• লা লিগা
  • " />

     

    দলবদলে বড় খেলোয়াড় আনতে পারবে না রিয়াল-বার্সা?

    করোনাভাইরাস পরবর্তী সময়ে দলবদলের জন্য লা লিগার ক্লাবগুলো ইচ্ছেমতো খরচ করতে পারবে না। লিগের সব ক্লাবকে এই বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন লিগ প্রধান হাভিয়ের তেবাস। একইসাথে করোনার ফলে সৃষ্ট আর্থিক সংকট মোকাবিলায় ক্লাবগুলোকে খেলোয়াড়দের বেতনের কিছু অংশ কমিয়ে দিতেও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। লা লিগার এমন সিদ্ধান্ত রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার মতো ক্লাবগুলোকে নতুন করে ভাবতে হতে পারে।

     সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তেবাস বলেছেন, “আমরা ক্লাবগুলোর আয়-ব্যয়ের বিষয়টি গবেষণা করেছি। আগামী মৌসুম থেকে আমরা যেসব নতুন বিধি প্রণয়ন করতে যাচ্ছি সেগুলো অনুযায়ী বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থায় ক্লাবগুলোর এখনকার পুরো স্কোয়াডকে নির্বাহ করাই কঠিন হয়ে যাবে। তাই ক্লাবগুলোকে নতুন খেলোয়াড়ের জন্য অ্যাকাডেমির দিকে নজর দিতে হবে। আমরা দলবদলের জন্য খরচের যে মাত্রা নির্ধারণ করে দেব, এর বেশি খরচ করে কোনও চুক্তি সম্পন্ন করা যাবে না।” শোনা যাচ্ছিল সামনের মৌসুমে বার্সা ইন্টার থেকে লতারো মার্তিনেজ এবং রিয়াল মিরালেম পিয়ানিচ, সাদিও মানেদের আনতে চায়। কিন্তু এই সিদ্ধান্তের পর এখন সেই সম্ভাবনা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। 

     


    ২০১৩ সাল থেকে লা লিগা ক্লাবগুলোর খরচের জন্য একটি মাত্রা নির্ধারণ করে দিয়েছে, যা প্রতিটি ক্লাবের জন্য আলাদা। মূলত ক্লাবগুলোর সম্ভাব্য আয় এবং পূর্বের তিন মৌসুমে দলবদল থেকে আয়, এই দুটি বিষয়কে মূল্যায়ন করে ক্লাবগুলোর জন্য সেই খরচের মাত্রা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়।

    ২০১৯-২০ মৌসুমে বার্সেলোনার জন্য সেই মাত্রা ছিল ৬৭১ মিলিয়ন ইউরো এবং রিয়াল মাদ্রিদের ৬৪১ মিলিয়ন ইউরো। ক্লাবগুলো এই মৌসুমে খেলোয়াড় এবং কোচদের যাবতীয় বেতন-ভাতা, দলবদলের ফি, এজেন্ট ফি এবং অ্যাকাডেমিতে উল্লিখিত পরিমাণ অর্থের চেয়ে বেশি খরচ করতে পারবে না।

    ইএসপিএনের সূত্রমতে, করোনাভাইরাসের আর্থিক ক্ষতি সামাল দিতে আগামী মৌসুমে বার্সেলোনার মূল বাজেট চলতি মৌসুমের তুলনায় প্রায় ২০০ মিলিয়ন ইউরো কম হতে পারে। আর এর ফলে ৭০ ভাগ বেতন ছেড়ে দেওয়া ফার্স্ট টিমের খেলোয়াড়দের আরও লম্বা সময়ের জন্য বেতন কম নিতে অনুরোধ করতে হতে পারে ক্লাবটিকে।

    লা লিগা প্রধান তেবাস অবশ্য গতমাসে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, বার্সেলোনা বর্তমান অবস্থায় নেইমার বা মার্টিনেজের মতো বড় মাপের দলবদল সম্পন্নন করার মতো অবস্থায় নেই। তবে বার্সেলোনা সহ-সভাপতি জর্ডি কার্ডোনার ইএসপিএনকে জানিয়েছেন, দলবদলের ক্ষেত্রে এবার নতুন সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে বার্সেলোনা দলবদলের বাজারে ‘সৃজনশীল’ কায়দায় কাজ করবে। এক্ষেত্রে খেলোয়াড় অদল-বদলের চুক্তি করার চেষ্টা করা হবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। তবে ক্লাবগুলোর দলবদলের প্রক্রিয়ার দিকে কড়া নজরদারি থাকবে বলে নিশ্চিত করেছেন লিগ প্রধান তেবাস।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন