশ্বজুড়েই ব্যাপক সমাদৃত। দর্শক-সমালোচক সবার মন জয় করে নেওয়া ছবিটি অস্কারে সে বছর সেরা চলচ্চিত্রের পুরস্কারও জিতে নিয়েছিল।

    ইকবাল

    Iqbal (2005)

    আইএমডিবি - ৮.১
     


    কৃষকের ছেলে ইকবাল কথা বলতে বা শুনতে পারে না তথা মূক এবং বধির। তবে এসব সমস্যা তাকে দমিয়ে রাখতে পারেনি। ক্রিকেটের প্রতি অকুণ্ঠ ভালোবাসা থেকে খেলাটি শেখার আগ্রহ তৈরি হয় তার মধ্যে। মদ্যপায়ী এক সাবেক ক্রিকেটারকে গুরু মেনে তার কাছে থেকে ক্রিকেট শেখার হাতে-খড়ি হয় তার। তবে স্বপ্নপূরণের দরজা তখনও অনেক দূর। নাগেশ কুকোনুর পরিচালিত সিনেমাটি বাণিজ্যিকভাবে সফল না হলেও সমালোচকদের মন জয় করে নিয়েছে।


    লগান

    Lagaan (2001)

    আইএমডিবি - ৮.১


    ব্রিটিশ ভারতে করের অত্যাচার থেকে বাঁচতে ছোট এক গ্রামের বাসিন্দারা ব্রিটিশদের বিপক্ষে এক ক্রিকেট ম্যাচ খেলেন, সেই ম্যাচের গল্প নিয়েই এগিয়েছে আশুতোশ গোয়ারিকারের এই সিনেমা। ২০০১ সালে অস্কারের “সেরা বিদেশী ভাষার সিনেমা” বিভাগে মূল পর্বে মনোনয়ন পেয়েছিল ছবিটি।

    চাক দে ইন্ডিয়া

    Chak de India (2007)

    আইএমডিবি - ৮.২


    সাবেক হকি খেলোয়াড় কবির খান সব বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে ভারতীয় নারী দলের কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন। তার লক্ষ্য অবহেলিত নারী হকি দলকে দিয়ে বিশ্বজয় করা, এর মধ্য দিয়েই যে সেরে উঠবে নিজের পুরনো ব্যর্থতার ক্ষত।

     

    ভাগ মিলখা ভাগ

    Bhaag Milkha Bhaag (2015)

    আইএমডিবি - ৮.২
     


    ১৯৪৭ সালে ভারত-পাকিস্তান বিভাজনের সময় গৃহযুদ্ধ দেখা এবং গণহত্যায় পরিবারকে হারানো ‘ফ্লাইং শিখ’ মিলখা সিংয়ের গল্প ‘ভাগ মিলখা ভাগ’। সব দুঃস্মৃতি কাটিয়ে একসময় মিলখা সিং বিশ্বজয় করেছেন, ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন অলিম্পিকে, সেসব ঘটনাই উঠে এসেছে পরিচালক রাকেশ ওমপ্রকাশ মেহরার এই সিনেমায়।

    মন্টেভিডিও, গড ব্লেস ইউ

    Montevideo God bless you (2010)

    আইএমডিবি - ৮.২



    উরুগুয়ের রাজধানী মন্টেভিডিওতে অনুষ্ঠিত হবে প্রথম ফুটবল বিশ্বকাপ। সেখানে অংশগ্রহণ করবে অবিভক্ত যুগোস্লাভিয়ার জাতীয় ফুটবল দল। বেলগ্রেডের রাস্তা থেকে উঠে আসা ১১ জন প্রতিভাবান ফুটবলারের প্রথম বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার কাহিনী নিয়েই এই ছবি বানিয়েছেন সার্বিয়ান পরিচালক দ্রাগান বিয়েলগ্রিচ।

     

    রেজিং বুল

    Raging Bull (1980)

    আইএমডিবি - ৮.২


    মিডলওয়েটের চ্যাম্পিয়ন বক্সার জেক ‘রেজিং বুল’ লামোত্তার জীবনকাহিনী। জেকের ভয়ানক ক্রোধ  বক্সিং রিং এ জেতায় সাহায্য করলেও তার পারিবারিক জীবনকে শেষ করে দিচ্ছে। এ ছবির জন্য সেরা অভিনেতার অস্কার জেতা রবার্ট ডি নিরো ছবির জন্য এতই মনোযোগ দিয়ে বক্সিং শিখেছিলেন যে তিনি তিনটি প্রফেশনাল বক্সিং ম্যাচও জিতে গিয়েছিলেন। পরিচালক মার্টিন স্করসেসির সেরা চলচ্চিত্রগুলোর একটি এটি।  


    জার্সি

    Jersey (2019)

    আইএমডিবি - ৮.৬


    সিনেমার মূল পাত্র অর্জুন খেলার রাজনীতির কারণে অনেক প্রতিভা থাকা সত্ত্বেও সেরা সময়ে ভারতীয় দলে সুযোগ পায়নি। তবে পড়ন্ত বসন্তে ঘটনাক্রমে আবারও ক্রিকেটে ফেরেন অর্জুন, তবে এবার কি ফিরবে তার ভাগ্য?

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন